Skip to content

৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | শনিবার | ২২শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কারণে-অকারণে রেগে যাচ্ছেন? 

অনেকেরই সকালে ঘুম থেকে উঠে অকারণে মেজাজ খারাপ থাকে। কোন কথা বললেই রেগে যায় বা সবার সাথেই মেজাজ দেখান। নাস্তার টেবিলে বা দুপুরে খাবারের টেবিলে যে কোন ছোট ছোট বিষয় নিয়েই অযথা কথা-কাটাকাটি করছেন সবার সাথেই বা সঙ্গীর সাথে। সব বিষয়ে যদি এমন মেজাজ থাকে তাহলে সেটি আসলে ঠিক নয়। এক্ষেত্রে এটি ভাবার বিষয়।

 

পরিবারের সবাই এই বিষয় কে খুব স্বাভাবিক ভাবেই নিয়ে থাকেন। তাদের ধারণা এমনটা হতেই পারে, পরে ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু সত্যিই কি ঠিক হয়? এই রকম মেজাজ যদি সব সময় চলতে থাকে, তাহলে হতে পারে কোন অজানা ক্ষতিকর রোগ। তাই শুরু থেকে সচেতন থাকতে হবে এবং রাগ নিয়ন্ত্রণ রাখার চেষ্টা করতে হবে। এক্ষেত্রে যা করতে হবে,

 

অনেকেই বিষণ্ণতায় ভোগেন। যার কারণে অকারণেই রেগে যান। তাই সবার আগে এই অবসাদ থেকে নিজেকে সরিয়ে আনতে হবে। কোন কিছু নিয়ে নিজেকে ব্যস্ত করে ফেলুন, যা করতে ভালো লাগে। অযথা রেগে যাওয়ার সময় মাথা ঠাণ্ডা রাখার চেষ্টা করুন।

 

রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে হালকা ব্যায়াম বা মেডিটেশন করে নিতে পারেন। এতে সারাদিনের ক্লান্তি, হতাশা, অবসাদ ইত্যাদি থেকে কিছুটা রিলাক্স পাবেন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ফোন চালানোর অভ্যাস থাকলে তা ত্যাগ করুন এবং যত জলদি পারেন ঘুমিয়ে পরুন।

 

আমাদের জীবন যা হয় তা কোন কিছুই আমাদের হাতে নেই। তাই কোন কিছুর উপর রাগ দেখানোর আগে ভাবুন, এতো রাগ করে কি হবে আসলে? কোন কিছুতেই আসলে রাগ দেখিয়ে লাভ নেই। তাই কোন বিষয় নিয়ে রাগ হলে চেষ্টা করুন সেই বিষয় ভুলে থাকতে বা রাগ না করতে। আপনি চাইলেই রাগ নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। তাই কিছু বলা বা করার আগে মাথা ঠাণ্ডা করে আগে ভাবুন।

 

ধরুন এমন কোন পরিবেশ বা সিচুয়েশ ন তৈরি হল যা আপনার ভালো লাগছে না বা বিরক্ত লাগছে। তাহলে সেই খান থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়ে আসুন। যেখানে থাকলে বা গেলে নিজের মধ্যে ভালো লাগবে সেখানেই যান। এতে করে মনের শান্তি মিলবে সাথে মেজাজ ও ভালো থাকবে।

 

যদি লেখা লিখির অভ্যাস থাকে তাহলে ডায়েরিতেই লিখুন সারাদিন কি কি করেছেন।কার উপর রাগ হয়েছে কেন হয়েছে? ইত্যাদি। এতে যেমন মনের ভিতর থাকা রাগ গুলো চলে যাবে, সাথে আপনার মন টাও হালকা হবে এবং মেজাজ ভালো থাকবে।

 

ভোর সকালে উঠার অভ্যাস করতে পারেন। বাহিরে সবুজ গাছপালার কাছে গিয়া হাটাহাটি করলে মন অনেকটা প্রশান্তি পাবে। এতে করে মন ও ভালো থাকবে সেই সাথে শরীর ও সতেজ থাকবে। সকালে ঘুম ভাঙার পরই মুক্ত হাওয়ায় কিছুক্ষণ হাঁটতে থাকুন। প্রকৃতির আলো-বাতাস গায়ে লাগার ফলে সারাদিন ফুরফুরে মেজাজে কাটবে।

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ