আখের রসের নানা গুণাগুণ 

আখের রসের নানা গুণাগুণ 
আখের রসের নানা গুণাগুণ 
আখ আঁশজাতীয় খাবার। আর আঁশজাতীয় খাবার হজমে সহায়তা করে। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যের মত কঠিন রোগও শরীরে বাসা বাঁধতে পারে না। আখের রস মানবদেহে পানির ঘাটতি পূরণ করে এবং পানিশূন্যতা রোধ করে। 

তীব্র গরমে অনেকেই আখের রস পান করতে পছন্দ করেন। এর উপকারিতাও অনেক। রোগ প্রতিরোধেও কার্যকারী ভূমিকা পালন করে।আমাদের দেশে আখ সহজলভ্য। তাই চাইলেই আমরা নিয়মিত খাদ্য তালিকায় আখের রস রাখতে পারি।

 


আখে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, জিঙ্ক ও পটাশিয়াম। এই উপাদানগুলো আমাদের শরীরের নানা উপকারে আসে। ফলে বিভিন্ন ধরনের রোগের থেকে সহজেই মিলে মুক্তি।  

 


আখ আঁশজাতীয় খাবার। আর আঁশজাতীয় খাবার হজমে সহায়তা করে। ফলে কোষ্ঠকাঠিন্যের মত কঠিন রোগও শরীরে বাসা বাঁধতে পারে না। আখের রস মানবদেহে পানির ঘাটতি পূরণ করে এবং পানিশূন্যতা রোধ করে। 

 


আখে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। যা ওজন কমাতে সহায়ক। পাশাপাশি কোলেস্টেরলের পরিমাণও কমিয়ে দেয়। এছাড়াও এটি ডায়াবেটিসের জন্যও খুব কার্যকর। আখে জিআই-এর পরিমাণ খুব কম থাকে।ফলে ডায়াবেটিস রোগীরা নিয়মিত আখের রস পান করলে উপকার পাবেন ।

 


আখের রসে আলফা হাইড্রক্সি অ্যাসিড থাকে। যা ত্বকের জন্য ভীষণ উপকারি। নিয়মিত আখের রস পান করলে ত্বকের ব্রণ ও বলিরেখা দূর হয় এবং ত্বক হয় সুন্দর এবং আরো উজ্জ্বল। 

 


আখের রস গর্ভবতী মায়েদের জন্যও বেশ  উপকারি৷ কারণ এতে থাকা ফলিক অ্যাসিড গর্ভবতী মায়ের শরীরে প্রবেশ করার পর গর্ভধারণ সংক্রান্ত নানা সমস্যা থেকে রক্ষা করে। সেই সঙ্গে গর্ভের বাচ্চারও শারীরিকভাবে উন্নতি ঘটায়।

 


আখের রস আমাদের শরীরে এনার্জির অভাব পূরণ করে। শরীরকে করে কার্যক্ষম। সহজেই ক্লান্তি আসতে দেয় না৷ তাই নিয়মিত আখের রস পানে শরীর ও মন দুটোই থাকবে চনমনে৷