Skip to content

১২ই মে, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | রবিবার | ২৯শে বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাইরেসিতে পড়লো ‘রেহানা মরিয়ম নূর’

'রেহানা মরিয়ম নূর' এই সিনেমার কথা আসলেই বাঙালী মনে একটা  গর্বিত ভাব চলে আসে। কারণ এই সিনেমা বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসে সম্মানের জায়গা তৈরি করেছে। দেশকে এনে দিয়েছে আন্তর্জাতিক সম্মান। আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে আমন্ত্রণ পেয়ে জিতে নিয়েছে আন্তর্জাতিক দর্শকদেরও বাহবা।  দেশের হল গুলোতেও শীঘ্রই মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু হঠাৎ এই আন্তর্জাতিক মানে সিনেমাটি পড়ে গেলো পাইরেসিতে। 

 

পুরো সিনেমাটি একটি চক্র ইন্টারনেটে ছেড়ে দিয়েছে। এত সম্মান এনে দেওয়া সিনেমা এখন পাইরেসির শিকার হয়ে পুরো ইন্টারনেট দুনিয়ায় ঘুরছে। আর এই নিয়ে ফেইসবুকের বিভিন্ন গ্রুপেও চলছে তুমুল সমালোচনা।  ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সিনেমা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারাও। 

 

সিনেমার পরিচালক  আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ থেকে শুরু করে কাস্টিং ডিরেক্টর, নির্বাহী প্রযোজক এমনকি অন্য নির্মাতারাও দুঃখ প্রকাশ করেন। 

 

এবিষয়ে এসময়ের গুণী নির্মাতা মাহবুবুর রহমান বান্নাহ জানান, সবাই মিলে উৎসব করে সিনেমা দেখার আশা থাকলেও এখন এই সিনেমার পাইরেট কপি ইনবক্স ইনবক্সে ঘুরে বেড়াচ্ছে।  এত অপেক্ষার পর এমন একটি সিনেমা নিয়ে এমন হতাশাজনক খবরে রাগ প্রকাশ করলেন বান্নাহ।  

 

সিনেমার নির্মাতা সাদ এই খবরে এতটাই  মনঃক্ষুণ্ণ হয়েছেন যে এবিষয়ে কোন মতামত দেওয়ার মানসিক পরিস্থিতি হারিয়ে ফেলেছেন। এমনকি সিনেমার নির্বাহী প্রযোজক এহসানুল হক বাবু জানান এবিষয়ে তারা প্রশাসনের সহায়তা নিয়ে আইনি পদক্ষেপও নেবেন। 

এমন একটি ঘটনা চলচ্চিত্রের জন্য সত্যিই দুঃখজনক। যে সিনেমা বিশ্বখ্যাতি এনে দিয়েছে, নিজের দেশে সে সিনেমার এমন অবমাননা মোটেও চলচ্চিত্র জগতের জন্য সুখকর  নয়।  বরং অনেকটা ক্ষতিকর। তাই যারা এই কাজটি করেছেন তাদের মূল্যবোধ নিয়ে তো প্রশ্ন থেকেই যায়,  সেই সাথে চলচ্চিত্র নিয়ে তাদের রুচিবোধও প্রশ্নবিদ্ধ বলা যায়।

 

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ