Skip to content

১১ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ | বৃহস্পতিবার | ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গরমের ফ্যাশনে কাফতানের আধিপত্য

গরমে আরামদায়ক পোশাকের খোঁজ চলে শপিং-মলজুড়ে। পোশাকের ধরন ও রঙের ওপর নির্ভর করে আরামদায়ক পোশাক বাছাই করা হয়। কিন্তু এসব দিক দিয়ে আবার ফ্যাশন সচেতন মানুষদের পরতে হয় বেজায় সমস্যায়। একই সঙ্গে আরামদায়ক আবার ফ্যাশনেবল হবে এমন পোশাক খুঁজতে হয় তাদের। এক্ষেত্রে সাহায্য করতে পারে কাফতান। ফ্যাশন দুনিয়ায় কয়েকবছর যাবত বেশ আধিপত্য বিস্তার করে যাচ্ছে কাফতান৷ এটি একদিকে আরামদায়ক, অন্যদিকে ফ্যাশনেবল।

শুধু কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে নয়, অফিস থেকে বিয়ে বাড়ি সবজায়গায় এবং সব বয়সী মেয়েদের মন জয় করে নিচ্ছে এই কাফতান। একরঙা থেকে ফুলেল প্রিন্ট, জর্জেট, লিলেন, সুতি কিংবা শাটিন সব কাপড়েরই কাফতান এখন পাওয়া যাচ্ছে। অনেকেই ভিন্ন ভিন্ন স্টাইলে কাফতান পরছেন পালাজো, প্যান্ট, জিন্স, চুড়িদার আবার স্কার্টের সঙ্গে। কাফতান বিভিন্ন সাইজের হয়- শর্ট, ফোর কোয়ার্টার বা লং কাফতান। সব জায়গায় কিংবা সব অনুষ্ঠানে একই ধরনের কাফতান ভালো লাগবে না। আবার কোন কাফতানের সঙ্গে কোন স্টাইল মানানসই হবে, কেমন গয়না, জুতা বা ব্যাগ মানানসই হবে তাও বুঝতে পারেন না। এ বিষয়গুলোতে একটু চোখ বোলানো যাক তবে।

কখন কেমন কাফতান পরবেন

কোন সময়ে পোশাকটি পরছেন বা কোন অনুষ্ঠানের জন্য পোশাকটি পরছেন, তার ওপর নির্ভর করে কাফতান পছন্দ করুন। কোথাও ঘুরতে গেলে, অফিসে বা ক্লাসে গেলে তখন সুতির কাফতান পরুন। যেহেতু দিনের বেলায়, সকালের দিকে রোদ বেশি হয়, তাই তখন সুতির কাফতান পরতে পারেন। সকালের গরম বা ঘামে আরাম পাবেন সুতির কাফতানে। আবার রাতের বা সন্ধ্যার পার্টি হলে সিল্ক, জর্জেট বা শিমারযুক্ত কাফতান বেছে নিতে পারেন।

কাফতানের দৈর্ঘ্য কেমন হবে

কাফতান সাধারণত অনেক ডিজাইন ও সাইজের হয়। আপনার পরিবেশ এবং সময় অনুযায়ী কোন দৈর্ঘ্যের কাফতান মানানসই তা বেছে নিতে হবে। যদি আপনি অফিসের জন্য পরেন তাহলে হাঁটু অব্দি ঝুলের কাফতান আর সাথে লেগিংস বা জিন্স পরে নিতে পারেন। কোথাও ঘুরতে গেলে ছোট ঝুলের কাফতান পরতে পারেন। আবার বিয়েবাড়ির কোনো অনুষ্ঠানের জন্য লম্বা ঝুলের কাফতান বাছাই করতে পারেন।

সঙ্গে গয়না ও ব্যাগ কেমন হবে

পোশাকের সঙ্গে যদি মানানসই ব্যাগ ও গয়না না হয়, তবে পুরো সাজই মাটি হয়ে যাবে। তাই এ বিষয়েও সচেতন হতে হবে। কাফতানের সঙ্গে বড় ব্যাগ খুব একটা মানায় না। তাই চেষ্টা করুন ছোট আকারের ব্যাগ নেওয়ার। লম্বা ঝুলের ছোট ব্যাগ দেখতে বেশি ক্ল্যাসি লাগবে। গয়নার ক্ষেত্রে খেয়াল রাখবেন যদি আপনার কাফতানটিই হয় খুব কারুকাজ করা জমকালো তাহলে নেকলেস না পরে বেছে নিতে পারেন ভারি দুল। আর যদি একরঙা কাফতান পরেন সেক্ষেত্রে গলায় কিছু পরতে পারেন। একটু লং নেকপিস পরলে বেশি ভালো লাগতে পারে।

এছাড়া, কাফতানের সঙ্গে হিল জুতা বেশি মানানসই হয়। তবে শর্ট, ফোর কোয়ার্টার কাফতানের সঙ্গে স্লিপার টাইপ জুতাও পরতে পারেন। তবে লং কাফতানের সঙ্গে যতটা সম্ভব হিল পরার চেষ্টা করুন। কাফতানের চাহিদা ফ্যাশন সচেতন নারীদের কাছে অনেকটা বেশি। কাফতান একাধারে যেমন আরামদায়ক আবার বেশ ফ্যাশনেবলও বটে। তবে কাফতান পরার সময় ছোট্ট কোনো ভুলে যেন আপনাকে দেখতে খারাপ না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

অনন্যা/জেএজে