শীতে ভ্রমণের আগে যেসব প্রস্তুতি নিবেন

Winter Travel
ভ্রমণের জন্য সবচাইতে উপযোগী সময় হচ্ছে শীতকাল। ফাইল ছবি
ভ্রমণের জন্য থাকা চাই পুরোপুরি প্রস্তুতি। তা না হলে ভ্রমণ আনন্দ পরিণতি হতে পারে নিরানন্দে। কিন্তু এই শীতে কি প্রস্তুতি নিবেন। তাও জানা থাকা চাই আগে থেকে।

ক্যালেন্ডারের পাতায় ডিসেম্বর মানেই শীতের আগমন। ঘুরতে যাওয়ার জন্য এর চেয়ে ভালো সময় আর কী হতে পারে। তাই ভ্রমণের জন্য থাকা চাই পুরোপুরি প্রস্তুতি। তা না হলে ভ্রমণ আনন্দ পরিণতি হতে পারে নিরানন্দে। কিন্তু এই শীতে কি প্রস্তুতি নিবেন। তাও জানা থাকা চাই আগে থেকে।

 

স্থান নির্ধারণ

বেড়াতে যাওয়ার আগে প্রথমই আপনাকে ঠিক করতে হবে কোন স্থানে যাবেন। ভাবতে হবে শীতকালের জন্য ভ্রমণের কোন জায়গাগুলো উপযুক্ত। শীতের মধ্যে সেন্টমার্টিন, সাজেক ভ্যালি, কেওক্রাডং এর চূড়া, নীলগিরি, সুন্দরবন, কুয়াকাটা, জাফলং হতে পারে উপযুক্ত ভ্রমণের স্থান। এর সাথে আপনাকে মনে রাখতে হবে কতদিনের জন্য যাবেন, বাজেট কত, কাদের নিয়ে যাবেন এবং যেখানে যাবেন সেখানের সুযোগ-সুবিধা কেমন।

 

ভ্রমণের জন্য ব্যাগ নির্ধারন

বাজারে নানা ধরনের ব্যাগ পাওয়া যায়। ভ্রমণের জন্য বিশেষ আলাদা কিছু ব্যাগ রয়েছে। যদি বেশি দিনের জন্য বেড়াতে যান তাহলে ট্রাভেল ব্যাগের চেয়ে বড় ট্রলি ব্যাগ আরামদায়ক। অল্প দিনের জন্য গেলে নিতে পারেন কাঁধে ঝোলানো ট্রাভেল ব্যাগ কিংবা ব্যাগপ্যাক। শুধু কাঁধে নয়, এগুলো হাতেও ধরে নেয়া যায়। তাই এই ধরনের ব্যাগ হতে পারে আপনার প্রথম পছন্দ।

 

ভ্রমণের পোষাক

আমাদের দেশে শীতের মাত্রা তেমন একটা বেশি নয়। তাই কোন জেলায় কোন স্পটে ঘুরতে যাচ্ছের সেখানকার তাপমাত্রা সম্পর্কে জেনে নিন। বনজঙ্গলে যেতে পুরো শরীর ঢেকে থাকে এমন পোশাক পরুন, পোকামাকড়ের কামড়, কাঁটালতা থেকে রক্ষা পাবেন। পানিতে নামবেন এমন কোথাও ভ্রমণে গেলে এমন পোশাক পরুন যা পানিতে ভিজলে খুব তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যাবে। আর জুতার ক্ষেত্রে স্লিপার, কেডস, বুট সবেচেয়ে আরামদায়ক। ডায়াবেটিস রোগীরা ভ্রমণে অবশ্যই ডেডস পরুন।

 

 

থাকার ব্যবস্থা

সম্ভব হলে যাওয়ার আগেই হোটেল বুকিং দিন। কারণ শীতের সিজনে অনেক সময় হোটেল সংকটে পড়তে হয়। এ জন্য বিভিন্ন হোটেলের ওয়েবসাইটে অথবা ট্রাভেল এজেন্সির সাহায্য নিতে পারেন।

 

প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র

শারীরিক সমস্যা বলে কয়ে আসে না। তাই ভ্রমণে নিয়মিত খাওয়ার ওষুধের পাশাপাশি জ্বর, মাথাব্যথা, বদহজম, ডায়রিয়ার ওষুধ সঙ্গে রাখুন। ডায়াবেটিস, অ্যাজমা, নিউমোনিয়ার সমস্যা আছে এমন কেউ ভ্রমণে সঙ্গে থাকলে ওষুধ, ইনহেলার সঙ্গে রাখুন। সম্ভব হলে ডায়াবেটিস এবং প্রেসার মাপার মেশিন সঙ্গে রাখুন।

 

 

প্রয়োজনীয় গ্যাজেট

ঘুরতে গেলে কেইনা চায় ছবি তুলতে। তারজন্য দরকার মোবাইল ফোন অথবা ক্যামেরা। আর এই গ্যাজেট গুলির চার্জ দেবার জন্য চার্জার,টর্চ লাইট, ইয়ারফোন আরও নানা প্রয়োজনীয় গ্যাজেট নিতে ভুলবেন না। তাই এসব জিনিস আগেই ব্যাগে রাখুন।

 

সতর্কতা

শীতে সন্ধ্যার পর অথবা বেশি রাত পর্যন্ত হোটেলের বাইরে অবস্থান করবেন না। বিশেষ করে পরিবার নিয়ে ভ্রমণ করতে গেলে। অবশ্যই শিশুদের দিকে লক্ষ্য রাখবেন। এবার ভ্রমণের প্রস্তুতি শেষ। এই শীতে ঘুরে আসুন আপনার পছন্দের জায়গা। এই ভ্রমণ প্রস্তুতি আপনার ভ্রমণকে আনন্দময় করে তুলুক।