ভাইবারে এআর প্রযুক্তির ‘লেন্স’ ফিচার যুগ শুরু!

ভাইবারে এআর প্রযুক্তির ‘লেন্স’ ফিচার যুগ শুরু!
ছবি: সংগৃহীত
জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপ ভাইবার বাংলাদেশের ব্যবহারকারীদের জন্য অগমেন্টেড রিয়েলিটি (এআর) প্রযুক্তির ফিচার চালু করেছে। ভাইবার অ্যাপের ক্যামেরায় যুক্ত হওয়া নতুন এ ফিচারের নাম ‘লেন্স’।

সবাইকে একটু নস্টালজিক করে দেই। পুরনো সেই দিনে যখন প্রথম একটা টাচ ফিচার যুক্ত হ্যান্ডসেট আমাদের কাছে ছিল তখন কিন্তু আমরা বর্তমান সময়ের বাজারে নেতৃত্ব দেওয়া হোয়াটসঅ্যাপ কে চিনতাম না। আমাদের সকলের কাছে স্বাচ্ছন্দ্যের একটি অ্যাপের নাম ছিল ভাইবার। সময়ের বেড়াজালে বাংলাদেশের বাজার হারিয়ে ফেললেও কোম্পানিটি নতুন চমক নিয়ে বাংলাদেশের বাজারে ফিরে আসার সুতো বুনছে। সম্প্রতি তাদের অসাধারণ একটি ফিচার যুক্ত হয়েছে।

 

জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপ ভাইবার বাংলাদেশের ব্যবহারকারীদের জন্য অগমেন্টেড রিয়েলিটি (এআর) প্রযুক্তির ফিচার চালু করেছে। ভাইবার অ্যাপের ক্যামেরায় যুক্ত হওয়া নতুন এ ফিচারের নাম ‘লেন্স’।

 

যুক্তরাষ্ট্রের সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানি স্ন্যাপচ্যাট-এর সঙ্গে অংশীদারিত্বের লেন্স ফিচার এনেছে ভাইবার। ফিচারটি ভাইবার অ্যাপে প্রথমবারের মতো এআর-যুক্ত ভিডিও মেসেজিং ও ছবি উপভোগ করার সুযোগ দেবে। বাংলাদেশের ভাইবার ব্যবহারকারীরা এখন তাদের কথোপকথনে লেন্স যুক্ত করে আরও উপভোগ্য উপায়ে প্রিয়জনদের সঙ্গে চ্যাট করতে পারবেন।

 

এই ফিচারে ৩০ টিরও বেশি আকর্ষণীয় ফিল্টার রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে অ্যানিমেল মাস্ক, ফ্যান্টাসি ইফেক্ট এবং ভাইবার ক্যারেক্টার। ব্যবহারকারীরা ভাইবার ক্যামেরা চালু করার পর পছন্দের ফিল্টার বাছাই করে ছবি তুলে তাৎক্ষণিকভাবে তা পাঠানোর মাধ্যমে কথোপকথনকে আরও উপভোগ্য করে তুলতে পারবেন। লেন্সের মাধ্যমে স্ক্রিনে প্রদর্শিত স্টিকার যুক্ত করে বা রঙ পাল্টে কাস্টমাইজ করার সুযোগও পাবেন ব্যবহারকারীরা। প্রতি মাসে কমপক্ষে বিশটি অতিরিক্ত লেন্স যুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে ভাইবার কর্তৃপক্ষের।  

 

বাংলাদেশে নতুন এই ফিচার চালু উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) এক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে রাকুতেন ভাইবারের চিফ গ্রোথ অফিসার আনা জামেনস্কায়া বলেন, ‘নতুন ভাইবার লেন্স চালুর মাধ্যমে আমরা এআর–কে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছি। ভাইবার লেন্স অনন্য উপায়ে কল্পনাকে বাস্তবে পরিণত করে। আমরা বিশ্বাস করি, এটি ভবিষ্যতে আমাদের পণ্যগুলোতে উদ্ভাবনী এবং চমকপ্রদ নতুন কিছু যুক্ত করতে উৎসাহিত করবে।’

 

ভাইবার লেন্স এমন একটি ব্যতিক্রমী ফিচার, যা ব্যবহারকারীদের আরও সৃজনশীল, উপভোগ্য এবং প্রাণবন্ত কথোপকথনে সহায়তা করবে। অ্যাপের মাধ্যমে পাঠানো মেসেজ, ভিডিও এবং ছবির সুরক্ষা নিশ্চিত করতে তাদের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ভাইবার লেন্সে সবচেয়ে উন্নত এআর সক্ষমতা অন্তর্ভুক্ত করেছে। এছাড়া, বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের জন্য বিশেষ স্থানীয় লেন্স চালু করার কথা ভাবা হচ্ছে। বাংলাদেশের ব্যবহারকারীদের জন্য এসব ফিচার  এবং আরও সৃজনশীল উপায়ে তাদের চিন্তাভাবনা এবং অনুভূতি প্রকাশ করার সুযোগ করে দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে ভাইবার কমিউনিটি।

 

ভাইবার কোম্পানিটি তার পুরনো রূপে ফিরে আসতে পারবে কিনা তা দেখা অনেকটা সময়ের ব্যাপার। প্রতিযোগিতার এ যুগে তাদেরকে কঠিন তপস্যার মাধ্যমে তাদের অতীত অবস্থানে ফিরে আসতে হবে। তবে নিঃসন্দেহে তাদের নতুন এই যাত্রা আশার আলো নিয়ে আসতে চলেছে।