ভারোত্তোলনে রৌপজয়ী মীরাবাঈ চানু

ভারোত্তোলনে রৌপজয়ী মীরাবাঈ চানু
মীরাবাঈ চানু
চানুর এই সফলতায় খুশি গোটা দেশ। টুইট করে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এছাড়াও মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী বীরেন সিং এক  কোটি টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছেন চানুর জন্য। সঙ্গে চাকরিতেও পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে। জানা গেছে পুলিশের এএসপি পদে চাকরি দেওয়া হয়েছে চানুকে।

এবারের টোকিও অলিম্পিকে ভারতের হয়ে প্রথম পদকটি পেয়েছেন যিনি, তিনি হলেন মীরাবাঈ চানু। ভারোত্তোলনে রৌপ্য জয় করা তিনিই প্রথম কোন ভারতীয় অ্যাথলেট।

 

অলিম্পিকে ভারোত্তোলনে রেকর্ড গড়ে প্রথম হলেন চিনের ঝৌ হৌ। তিনি মোট ২১০ কিলোগ্রাম ওজন তোলেন। মীরাবাই তুলেছেন মোট ২০২ কিলোগ্রাম। তৃতীয় স্থানে ইন্দোনেশিয়ার উইন্ডি কান্টিকা আইসাহ। তিনি তুলেছেন ১৯৪ কিলোগ্রাম। তবে জানা গেছে যে স্বর্ণজয়ী ভারোত্তোলক ঝৌ হৌ-র ডোপ টেস্ট করা হচ্ছে। যদি পজিটিভ পাওয়া যায় তাহলে চানুর ভাগ্য পরিবর্তন হয়ে যাবে। চানু পেয়ে যেতে পারেন স্বপ্নের অলিম্পিক স্বর্ণপদকটি।

 

চানুর এই সফলতায় খুশি গোটা দেশ। টুইট করে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এছাড়াও মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী বীরেন সিং এক  কোটি টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছেন চানুর জন্য। সঙ্গে চাকরিতেও পদোন্নতি দেওয়া হচ্ছে। জানা গেছে পুলিশের এএসপি পদে চাকরি দেওয়া হয়েছে চানুকে। তবে চানুর এই সফলতা মোটেও একদিনের ফল নয়। এর আগে ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকে দুর্বল পারফরম্যান্স দেখিয়েছিলেন যার ফলে তাকে ফিরে আসতে হয়েছিলো নিজ দেশে। কিন্তু এতে ভেঙ্গে পড়েননি চানু। অধ্যবসায় ও কঠোর পরিশ্রমের  মাধ্যমে অবশেষে অর্জন করলেনে রৌপ্যপদক।

২৬ বছর বয়সী এই নারীর পুরো নাম শাইকম মীরাবাঈ চানু। ভারতের মণিপুরের ছোট্ট গ্রাম নংপোক কাকচিংয়ে জন্ম তার। অন্য ভাইবোনেদের সঙ্গে দাপিয়ে বেরাত সে। চোট্টবেলা থেকেই বেশি ভারী জিনিস তুলতে চাইতেন মীরা। অনায়াসেই ছোট্ট একটা মেয়ে জ্বালানি কাঠের বান্ডিল তুলে নিয়ে আসত। মাত্র ১২ বছর বয়সে একটা আস্ত কাঠের গুঁড়ি তুলে নিয়ে এসেছিল বাড়িতে। তারপরেই বাবা-মা বুঝতে পারেন তাঁদের মেয়ে সাধারণ নন। শুরু হয় ভারোত্তলেন প্রশিক্ষণ। সেই থেকেই ভারত্তোলনে যাত্রা শুরু।


ধাপে ধাপে রাজ্যের গণ্ডি পেরিয়ে জাতীয় স্তরে উঠে আসেন তিনি। দেশের হয়ে প্রথম খেলতে গিয়েছিলেন রিও অলিম্পিকে। ২০১৬ সালে ব্রাজিলে রিও অলিম্পিকে ৪৮ কেজির বিভাগে অংশ নিয়েছিলেন মীরাবাঈ। কিন্তু সেসময় তিনি সাফল্য পান নি। তা বলে দমে যাননি মীরা। ঠিক তার পরের বছরেই ২০১৭ সালে আমেরিকার ওয়ার্ল্ড ওয়েট লিফটিং চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জয় করেন তিনি।

 

এশিয়ান চ্যাম্পিয়ানশিপে ১১৯ কিলোগ্রাম তোলার রেকর্ড গড়ে অলিম্পিকসে পদক জয়ের আশা বাড়িয়েছিলেন তিনি। সেই স্বপ্নই সফল হল শনিবার। আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, উজবেকিস্তান,  চিন, স্কটল্যান্ড সহ একাধিক দেশে ভারোত্তোলন প্রতিযোগিতায় সাফল্য পেয়েছেন তিনি। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ, কমনওয়েলথ গেমসে সোনা জয়ের পর এ বার অলিম্পিকসে রুপো জয় চানুর।

 

দেশ থেকেও তিনি পেয়েছেন বেশ কিছু সম্মাননা। ভারত সরকারের কাছ থেকে রাজীব গান্ধী খেল রত্ন, পদ্মশ্রীও পেয়েছেন তিনি। মীরাবাঈ চানুর এই সাফল্যের পর মণিপুর সরকার রাজ্যে বিশ্বমানের একটা ওয়েটলিফটিং অ্যাকাডেমি গড়ে তোলার কথা ভাবনাচিন্তা করছে। এতে এই রাজ্যের অ্যাথলেটরা আরো এগিয়ে যেতে পারবে।