লক্ষ রুমীর মা

লক্ষ রুমীর মা
ছবি: সংগৃহীত
অস্ত্র হাতে ধানের মাঠে, শিস ফলাতে তাই দিনের শেষে গরীব দুখী, দু'বেলা দুমুঠো ভাত পায় তাইতো আগে পায়ে পায়ে, শৃঙ্খলটা ভেঙে সূর্যটাকে আনবে পেরে, রক্তে তার রাঙিয়ে। 

এক রুমীর মা থেকে, লক্ষ রুমীর মা
দেখো এখন মাটির বুকে, গর্ভ-যন্ত্রণা।
ভাঙছে মাটি, গড়ছে মাটি, নদীর জলে রক্ত
পাষাণ করে মাগো তোমার, বুকটি রাখো শক্ত। 

 

ছেলে তোমার বিলেত যাবে,ছাড়বে তাকে কি 
বড় ডিগ্রি, ভালো চাকরি,লাল টুকটুকে বউ, সংসার সোহাগী 
কিন্তু ছেলে তোমার এখন মাগো, বিলেত যেতে চায়না
পায়ে পায়ে শিকল বাঁধা, মাটি গ্রাস করেছে হায়না। 

 

অস্ত্র হাতে ধানের মাঠে, শিস ফলাতে তাই
দিনের শেষে গরীব দুখী, দু'বেলা দুমুঠো ভাত পায়
তাইতো আগে পায়ে পায়ে, শৃঙ্খলটা ভেঙে
সূর্যটাকে আনবে পেরে, রক্তে তার রাঙিয়ে। 

 

দেশের জন্য সেই ছেলেকে করে দাও উৎসর্গ
বুক ফাটা যন্ত্রণা তার, কতোই না নরক পেরিয়ে স্বর্গ
সোনা তোমার হারিয়ে গেলো, আলো বাতাস হয়ে
চাঁদের কণা স্বাধীন হলো, অশ্রু ধারা নিয়ে। 

 

তোমার বুকে দিবারাত্রি, ঝরো ঝরো বহমান সেই ঝর্না
এক রুমীর মা থেকে, লক্ষ রুমীর মা।