ইরানে টিভিপর্দায় নারীদের জন্য বিশেষ নির্দেশনা

ইরানে টিভিপর্দায় নারীদের জন্য বিশেষ নির্দেশনা
ছবি:সংগৃহীত
নতুন নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, পুরুষরা কর্মক্ষেত্রে নারীদের চা ঢেলে দিচ্ছেন এমন দৃশ্য টেলিভিশনের পর্দায় প্রদর্শন করা যাবে না। এছাড়া নারীরা লেদারের গ্লাভস পরতে পারবেন না বলেও নতুন নীতিমালায় বলা হয়েছে।

পশ্চিম এশিয়ার অন্যতম একটি দেশ হলো ইরান। মধ্যপ্রাচ্যের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ এটি। অর্থনৈতিকভাবে বেশ সমৃদ্ধ এই দেশটি। যুক্তরাষ্ট্রকে টক্কর দেয়ার সক্ষমতা রাখে ইরান। তবে টিভির পর্দায় কাজ করার জন্য বেশ কিছু নির্দেশনা মেনে চলতে হয় ইরানের নারীদের। টেলিভিশন পর্দায় নারীদের বেশ কিছু দৃশ্য প্রদর্শনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দেশটি।


সম্প্রতি টেলিভিশনে বিভিন্ন দৃশ্যের সম্প্রচারে সেন্সর জারি করেছে ইরান সরকার। ইসলামিক রিপাবলিক অব ইরান ব্রডকাস্টিং (আইআরআইবি) পর্দায় দৃশ্য সংক্রান্ত এই নীতিমালাগুলো অনুমোদন করেছে। টেলিভিশনের অনুষ্ঠান নির্মাতা ও চিত্রপরিচালকদের সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে এ বিষয়ে। নতুন নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, পুরুষরা কর্মক্ষেত্রে নারীদের চা ঢেলে দিচ্ছেন এমন দৃশ্য টেলিভিশনের পর্দায় প্রদর্শন করা যাবে না। এছাড়া নারীরা লেদারের গ্লাভস পরতে পারবেন না বলেও নতুন নীতিমালায় বলা হয়েছে।


কোনও ঘরোয়া দৃশ্যে পুরুষ- নারীকে একসঙ্গে দেখানোতেও নিষেধাজ্ঞা রয়েছে ইরান সরকারের। প্রশাসনের নজর এড়িয়ে যাতে এ ধরনের দৃশ্য দেখানো না হয়, তার জন্য প্রতিটি দৃশ্য সম্প্রচারের আগে মিলতে হবে সরকারি ছাড়পত্র। আইআরআইবির অনুমতি পেলেই তবে মুক্তি পাবে সেই সম্প্রচার। আইনের প্যাঁচ থেকে বাঁচতে ইরানের কিছু অনলাইন প্ল্যাটফর্ম নিজেরাই কড়াকড়ি শুরু করেছে।


এখানেই শেষ নয়। মুসলিম দেশটির তথ্য ও সম্প্রচার দফতরের প্রধান আমির হোসেন শামশাদি আরও জানিয়েছেন, টিভি বা সিনেমার পর্দায় কোনও মহিলাকে লাল রঙের পানীয় খেতেও দেখানো যাবে না। এমনকি স্যান্ডউইচ খাওয়াও নিষিদ্ধ।
 

মুসলিম দেশ হওয়ায় নারীদের ওপর এই নিষেধাজ্ঞাগুলো আরোপ করা হয়েছে বলে ধরা হচ্ছে।