গর্ভাবস্থায় আমলকী খাওয়ার প্রয়োজনীয়তা

গর্ভাবস্থায় আমলকী খাওয়ার প্রয়োজনীয়তা
ছবি: সংগৃহীত
আমলকীর জুস গর্ভস্থ শিশুর স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। তাই গর্ভাবস্থায় হবু মাকে আমলকী খেতে বলা হয়।

আমলকী স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী একটি উপাদান। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে  ভিটামিন সি, ফাইবার ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। গর্ভাবস্থায় অন্তঃসত্ত্বা মায়েদের শরীরে একাধিক পরিবর্তন হয়, যার কারণে খাওয়ার রুচি চলে যায়। এছাড়াও আরো নানান সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় গর্ভবতী মাদের। যেমন- পা ফলা, ঘন ঘন মুড স্যুইং, মুখে অরুচি, খাবার খেতে ইচ্ছা না করা ইত্যাদি। এই সময় আবার বেশি ওষুধ খাওয়ায় ঠিক নয়। তবে এক্ষেত্রে আমলকী তাদের জন্য সহায়ক হতে পারে। 

গর্ভাবস্থায় আমলকী খাওয়া নিরাপদ ও উপকারী। গর্ভাবস্থায় আমলকী খাওয়ার মধ্যে মা এবং সন্তান উভয়ের জন্যই এক ব্যাপক বিস্তৃত পরিসরের উপকারিতাগুলি উপস্থিত থাকে। দেখে নিন গর্ভাবস্থায় আমলকী খেরে যে উপকারগুলি হয়:

 


রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: আমলকীতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এর উপাদান গর্ভাবস্থায় হয়ে থাকা সাধারণ জ্বর ও মূত্রনালির সংক্রমণ রোধ করে।

 

শরীরের অস্বস্তি দূর করে: বেশিরভাগ হবু মা এ সময় ক্লান্তি অনুভব করেন, অলসতা অনুভব হয়, বমি বমি ভাব আসে, কোনও কাজ করতে ইচ্ছে করে না এবং মেজাজও ভালো থাকে না। এ সময় আমলকীর রস বেশ ফলদায়ক।

 

হজম শক্তি বাড়ায়: আমলকী বদহজম এবং অ্যাসিড হওয়ার মত সমস্যাগুলিকে লাঘব করে কারণ এটি পাকস্থলীর মধ্যে পাচক রসকে উদ্দীপ্ত করে এবং খাদ্য হজমে সহায়তা করে।

 

হাত-পা ফুলতে দেয়না: অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় অনেকের হাত-পায়ে পানি আসে। আমলকী গর্ভাবস্থায় হাত–পায়ের পাতা ফুলে যাওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। আমলকীতে থাকে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান। এ ছাড়া আমলকীতে প্রচুর পরিমাণে জলীয় উপাদান থাকায় এটি দেহকে হাইড্ৰেট রাখতে সাহায্য করে।

 

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে: রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে আমলকী। আমলকীতে থাকা ভিটামিন সি রক্তনালীগুলোকে প্রসারিত করতে সাহায্য করে, যা স্বাভাবিক রক্তচাপ ধরে রাখে এবং রক্তচাপ বাড়তে দেয় না।

 

দেহের বিষাক্ত পদার্থ দূর করে: আমলকী হল একটি চমৎকার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং এর মধ্যস্থ উচ্চ জলীয় উপাদান প্রস্রাব ত্যাগের পুনরাবৃত্তির হারকে বাড়িয়ে তোলে।এইভাবে এটি দেহ থেকে বিষাক্ত পদার্থগুলি এবং মূলকগুলি অপসারণ করতে সাহায্য করে।

 

গর্ভকালীন ডায়াবেটিস রোধ করে: ডায়াবেটিস না থাকলেও গর্ভাবস্থায় অনেকের ডায়াবেটিস দেখা দেয়। যেটিকে গর্ভকালীন ডায়াবেটিস বলে। গর্ভাবস্থার হরমোনগুলো ইনসুলিনের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে ডায়াবেটিস হয়। আমলকীর মধ্যে থাকা অ্যান্টি-ডায়াবেটিক উপাদান মায়েদের মধ্যে গর্ভকালীন ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনা কমায়। 

 

হবু শিশুর স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করে: আমলকীর জুস গর্ভস্থ শিশুর স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। তাই গর্ভাবস্থায় হবু মাকে আমলকী খেতে বলা হয়।