কবিতা

কবিতা
কবিতা
হৃদয়াকাশজুড়ে তোমার মমতার ছোঁয়া তোমাকে ছাড়া আমি ‘আমি’ থাকি না ‘তুমি’ মানেই আমি ভালোবাসা, তুমি আমার অন্তরের মমতার স্রোত নিত্যদিন যেখানে পরিশুদ্ধ হই আমি ভালোবাসা, তোমাকে আমার প্রেম-পুষ্পাঞ্জলি ভালোবাসা, তোমার আগুনে মনটা পুড়ল আমার।

জাগে স্বপ্নের শহর
- নাহার ফরিদ খান

ধরণীর বুকে বিছানো রোদের সোনালি শরীর
আকাশের নির্মল নীলে যাযাবর মেঘের ভিড়
শালিক, খঞ্জনার সুখের ওড়াওড়ি, প্রাণচঞ্চল
বেওয়ারিশ বাতাস অলিন্দে যুবতীর ওড়ায় অঞ্চল
সবুজপাতা কেমন হেসে নৃত্যছন্দে লুটোপুটি
কৃষ্ণচূড়ার রাঙারূপ বিলায় আনন্দ মুঠিমুঠি
মন্থর বিকেল কেন যে বিষণ্ণতার গান গায়
সময় প্রত্নতত্ত্ব হৃদয় খুড়ে সুচারু অতীত জাগায়
অলক্তরাঙা গোধূলী আসে মোহময়ীরূপে
লাজবতী সন্ধ্যা ডাকে গোধূলীকে চুপেচুপে
নিসর্গের সাথে চাঁদের প্রণয়ে আসে বিনিদ্ররজনী
স্মৃতিমন্থন শেষে অশ্রুজলে ভেজা জাগে অবনী
বিজনরাত কেবলই কাঁদায়, উথলে ওয়ে কষ্টপ্রহর
ভৈরবীরাগে, জীবনজাগে, জাগে স্বপ্নের শহর ॥

 

তোমায় খুঁজি মৌনমনে
- হোসনা মুরাদ কেয়া 

তুমি নেই বলে...
ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলজুড়ে দহনের গান
মানচিত্র মুখস্থ করে পাই না তোমার নাম।
 হে মায়া মানসী...মম হৃদয়ে তোমায় পাই না কেন খুঁজে? আকাশজুড়ে নক্ষত্রের কান্না; হাহাকারে ঝলসে যাওয়া মিঠে রোদ; নদী বৃক্ষ ও পাখির কলরবে শূন্যতা; রুদ্র রুক্ষ এই জনপদ।
আধপেটা কৃষক লাঙ্গলের ফলায় মাটি উপড়ে খোঁজে সোনালি অতীত। বধূয়ার চোখের রঙিন স্বপ্নগুলো মিইয়ে যায় শাদা শাড়ির ভাঁজে ভাঁজে। মধ্যবিত্ত ইচ্ছেরা নীরবে ডানা ঝাপটায় সায়াহ্নের বাঁকে। সোনামোড়ানো নাকপাশা শ্যেন দৃষ্টিতে কেবল তাকিয়ে থাকে নিয়তির দিকে...
স্বপ্নের বীজ নিয়ে ফেরিওয়ালা ঘুরে বেড়ায় আশার নগরে। উচ্চাভিলাষী আকসা ছুঁতে চায় বহুতল ভবনের উপর সুইমিং পুলের উষ্ণজল। দেয়ালের পলেস্তরায় অনায়াসে ঢেকে যায় কিশোরীর সান্ধ্য অভিমান। উর্ধমুখী জীবনের মৌনআর্তি...পূর্ণিমা ও অমাবস্যার ন্যায্য হিস্যা হওয়া জরুরি...
তুমি নেই বলে... 
রাতজাগা সুবেহ সাদেক মিলিয়ে যায় ল্যাম্পোস্টের আলোর দৌরাত্বে। বেপরোয়া সময় পেরিয়ে যায় হাইওয়ে, ব্রডওয়ে। বারবার লেন চেঞ্জ করে আটপৌরে জীবনের পা-ুলিপি লেখা হয় ডায়াস্পোরার মোড়কে। ভালোবাসারা বেঁচে থাকে ডেড লেনে।
ম্যানিকিউর করা নখের ঝলকানি আর স্ট্র্যাপলেস পারফিউমের গন্ধে সভ্যতার জ্ঞান হারায় ব্যাকরণ..

 

 

ভালোবাসা, তোমার আগুনে 
মনটা পুড়ল আমার
- আবুল কাসেম

ভালোবাসা, তোমার আগুনে মনটা পুড়ল আমার 
ভালোবাসা, তোমাকে ভালোবাসি আমি,
পূর্ণিমা রাতের মধুক্ষণে আকাশে ভালোবাসা ছিল,
জোছনার থৈ থৈ উজ্জ্বল আলো ছিল ধরিত্রীর সবখানে,
আমি ছিলাম মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে সেই আকাশতলে
ভালোবাসা, তুমি ছিলে আমার মনের আকাশে
তোমার সাথে আমি ছিলাম ভাবের আবেশে সুন্দর
ভালোবাসা, তোমার আগুনে পুড়লে মনে খাদ থাকে না
নিখাদ ভালোবাসার জ্যোৎস্নালোকিত মধুক্ষণে 
আনন্দ-অবগাহনে আমি মত্ত ছিলাম
একফোঁটা ঘুম ছিল না চোখে
প্রকৃতির সাথে একান্ত নৈঃশব্দ্যে আচ্ছন্ন ছিলাম আমি
চারদিকে চাঁদের আলো থৈ থৈ নৃত্য করছিল
সেই মধুক্ষণে তুমি ভালোবাসা হয়ে এলে আমার মনে
ভালোবাসা, তোমার আগুনে মনটা পুড়ল আমার

ভালোবাসা, তোমার ভালোবাসা স্নিগ্ধসুন্দর
হৃদয়সিক্ত মমতার বন্যা
হৃদয়াকাশজুড়ে তোমার মমতার ছোঁয়া
তোমাকে ছাড়া আমি ‘আমি’ থাকি না
‘তুমি’ মানেই আমি
ভালোবাসা, তুমি আমার অন্তরের মমতার স্রোত
নিত্যদিন যেখানে পরিশুদ্ধ হই আমি 
ভালোবাসা, তোমাকে আমার প্রেম-পুষ্পাঞ্জলি
ভালোবাসা, তোমার আগুনে মনটা পুড়ল আমার।