Skip to content

১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | শনিবার | ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মটর পুরি

পুরি কমবেশি সকলের নিকট পছন্দের একটি খাবার। বিকাল কিংবা সন্ধ্যার নাস্তায় এটি যোগ করে ভিন্ন মাত্রা। তবে একটু ভিন্নতা আনতে বানাতে পারেন মটর পুরি। খেতেও বেশ সুস্বাদু। তবে চলুন মটর পুরির রেসিপিটা জেনে নেই- 

 

উপকরণ

১। মটরশুঁটি-২ কাপ
২। তেল -২ টেবিল চামচ
৩। আজওয়াইন বা রাঁধুনি – ১ চা চামচ
৪। কালোজিরা – ১ চা চামচ
৫। হলুদ গুঁড়ো – আধা চা চামচ
৬। লবণ – স্বাদমতো
৭। মরিচ গুঁড়ো – আধা চা চামচ
৮। জিরা গুঁড়ো – আধা চা চামচ
৯। ধনেপাতা – ২ টেবিল চামচ
১০। কাঁচামরিচ – ৩ টি

 

পুরির জন্য-

১। ময়দা – ২ কাপ
২। তেল – ২ চা চামচ
৩। লবণ – আধা চা চামচ
৪। চিনি – ১ চা চমচ
৫। হাল্কা গরম পানি – পারিমাণমতো
৬। রুটি বেলার জন্য ময়দা – আধা কাপ

 

প্রণালী

 

পুর তৈরির জন্য-

প্রথমে মটরশুঁটি গরম পানিতে ৪-৫ মিনিট ফুটিয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার মটরশুঁটি, ধনেপাতা, কাঁচা মরিচ একসঙ্গে বেটে বা ব্লেন্ড করে পেস্ট বানিয়ে নিন। এরপর একটি প্যান নিয়ে তাতে তেল দিয়ে আজওয়াইন বা রাঁধুনি ও কালোজিরা দিয়ে দিন । হালকা ভেজে মটরশুঁটি পেস্ট ও বাকি মশলা দিয়ে ভাজতে থাকুন। একদম শুকনো ভাজা ভাজা করে নামিয়ে রাখুন। একটু সময় নিয়ে ভাজবেন। নয়ত পানি থাকলে পুরি বেলার সময় পুর বের হয়ে যাবে। 

 

পুরি তৈরির জন্য-

শুরুতে ময়দা, লবণ, চিনি, তেল ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার পরিমাণ মতো পানি দিয়ে মাখিয়ে কিছুটা নরম করে খামির বানিয়ে নিন। ৩০ মিনিট ঢেকে রেখে খামির ১০-১২ ভাগ করে নিন। একভাগ হাতে নিয়ে চেপে চেপে গোল রুটির মতো বানিয়ে নিন। রুটির মাঝখানটা পুরু থাকবে আর চারপাশ পাতলা থাকবে।

এখন ১ টেবিল চামচ পুর রুটির মাঝখানে রেখে চারপাশ একসঙ্গে নিয়ে আটকে দিন। হাত দিয়ে গোল করে রাখুন। এভাবে সবগুলো বল বানিয়ে নিন। পিঁড়িতে অল্প ময়দা দিয়ে আলতো করে আস্তে আস্তে বেলে নিন।

ফ্রোজেন করতে চাইলে গরম তাওয়াতে তেল ব্রাশ করে চুলার আঁচ কমিয়ে নিন। এখন পুরিগুলো দিয়ে দু’পাশ ১ মিনিটের মতো রেখে নামিয়ে ঠাণ্ডা করুন। সব পুরি হয়ে গেলে জিপলক ব্যাগে বা বাটিতে রেখে ডিপ ফ্রিজে রাখুন।

 

ভাজার ১০ মিনিট আগে ফ্রিজ থেকে নামিয়ে রাখুন। কড়াইতে তেল দিয়ে তেল কিছুটা গরম হলে ডুবো তেলে পুরি দিন। চুলার আঁচ কমিয়ে রেখে সময় নিয়ে ভাজুন। এতে পুরি মুচমুচে হবে। পরিবেশন করুন সস বা চাটনির সঙ্গে।