আল জাজিরার নারী সাংবাদিককে গ্রেফতার

আল জাজিরার নারী সাংবাদিককে গ্রেফতার
আল জাজিরার নারী সাংবাদিককে গ্রেফতার
গ্রেপ্তারের কয়েক ঘণ্টা পর তাকে ১৫ দিন শেখ জাররাহ না যাওয়ার শর্তে পুলিশি হেফাজত থেকে মুক্তি দেওয়া হয়। মুক্তি পাওয়ার পর বুদেইরি বলেন, ' তারা চতুর্দিক থেকে আসছিল। আমি জানি না তারা কেন আমাকে দেয়ালের সঙ্গে চেপে ধরেছে। তারা আমায় লাগাতার লাথি মারছিল।' 

শনিবার ইসরায়েলি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছে আল জাজিরার এক নারী সাংবাদিক গিভারা বুদেইরি। তিনি আল জাজিরার জেরুজালেম প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।  


ইসরায়েলি দখলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের ৫৪তম নাকসা দিবসের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন বুদেইরি। ১৯৬৭ সালে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি হামলার স্মরণে এ দিবস পালিত হয়। 


গতকাল পূর্ব জেরুজালেমের নিকটবর্তী শেখ জাররাহ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে ইসরায়েলি পুলিশ। গ্রেফতারের আগে তাকে মারধর এমনকি ক্যামেরাসহ তাদের সঙ্গে থাকা জিনিসপত্রও ভাংচুর করা হয়। 


দায়িত্বরত ঐ নারী সাংবাদিকের গায়ে প্রেসের জ্যাকেট ছিল, এমনকি তিনি প্রেসের কার্ড দেখালেও কোন লাভ হয়নি। রীতিমতো কোন কারণ ছাড়াই তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান  আল জাজিরার আরেক সংবাদকর্মী হোদা আবদেল হামিদ। 


তিনি বলেন, ‘তাকে ক্রমাগত ধাক্কানো হচ্ছিল। তখন সঙ্গে থাকা ক্যামেরাম্যান তার কাছে যাওয়ার চেষ্টা করলে ক্যামেরাটিও ভেঙে ফেলা হয়।’


অন্যদিকে ইসরায়েলি পুলিশের দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, নিরাপত্তা বাহিনীর জন্য হয়রানির কারণ হতে পারেন, এমন সন্দেহে এক নারী ও এক পুরুষকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।


গ্রেপ্তারের কয়েক ঘণ্টা পর তাকে ১৫ দিন শেখ জাররাহ না যাওয়ার শর্তে পুলিশি হেফাজত থেকে মুক্তি দেওয়া হয়। মুক্তি পাওয়ার পর বুদেইরি বলেন, ' তারা চতুর্দিক থেকে আসছিল। আমি জানি না তারা কেন আমাকে দেয়ালের সঙ্গে চেপে ধরেছে। তারা আমায় লাগাতার লাথি মারছিল।' 


এ ঘটনা নিয়ে বিশ্ব গণমাধ্যম জুড়ে শুরু হয়ে যায় আলোচনা -সমালোচনা। একজন নারী সাংবাদিককে এমন হয়রানি ও গ্রেপ্তারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন অধিকারকর্মীরা।