পিরিয়ড চলাকালে স্ত্রীর প্রতি সহানুভূতিশীল হোন

পিরিয়ড চলাকালে স্ত্রীর প্রতি সহানুভূতিশীল হোন
ছবি: সংগৃহীত
প্রয়োজনীয় জিনিস আগে থেকেই খোঁজ নিয়ে বাসায় এনে রাখুন। পিরিয়ডের সময় মেয়েদের স্যানিটারি ন্যাপকিন বা অন্যান্য জিনিসের দরকার হয়। স্বামী হিসেবে সেসব আগে থেকে এনে রাখলে আপনার দায়িত্ববোধ যেমন প্রকাশ পায় তেমনি স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসাও প্রকাশ পায়।

খুব স্বাভাবিক ভাবেই  প্রতিমাসে নারীদের ঋতুচক্রের মধ্য দিয়ে যেতে হয়। আর এই সময় মানসিক অবস্থারও অনেক পরিবর্তন ঘটে। মেজাজ খানিক খিটখিটে হয়ে থাকে। কাজকর্ম সবকিছুতে একরকম অনীহা কাজ করে। সেই সাথে শারীরিক ভোগান্তি তো থাকছেই। আর এই সময় স্বামীদের উচিত স্ত্রীর পাশে থাকে। আগের থেকে বেশি সংবেদনশীল হওয়া। এসময় স্ত্রীর পাশে থাকতে স্বামীরা যা করতে পারেন :-


প্রয়োজনীয় জিনিস আগে থেকেই খোঁজ নিয়ে বাসায় এনে রাখুন। পিরিয়ডের সময় মেয়েদের স্যানিটারি ন্যাপকিন বা অন্যান্য জিনিসের দরকার হয়। স্বামী হিসেবে সেসব আগে থেকে এনে রাখলে আপনার দায়িত্ববোধ যেমন প্রকাশ পায় তেমনি স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসাও প্রকাশ পায়।

 

মানসিক পরিস্থিতি বোঝার চেষ্টা করুন। এই সময় তাদের মনের উপর একপ্রকার চাপ থাকে। তাই আচরণে পরিবর্তন আসে। স্বামী হিসেবে এই বিষয়টি আপনাকে বুঝতে হবে। মেজাজ খারাপ থাকলেও সেটাকে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করুন। 


স্ত্রীকে বাড়ীর কাজে সাহায্য করুন। কারণ এই সময়ে নারীদের শরীরও কিছুটা খারাপ থাকে। সেই সাথে মানসিক অস্বস্তি তো আছেই।  তাই আপনার স্ত্রীকে মাসিক চলাকালে ঘরের কাজে সহযোগিতা করুন। 

 

সঠিক সময়ে খেয়েছে কিনা, কোনো অসুবিধা হচ্ছে কিনা, কোনো কিছু লাগবে কিনা, এসব খোঁজ রাখুন। বাসায় না থাকলে প্রয়োজনে কল করে খোঁজ নিন । স্ত্রীর কথা শুনুন। এই সময়ে অনেকেই আছে একটু কথা বলতে চায় মন খুলে। স্বামী হিসেবে তখন তার কথা শুনুন এবং তাকে আশ্বস্ত করুন যে আপনি সবসময় তার পাশে আছেন। 

 

তার সাথে ইতিবাচক আলোচনা করুন। যেকোনো বিষয়ে ইতিবাচক কথা বলুন। তার কোনো কিছু নিয়ে সমালোচনা করা থেকে বিরত থাকুন।  ঝগড়া হলেও সেখানে আপনার অবস্থান নিষ্ক্রিয় রাখুন।