মহামারীর সময়ে উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার গল্প

মহামারীর সময়ে উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার গল্প
মহামারীর সময়ে উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার গল্প
প্রথমেই নিজেকে তৈরি করতে হবে ও ঠিক করতে হবে আসলে কি নিয়ে কাজ করতে হবে। আমি কি পারি এই বিষয়ে জানতে হবে। নিজের মেধাটা খুঁজে বের করতে হবে। পরিশ্রম, ধৈর্য নিয়ে লেগে থাকতে হবে।

গত রবিবার পাক্ষিক অনন্যা ও WOMEN AND E-COMMERCE FORUM – WE এর সাপ্তাহিক যৌথ আয়োজন "উদ্যোক্তার গল্প" অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ‘প্রিয়ন্তী’ ও ‘নট আর্ট বিডি’ –র সত্ত্বাধিকারী অর্পিতা বড়ুয়া এবং ‘শীতল পাট’ ও ‘রঙ্গিলা’ এর সত্ত্বাধিকারী আয়েশা আক্তার। বিভিন্ন উদ্যোগের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হয়েছেন এমন ব্যক্তিদের গল্প শোনা যায় এই অনুষ্ঠানে। অনুষ্ঠানের স্পন্সরে ছিল এসএসবি লেদার।


অনুষ্ঠানের শুরুতেই অর্পিতা বড়ুয়া পাক্ষিক অনন্যাকে ও অনন্যার দর্শকদের ধন্যবাদ জানান। এরপর তার দুটি উদ্যোগ ‘প্রিয়ন্তী’ ও ‘নট আর্ট বিডি’ এর পণ্য সম্পর্কে বলেন। প্রিয়ন্তিতে রয়েছে মূলত হাতের তৈরি গহনা। এই উদ্যোগ তিনি শুরু করেন ২০১৮ সালে। তার আরেকটি উদ্যোগ নট আর্ট বিডি কাজ করছে বাংলাদেশের হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য গিটশিল্প নিয়ে। এখানে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যান্ট হ্যাঙ্গার ও হোম ডেকোরেটেড পণ্য। এখানকার সবকিছুই হাতের তৈরি। এটি ২০২০ এ করোনা মহামারীর মধ্যে যাত্রা শুরু করে।


এরপর আয়েশা আক্তার করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে তার উদ্যোগ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার গল্প শোনান। তার উদ্যোগ ‘শীতল পাটি’ শুরু হয় ২০১৯ সালের মার্চ মাসে, তার WE -তে জয়েন হবার পর। শুরুর সময়টিই ছিল মহামারির মধ্যে। তিনি প্রথমে আসলে জানতেন না যে তিনি শীতল পাটি নিয়েই কাজ করবেন। WE –তে জয়েন করার পর তিনি দেখলেন সবাই দেশীয় পণ্য ও হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী পণ্য নিয়ে কাজ করছে নিয়ে কাজ করছে। তখন তিনি ভাবলেন তিনি তার অঞ্চল সিলেটেরি ঐতিহ্যবাহী পণ্য শীতল পাটি নিয়ে কাজ করতে পারেন। এরপর WE এর সহায়তায় তিনি তার উদ্যোগ শীতল পাটি নিয়ে কাজ শুরু করলেন। এরপর জুন থেকে তিনি পণ্যের ডেলিভারি দেয়াও শুরু করলেন। 


অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে অর্পিতা বড়ুয়া তার উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার গল্প আমাদের সাথে শেয়ার করেন। ২০১৯ এ প্রিয়ন্তী এর পর তিনি WE এর সাথে সম্পৃক্ততা পূর্বের তুলনায় বাড়িয়ে দেন। WE আসলে এতো বিশাল একটি প্লাটফর্ম এখানে আসলে সবাই অনেক কিছু শিখতে পারে। ২০১৯ আর ২০২০ সালটি তিনি শেখার কাজে লাগান। ২০১৮ সালে তিনি প্রথম উদ্যোগ শুরু করলেও ২০২০ এ তার দ্বিতীয় উদ্যোগ নট আর্ট বিডি শুরু করেন WE এর হাত ধরে। যেই লক্ষ্য নিয়ে তিনি উদ্যোগ নিয়েছিলেন তা অনেকটাই পূর্ণ হযেছে তার, বলতে গেলে তার বেশিই পূর্ণ হয়েছে। কিন্তু ২০২০ এ মহামারী পরিস্থিতিতে তার কাজ অনেকটাই স্তব্ধ হয়ে যায়। তাই সেই সময়টি তিনি WE থেকে কাজ শেখার কাজে লাগান। এরপর পড়ালেখা করতে করতে তিনি নট আর্ট বিডি শুরু করেন। WE থেকে শিক্ষার ফল ছিল তার দ্বিতীয় উদ্যোগ নট আর্ট বিডি। এই উদ্যোগের মাধ্যমে তিনি এক মাসের মধ্যে লাখপতি হয়েছেন। তার আশার উপরে পণ্য সেল হয়েছে। বাংলাদেশের ৫০ টি জেলায় ইতোমধ্যে তার পণ্য পৌঁছে গেছে। তার লক্ষ্য হল বাংলাদেশের ৬৪ টি জেলায়ই তার পণ্য পৌঁছে দেয়া এবং বিদেশে তার পণ্য রপ্তানি করা। 


যারা নতুন করে কাজ শুরু করতে চান তাদের উদ্দেশ্যে আয়েশা আক্তার বলেন, প্রথমেই নিজেকে তৈরি করতে হবে ও ঠিক করতে হবে আসলে কি নিয়ে কাজ করতে হবে। আমি কি পারি এই বিষয়ে জানতে হবে। নিজের মেধাটা খুঁজে বের করতে হবে। পরিশ্রম, ধৈর্য নিয়ে লেগে থাকতে হবে। এ বিষয়ে অর্পিতা বড়ুয়া বলেন, নিজের ইন্টারেস্ট আসলে খুঁজে বের করতে হবে। তাহলেই সঠিক পণ্য বাছাই করা  যাবে। 
এরপর অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে সঞ্চালক সবাইকে ধন্যবাদ দিয়ে লাইভ অনুষ্ঠানটি সমাপ্ত করেন।