বিশ্বসেরা ৫০ চিন্তাবিদের তালিকায় বাংলাদেশি স্থপতি মেরিনা তাবাশ্যুম

মেরিনা তাবাশ্যুম
চলতি বছরে বিশ্ব সেরা ৫০ জন চিন্তাবিদের তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন বাংলাদেশি স্থপতি মেরিনা তাবাশ্যুম। গত ১৪ জুলাই বিশ্বের শীর্ষ ৫০ চিন্তাবিদের এই তালিকা প্রকাশ করে যুক্তরাজ্যভিত্তিক ম্যাগাজিন ‘প্রসপেক্ট’।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক ম্যাগাজিনটির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মেরিনা তাবাশ্যুম প্রাকৃতিক পরিবেশের সঙ্গে মিল রেখে ভবন নির্মাণ এবং পরিবেশের দ্বারা উদ্ভূত চ্যালেঞ্জগুলো গ্রহণ করে নকশা তৈরি করায় দারুণ অবদান রেখেছেন। তার নকশা করা স্থানীয় উপকরণের হালকা ওজনের বাড়িগুলো স্টিলের ওপর দাঁড়িয়ে থাকতে সক্ষম এবং পানির মাত্রা বেড়ে গেলে সেগুলো সরানো যায়। বিষয়গুলো আন্তর্জাতিকভাবে ভূয়সী প্রশংসা কুড়িয়েছে।

 

মেরিনার নকশা করা টেরাকোটা ইট দিয়ে নির্মিত রাজধানীর বায়তুর রউফ মসজিদ। মসজিদটির নকশা ও স্থাপত্যশৈলীর জন্য আগা খান পুরস্কারও পেয়েছেন এই স্থপতি। বাংলাদেশের স্থপতি হিসেবে তিনিই প্রথম এ পুরস্কারে ভূষিত হন। যদিও এর আগে বাংলাদেশের তিনটি স্থাপত্য এই পুরস্কার পেয়েছিল। কিন্তু সেগুলোর স্থপতি বিদেশি ছিলেন। আগা খান পুরস্কার আন্তর্জাতিকভাবে অত্যন্ত সম্মানজনক পুরস্কার হিসেবে বিবেচিত।

 

এছাড়াও ২০০৫ সালে 'অনন্যা শীর্ষ দশ- ২০০৫' পুরস্কারে ভূষিত হন স্থপতি মেরিনা তাবাশ্যুম। দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন পর্যায়ে সফলতা ও অসাধারণ কৃতিত্বের জন্য প্রতিবছর দশ জন নারীকে 'অনন্যা শীর্ষ দশ' পুরস্কারে ভূষিত করে আসছে পাক্ষিক অনন্যা।

 

প্রসঙ্গত, নারীর চোখে বিশ্ব দেখার প্রত্যয় নিয়ে ১৯৮৮ সালে পাক্ষিক অনন্যা যাত্রা শুরু করে অনন্যা। শুধু বাংলাদেশই নয়, সমগ্র বিশ্বের নারীর সক্ষমতা ও অগ্রগতিকে গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরে। লেখনীর মাধ্যমে অনন্যা তুলে ধরে নারীর মানবিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক অধিকারের বিষয়গুলো। নিয়মিত প্রকাশিত হয় লাইফস্টাইল, সাহিত্য, বিনোদন ও খেলাধুলাবিষয়ক লেখা।