Skip to content

১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ | বুধবার | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মা দিবসে গরবিনী মায়েরা

জন্মদাত্রী মায়ের কল্যাণে পৃথিবীতে আলোর মুখ দেখা হয় সন্তানের। সন্তানের জন্মদান থেকে শুরু করে লালনপালন করা, প্রতিষ্ঠিত হওয়া ও জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত বিশেষ ভূমিকা পালন করেন একজন মা। বিশ্বের প্রায় প্রতিটি সফল ব্যক্তির সফলতার পিছনে আছেন একজন মা। আমাদের জীবনে মায়ের অবস্থান যেন ঢালের মতো। সকল বিপদ থেকে আগলে নিজের সন্তানকে বড় করেন তিনি। সফলতার মুখ দেখান সন্তানকে। 

সন্তানের সফলতার পিছনে মায়ের অবদান কেন্দ্র করে ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল গত ৯ মার্চ (মা দিবসে) ১০ জন মাকে 'গরবিনী মা' সম্মাননা প্রদান করেছে। মায়ের যদি একজন সন্তানও সমাজে প্রতিষ্ঠিত হয়ে বিশেষ অবদান রাখেন, তবে সেই সন্তানের মা–ও ‘গরবিনী মা’ হিসেবে বিশেষ শ্রদ্ধা ও সম্মান পাবেন। গতকাল রাজধানীর মহাখালীতে ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে অষ্টমবারের মতো  সম্মানপ্রাপ্ত মায়েদের নাম ঘোষণা করা হয়।

 

হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রীতি চক্রবর্তী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডাঃ আশীষ কুমার চক্রবর্তীর মায়ের অসুস্থতায় এবং রোগ মুক্তি কামনায় তারা ২০১৪ সাল থেকে এই নান্দনিক অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে। শুরুতে ৫জন গরবিনী মাকে এই সম্মাননা প্রদান করা হয়, যেখানে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন প্রয়াত: দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। আইন ও বিচার, আইনশৃঙ্খলা, প্রশাসন, চিকিৎসা, ক্রীড়া, সাংবাদিকতা, সংগীত, অভিনয় (নারী), অভিনয় (পুরুষ) এবং অদম্য মেধাবী—এ ১০ ক্যাটাগরিতে বিশেষ অবদান রাখা সন্তানের মায়েদের সম্মাননা দেওয়া হয়েছে।

 

বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদান রাখার জন্য সমাজের প্রতিষ্ঠিত ১০জন সুনাগরিকের গরবিনী মা ২০২১ এর নাম ঘোষণা করেন ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী। তাঁরা হলেন- আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের যুগ্ম-সচিব (প্রশাসন-১) বিকাশ কুমার সাহা এর মা লতিকা সাহা, র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) ডিআইজি ইমতিয়াজ আহমেদ এর মা মনোয়ারা তৈয়ব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জন নিরাপত্তা বিভাগের উপসচিব (পুলিশ-১) ধনঞ্জয় কুমার দাস এর মা কাজল রানী দাস, ল্যাবএইড কার্ডিয়াক হাসপাতালের চীফ কার্ডিয়াক সার্জন ডা. লুৎফর রাহমান এর মা বেগম লুৎফুন্নেসা, সাবেক জাতীয় দলের ক্রিকেটার ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার আতাহার আলী খানের মা সেলিমা সালামত খান, সাংবাদিক, নাট্যকার, নির্মাতা ও ঔপন্যাসিক রেজানুর রহমান এর মা মিসেস রহিমা নুর, স্বনামধন্য সুরকার, সঙ্গীতশিল্পি ও সঙ্গীত পরিচালক হাবিব ওয়াহিদ এর মা রোখসানা ওয়াহিদ, আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন মডেল, অভিনেত্রী ও প্রযোজক জয়া আহসান এর মা রেহানা মাসউদ, চলচ্চিত্র অভিনেতা ও মডেল সিয়াম আহমেদ এর মা মাহমুদা বেগম এবং এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর ফর ওমেন এ স্কলারশীপে অনার্সে অধ্যয়নরত: অদম্য মেধাবী প্রিয়াঙ্কা গোয়ালা এর মা রিতা গোয়ালা। সম্মাননা পাওয়া ১০ জন ‘গরবিনী মা’কে ক্রেস্ট, সনদসহ বিভিন্ন উপহার দেওয়া হবে। করোনাভাইরাসের কারণে এবার মায়েদের সরাসরি উপস্থিত হয়ে এসব উপহার ও সম্মাননা গ্রহণ করতে হবে না। আয়োজকেরা মায়েদের হাতে সম্মাননা পৌঁছে দেবেন।

 

প্রেস কনফারেন্সে চিকিৎসক আশীষ কুমার চক্রবর্তী বলেন, ‘বিভিন্ন সংগঠন বিশ্ব মা দিবসে মায়েদের সম্মাননা দিচ্ছে। অনেকের শর্ত থাকে সন্তানদের মধ্যে অন্তত তিনজনকে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হতে হবে। তবে আমরা বলেছি, একজন সন্তানও  যদি সমাজে অবদান রাখেন, ওই মা এ সম্মাননা পাবেন।'

 

উল্লেখ্য, ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রীতি চক্রবর্তী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক চিকিৎসক আশীষ কুমার চক্রবর্তীর মায়ের অসুস্থতায় এবং রোগমুক্তি কামনায় ২০১৪ সাল থেকে মায়েদের এই সম্মাননা দেওয়া হচ্ছে। পাঁচজন ‘গরবিনী মা’কে সম্মাননা দেওয়ার মাধ্যমে উদ্যোগটি শুরু হয়েছিল।
 

 

 

 

ডাউনলোড করুন অনন্যা অ্যাপ