জল খাবারে অনীহা নয় 

জল খাবারে অনীহা নয় 
ছবি: সংগৃহীত
গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব পুরুষ সকালে নাস্তা এড়িয়ে যান তাদের মধ্যে ২৭ শতাংশের বেশি হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।  

সকালে ঘুম থেকে উঠে খুব তাড়া। একটু পরেই বরং সেরে নেয়া যাবে সকালের নাস্তা এখন বরং কাজটা শেষ করা যাক । কেউ ঘরেই কাজে ব্যস্ত, কেউ বা ছুটছেন বাইরে।  এই ভেবে সকালের নাস্তা সময়মত করা হয় না প্রায়শই। অনেকে আবার মনে মনে খুশি হয়ে যান, সকালে না খেয়ে থেকে বোধ হয় ওজনটা এবার কমেই গেলো।  এমনটা যদি ভেবে থাকেন তাহলে বলবো,  ভুলের সাগরে ভাসছেন আপনি। এবার আর না ভেসে সাগরের পাশে এসে দাঁড়িয়ে একটু জেনে নিন, সকালের নাস্তা এড়িয়ে আপনি কি কি শারীরিক সমস্যা ডেকে আনছেন- 


সকালে না খাওয়াতে আপনার ওজন তো কমবেই না বরং উল্টে বেড়ে যেতে পারে। কারণ সকালের নাস্তা এড়ালে ক্ষুধা বাড়বে। তখন সামনে যা পাবেন তাই খেতে ইচ্ছে করবে। যারা সকালের নাস্তা করেন না, স্বাভাবিকভাবেই তারা দুপুরে অতিরিক্ত খেয়ে ফেলেন৷ 


দীর্ঘদিন সকালের নাস্তা বাদ দিলে হৃদপিণ্ডের ক্ষতিও হতে পারে।  গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব পুরুষ সকালে নাস্তা এড়িয়ে যান তাদের মধ্যে ২৭ শতাংশের বেশি হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

 
সকালের দিকে শরীরের বিপাকক্রিয়ার হার বেশি থাকে৷ ফলে যা খাওয়া হয় তা হজম হয়ে যায়৷ ক্যালরিও পোড়ে তাড়াতাড়ি। কারণ সারারাত ঘুমোনোর পর দীর্ঘসময় বাদে শরীর খাবার পায়। তাই বিপাকক্রিয়াও দ্রুত হয়। 


বেশিরভাগ মানুষই আমরা বর্তমানে চুলের সমস্যায় ভুগি। আর এর জন্য অনেকাংশেই সকালের নাস্তার ক্ষেত্রে অনিয়মও দায়ী। সকালের নাস্তা এড়ালে শরীরে প্রোটিনের মাত্রা ভয়ঙ্কর ভাবে কমে যায়,  যা কেরাটিনের মাত্রায় প্রভাব ফেলে। কেরাটিন কমে গেলে চুলের বৃদ্ধি কমে যায় এবং চুল পড়তে শুরু করে।


নিয়মিত সকালের নাস্তা করলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে৷ গবেষণায় দেখা গেছে, যাদের সকালের নাস্তা করার অভ্যাস নেই তাদের মধ্যে টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেশি।