স্বপ্নের পথে বাঁধা হয়নি কিছুই

স্বপ্নের পথে বাঁধা হয়নি কিছুই
বরাবরই তার মূল লক্ষ্য ছিল, ব্যবসার মাধ্যমে মানুষকে ভালো কি দেওয়া যায়, আর এই চিন্তাটিই গ্রাহকের আস্থা পেতে তাকে সহায়তা করে। তিনি বিনয় ও সততা দিয়ে গ্রাহকদের আপন করে নিতে পেরেছেন। অনন্যা বলেন, ‘হঠাৎ দেখি বাংলাদেশে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সহজ সরল মানুষদের বিদেশি পণ্য বলে নকল পণ্য দিয়ে ঠকাচ্ছেন, তখনই আমি সিদ্ধান্ত নিলাম অরিজিনাল মেকাপ প্রোডাক্ট ইউএসএ, ইউকে থেকে আমদানি করে গ্রাহকদের কাছে ভালোমানের ব্রান্ডের অরিজিনাল কসমেটিকস পৌঁছে দিবো। আমার ভাইয়া-ভাবি যেহেতু ইউএসএ গ্রিন কার্ড হোল্ডার তাই আমার অনেক সাহায্য হয়েছে।

পেশায় একজন শিক্ষিকা হলেও নিজের কর্মদক্ষতায় পৌঁছে যান একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেন অনন্যা আজিজ। তবে শুরুর পথটা কখনোই মসৃণ ছিল না। একজন নারী হিসেবে নিজের স্বপ্ন উদ্যোগের পথে হাঁটতে গিয়ে পেরুতে হয়েছে নানা চড়াই-উৎরাই। তবে নিজের দৃঢ়তার সামনে বাঁধা হয়নি কিছুই। ২০১২ সালের সেই শুরুর গল্প বলতে গিয়ে অনন্যা বলেন, ‘সবসময়ই স্বপ্ন ছিল নিজের কিছু করার। ২০১২-তে প্রথম পাকিস্তানি ড্রেসের ব্যবসা শুরু করি ডব্লিউ ভি এ ফেয়ারে স্টলও দিয়েছিলাম। ওইটাই  আমার প্রথম কোনো ফেয়ারে অংশগ্রহণ করা। তখন আমার ব্যবসায় আমার বোন অংশীদার ছিল। পরে আমি ব্যবসা পুরোপুরি নিজে করি। আমাদের দেশি পোশাক, ইন্ডিয়ান, পাকিস্তানি সবধরনের পোস্টালে অনলাইনে বিক্রি শুরু করি।’
বরাবরই তার মূল লক্ষ্য ছিল, ব্যবসার মাধ্যমে মানুষকে ভালো কি দেওয়া যায়, আর এই চিন্তাটিই গ্রাহকের আস্থা পেতে তাকে সহায়তা করে। তিনি বিনয় ও সততা দিয়ে গ্রাহকদের আপন করে নিতে পেরেছেন। অনন্যা বলেন, ‘হঠাৎ দেখি বাংলাদেশে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সহজ সরল মানুষদের বিদেশি পণ্য বলে নকল পণ্য দিয়ে ঠকাচ্ছেন, তখনই আমি সিদ্ধান্ত নিলাম অরিজিনাল মেকাপ প্রোডাক্ট ইউএসএ, ইউকে থেকে আমদানি করে গ্রাহকদের কাছে ভালোমানের ব্রান্ডের অরিজিনাল কসমেটিকস পৌঁছে দিবো। আমার ভাইয়া-ভাবি যেহেতু ইউএসএ গ্রিন কার্ড হোল্ডার তাই আমার অনেক সাহায্য হয়েছে।

তারপর থেকে এখন সব ইউএসএ, ইউকে আর ব্রান্ডেড কসমেটিকস যেমন মেক, সেপোরা, কিলিনিং, দ্যা বডি সুপ, সব উন্নতমানের প্রোডাক্ট আমদানি করছি ও গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছি। আমার ফেসবুকে একটি গ্রুপ আছে, দ্যা বিউটি বার” এর একটি বিজনেস পেজ আছে ফ্যাশন ওয়ার। চায়না থেকে একবার একলক্ষ টাকার প্রোডাক্ট ইনপুট করেছিলাম। অনেক ধরনের পণ্য এনেছিলাম,  যেমন ওয়াল স্টিকার, চুরটাইনস,  ডিফারেন্ট টাইপ অফ অর্গাইজারস, লিপস্টিক হোল্ডার, বেল্ট ইত্যাদি। পণ্যগুলো অনেক ভালো বিক্রি হয়েছিল। এখন চায়না থেকে হোম ডেকোর প্রোডাক্ট ইনপুট করছি। আমার নিজের দুইটা কমার্সিয়াল স্পেস আছে মিনা বাজারের উপরে। ভবিষ্যতে ইচ্ছা আছে আমার নিজের শো- রুম দেওয়ার এবং একটা ফাস্ট ফুডের শপ দেওয়ার।’


অনন্যা স্বপ্ন দেখেন তার ব্যবসার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত নারীদের কর্মসংস্থান হবে। তিনি মনে করেন, বাংলাদেশের তরুণদের এখন উচিত ব্যবসায় আসা। আমাদের উচিত একে অন্যের অনুপ্রেরণা হওয়া। একজন উদ্যোক্তা হিসেবে মনেকরি যে-কোনো উদ্যোগে সফল হওয়ার জন্য দুটি বিষয় খুবই প্রয়োজন, তা হলো সততা এবং বিনয়। এর মাধ্যমে জীবনে যে-কোনো কিছু অর্জন করা যায়।