মন ভালো রাখতে সাজসজ্জা

প্রতীকী ছবি
এই করোনাকালীন সময়ে নিজেকে ঘর বন্দি রেখে মন কিভাবে ভালো রাখবো? হ্যাঁ, আমি বলবো এই সময়ে নিজেকে ঘরবন্দি করেও নিজের মন ভালো রাখা যায়। আর তার জন্যে চাই নিজেকে সব সময় সাজিয়ে গুছিয়ে রাখা। কারণ যখন আমরা বাড়িতেও নিজেকে পরিপাটি করে রাখবো তখন আমাদের মনও সতেজ থাকবে।

মন ভালো থাকলেই ভালো থাকবে শরীর। শরীর এর পাশাপাশি আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ মনকে আগে ভালো রাখা। কারণ আমাদের মন ভালো থাকলেই শরীর ভালো থাকে। যেকোনো কাজে আমরা দারুণ উৎসাহ পাই যখন আমাদের মন ভালো থাকে। তাই যেই কাজটা আমরা ইচ্ছের বিরুদ্ধে না করে মনোযোগ দিয়ে করি, তা আর পাঁচটা কাজের থেকে ভালোভাবে শেষ হয়।

 

তবে বলতেই পারেন যে, এই করোনাকালীন সময়ে নিজেকে ঘরবন্দি রেখে মন কিভাবে ভালো রাখবো? হ্যাঁ, আমি বলবো এই সময়ে নিজেকে ঘরবন্দি করেও নিজের মন ভালো রাখা যায়। আর তার জন্যে চাই নিজেকে সব সময় সাজিয়ে গুছিয়ে রাখা। কারণ যখন আমরা বাড়িতেও নিজেকে পরিপাটি করে রাখবো তখন আমাদের মনও সতেজ থাকবে।

 

এখন যদি একটু লক্ষ্য করি তাহলে দেখা যাবে, বাংলাদেশে এখন অনেক বিউটি ব্লগার কাজ করছেন এবং তারা তাদের ভিডিও টিউটোরিয়াল এর মধ্যে সাজসজ্জাকে এক অন্যরকম ধারায় নিয়ে আসার চেষ্টা করছেন। আগে যেমন কোন বিয়ে বা কারো জন্মদিন কোন অথবা যেকোনো অনুষ্ঠানের কথা শোনা মাত্র মাথায় আসতো কোন পার্লারে সাজবো! কিন্তু এখন আর পার্লার থেকে সাজার ঝামেলা নেই। কারণ বিউটি ব্লগারদের ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখেই সাজের কাজটা কোন ঝামেলা ছাড়া বাড়িতেই সেরে ফেলা যায়। আর সাজতে তো আমরা কম বেশি সবাই পারি। কিন্তু নিজেকে আরো পরিপাটিভাবে অন্যদের থেকে একটু আলাদা ভাবে উপস্থাপন করতে কি সবাই পারি?

 

ঘরে বসেই সাজে কাজ

 

কথাটা ঠিক বোধগম্য হলো না তো? ঘরে বসেই সাজে কাজ মানেটা কি আসলে?

 

মানেটা খুবই সোজা। যেহেতু সাজটাও একটা কাজ, আর আপনি যখন সাজতে ভালোবাসেন এবং তা খুব মনোযোগ দিয়েই করছেন, তাহলে আর দেরি কেনো এবার ঘরে বসেই শুরু করে দিন আপনার সাজের মাঝে কাজ। আমরা সবাই সাজতে পারি, কিন্তু যে অন্যদের থেকে নিজেদের একটু আলাদাভাবে যে উপস্থাপন করতে পারে, তাকেই সবাই অনুকরণ করে।
যদি আপনি এই ঘরবন্দি সময়কে নষ্ট না করে কাজে লাগাতে চান, তাহলে পছন্দের কাজটা দিয়েই না হয় শুরু করে দিন, নিজের পায়ে পথ চলা, আর প্রথম বেতন পাওয়ার আনন্দটাও খুব তাড়াতাড়ি উপভোগ করুন।

 

তাহলে সাজসজ্জা কি শুধুই রূপসজ্জা ?

 

না একদমই না,সাজসজ্জার অনেকগুলো ধরন আছে যার মধ্যে রূপসজ্জাটাই সব থেকে বেশি দেখা যায়। তবে চলুন সাজসজ্জার ধরনগুলো একটু দেখে নেই,

 

  • আপনি যেমন নিজেকে খুব পরিপাটি রাখতে পারেন আপনার রূপসজ্জা দিয়ে, ঠিক তেমনি আপনার ঘর টাকেও সাজিয়ে রাখুন।
  • ছোট বেলায় কত পড়েছি আমার আপনার শখ বাগান করা। আর তা নিজের মতন করে সাজানোর সেই ছোট্ট বেলার শখটা যখন এতদিন সময়ের অভাবে করতে পারছিলেন না, তা এখন সাজিয়ে ফেলতে পারেন আপনার মনের মতন করে।
  • আপনার খুব পছন্দের বইয়ের আলমারিটা এক কোণে জীর্ণশীর্ণ হয়ে পরে আছে। কিন্তু এতদিন সময়ের অভাবে বইয়ের আলমারিতে হাত দেওয়া হয়নি তো এখন সময় আপনার পছন্দের বই দিয়ে সাজিয়ে তুলুন আপনার আলমারিটি।
  • অনেক দিন ধরে আপনার পছন্দের বারান্দাটায় কিছু ময়লার স্তূপ জমে আছে। এর কারণে আপনার ইচ্ছে মতোন সাজাতে পারেন নি। আপনি চাইলে এখন আপনার বারান্দাটাকে সাজাতে পারেন একটু অন্য ধাঁচে। কারণ মন ভালো হওয়ার আর একটা উপায় হচ্ছে, খোলা বারান্দায় বসে কিছুক্ষণ পছন্দের মানুষটির সাথে আড্ডা দেওয়া। তাতে আপনার আর একঘেয়েমি লাগবে না।
  • অনেকেই পছন্দ করেন ছবি আঁকতে, এবং নিজের ঘড়ের দেওয়ালটা নিজের আকা ছবি দিয়ে সাজাতে। কিন্তু সময় কোথায়? তাই এইতো সময় এখন আপনি রাঙিয়ে দিন আপনার মনের মতন করে আপনার ঘরের দেওয়াল।

 

এর সবই ছিলো সাজসজ্জা, আপনার পছন্দের কাজ গুলো দিয়ে আপনি আপনার মনকে  সাজাতে পারবেন, আর আপনার মন আপনার পছন্দের সাজসজ্জার মাধ্যমেই ভালো থাকবে। আমরা যে কেউ সাজসজ্জা দিয়ে মনকে ভালো রাখতে পারি,ছেলে, মেয়ে উভয় আমাদের ইচ্ছে গুলোকে সাজাতে পারি সাজসজ্জায়।