Skip to content

২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | মঙ্গলবার | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দেজা ভ্যু প্রহেলিকা

"আরে এখানে তো আগেও এসেছি মনেহয়,
এই ঘটনাটা আগেও হয়েছে, স্বপ্নে দেখছিলাম নাকি?"
হয়ত আপনিও এমন কোন ঘটনার সাথে সাক্ষী হয়েছেন। অনেক গবেষক এই বিষয়টিকে "প্যারালাল ইউনিভারস" হিসাবে আখ্যা দেন। সহজ ভাষায় বলা হলে বলা যায়, একি সময়ে একি ব্যক্তি শারীরিক ভাবে দুই জায়গায় হলেও তাদের আত্মিক কাঠামো একটি। 

 

দেজা ভ্যু ( Deja Vu) হচ্ছে এমন একটি বিষয় যা আপনাকে সাময়িক ভাবে ভাবায়। আপনাকে কিছুটা প্রশ্ন বিদ্ধ করে আপনার মনের অগোচরে। কারো সাথে একটি বিষয় নিয়ে কথা বলছেন।বলতে বলতে আপনার মনে হল এই বিষয় নিয়ে আপনি আগেও কথা বলেছেন কিন্তু কার সাথে কথা বলেছেন, কোথায় কথা বলেছেন তা মনে পরছে না। অচেনা একটা রাস্তা দিয়ে হাঁটছেন। হঠাৎই মনে হল আগেও এসেছেন এ রাস্তায়। কিন্তু কবে এসেছেন তা মনে পরে না।

 

আপনি ছাদে বসে বই পড়ছেন। তখন আপনার মনে হল এভাবে বসে এই বইটি আপনি আগেও পড়েছেন। কিন্তু বইটি আপনি আজকেই প্রথম পড়ছেন।

 

চিন্তার কিছু নেই। এই ঘটনা গুলো কোন মানসিক সমস্যার লক্ষণ নয়। ওপরের সব গুলো ঘটনাকে ফরাসি ভাষায় বলে দেজা ভ্যু। যার অর্থ ইতোমধ্যে দেখা(already seen)। পৃথিবীর ৬০-৭০শতাংশ মানুষের সাথে দেজা ভ্যু ঘটে থাকে। তাদের বেশির ভাগেরই কোন মানসিক সমস্যা নেই। তাই এটাকে মানসিক সমস্যা ভাবার কোনই কারণ নেই।

 

সাউদার্ন মেলোডিস্ট ইউনিভার্সিটির মনোবিজ্ঞানী অ্যালান এস.ব্রাউন ২০০৩ সালে তাঁর এক অনুসন্ধানের ভিত্তিতে বলেন- "পৃথিবীর ৭০ভাগের বেশি মানুষ তাদের জীবনের কোন না কোন সময় এই পরিস্থিতি প্রত্যক্ষ করেছেন।"

 

আমরা সচেতন ভাবে ঘটে যাওয়া ঘটনা গুলো সবসময় মনে করতে পারিনা। কিন্তু আমাদের মস্তিষ্ক এক্ষেত্রে একটি সাদৃশ্য খুঁজে বেড়ায়। একারণেই আমাদের মধ্যে এমন একটি অনিশ্চিত প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয় যে, আমাদের মনে হয় এটি আমরা আগেও করেছি বা আমাদের সাথে এমন ঘটনা আগে ঘটেছে। কিন্তু কেন বা কোথায় এর কোন উত্তর থাকে না আমাদের কাছে।

 

সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যা হল দেজা ভ্যু আমাদের মস্তিষ্কে সংরক্ষিত স্মৃতির বিচ্ছুরণ ছাড়া আর কিছু না। পরিবেশে আমাদের গতিশীলতার কারণে আমাদের পূর্ব অভিজ্ঞতার কোন স্মৃতির বিচ্ছুরণ ঘটতে পারে।পূর্বে অনেক বিজ্ঞানী দেজা ভ্যু কে মানসিক সমস্যার সাথে মিলিয়ে দেন কিন্তু এর পক্ষে কোন প্রমাণ তাঁরা দেখাতে পারেননি।

 

ইসলামের ব্যাখ্যায় ক্বারীন নামক জ্বীনের কারণে দেজা ভ্যু ঘটে থাকে। জ্বীনটি মানুষের সাহচর্যে থাকে। উক্ত মানুষটি যখন মারা যায়, জ্বীন তখনো বেঁচে থাকে। কারণ জ্বীনের আয়ু ৫০০-৭০০বছর।এরপর জ্বীনটি আরেকটি মানুষের সংস্পর্শে যায় এবং পূর্বের মানুষের সাথে ঘটে যাওয়া কাজ গুলো যখন আবার ঘটে তখনি মানুষ ভাবে এরকম ঘটনা আমার সাথে আগেও ঘটেছে।

 

আবার যারা পূর্ব জন্মে বিশ্বাসী তারা মনে করে থাকেন পূর্ব জন্মের কোন ঘটনার পুরাবৃত্তি এমন হওয়ার কারণ। আসলে এটি কোন অতিপ্রাকৃত বিষয় নয়।ফ্রেঞ্চ সাইন্টিস্ট Emil Boirac এসব অভিজ্ঞতার নাম দেন 'দেজা ভু'।

 

আবার সাইন্টিস্টরা এও বলে থাকেন, মানুষের মস্তিষ্কের এক পাশ থেকে অন্যপাশে অনুভূতি বা ডাটা ড্রেনড্রন দিয়ে যাবার সময় মাঝেমধ্যে খুব সামান্য সময়ের পার্থক্য হয়, ফলে মস্তিষ্কের কোন কোন অংশ দুইবার অনুভূতি বা ডাটা গ্রহণ করে,ফলে মানুষ একই ঘটনা খুব অল্প সময়ের মধ্যে দুইবার দেখে, এর ফলে আমরা মনে করি ঘটনা টা আগে কোথাও দেখেছি।

 

আমাদের স্মৃতি শক্তি ক্ষমতার ব্যাপারে আমরা কেবল কল্পনাই করে যেতে পারি। এই ব্যাপারে বিষদ ভাবে বোঝার ক্ষেত্রে মনস্তাত্ত্বিক গবেষণা ব্যতীত কিছু নেই। হয়ত আপনি এতক্ষণ যা পড়লেন এটাও একটা দেজা ভ্যু! কি হতে পারে নাহ?