পিরিয়ড চলাকালে শরীরচর্চা

পিরিয়ড চলাকালে শরীরচর্চা
পিরিয়ড চলাকালে শরীরচর্চা
এসময় বেশ কিছু বিরক্তিকর উপসর্গ দেখা দেয়, শরীরচর্চার মাধ্যমে এসময়ে কিছুটা স্বস্তি পাওয়া যায়। এসময় শরীরে কিছুটা পানি জমে যায়। মানে শরীর একটু ফুলে যায়।  তাই শরীরচর্চা করলে শরীরের এই পানি জমা বা ফোলা ভাব কমে যায়। যন্ত্রণা ও অস্বস্তি থেকে মনকে দূরে রাখতে সাহায্য করে। 

অনেকেই শারীরিক ও মানসিক ভাবে ফিট থাকতে নিয়মিত শরীরচর্চা করেন। কিন্তু মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রতিমাসে একটা নির্দিষ্ট সময় পিরিয়ড থাকে।  আর এখানেই প্রশ্ন থেকে যায় এই সময়ে শরীরচর্চা করা যাবে কিনা? বিশেষজ্ঞদের মতে এসময়ে শরীরচর্চা বন্ধ রাখার কোন প্রয়োজন নেই। যতটুকু পারা যায় ততটুকু শরীরচর্চা করতে পারেন। 

 

পিরিয়ড চলাকালে শরীরের তাপমাত্রা কম থাকে। এসময় শরীর বেশি তাপ ও আর্দ্র পরিবেশ সহ্য করতে পারে এবং কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র সহজে অবসাদগ্রস্ত হয় না। এমনকি পিরিয়ডের সময় শরীরে ‘ইস্ট্রোজেন’ ও ‘প্রোজেস্টেরন’ হরমোনের মাত্রা কমে যায়। এতে শরীর আরও বেশি কর্মক্ষম হয়ে ওঠে। তাই এসময়ে শরীরচর্চা করা অনেকটা সহজ হয়। আর এই পিরিয়ড চলাকালে শরীরচর্চা করলে বেশ কিছু উপকার পাওয়া যায়। যেমন:

 

এসময় বেশ কিছু বিরক্তিকর উপসর্গ দেখা দেয়, শরীরচর্চার মাধ্যমে এসময়ে কিছুটা স্বস্তি পাওয়া যায়। এসময় শরীরে কিছুটা পানি জমে যায়। মানে শরীর একটু ফুলে যায়।  তাই শরীরচর্চা করলে শরীরের এই পানি জমা বা ফোলা ভাব কমে যায়। যন্ত্রণা ও অস্বস্তি থেকে মনকে দূরে রাখতে সাহায্য করে। 

 

এসময়ে ডিজমেনোরিয়া অর্থাৎ যে ব্যথা হয় সেটা কমাতে শরীরচর্চা কাজ করে। 

 

তবে একেবারে না পারলে জোর করে শরীরচর্চা না করাই ভালো। প্রয়োজনে হালকা হাঁটাহাঁটি ও স্ট্রেচিং করতে পারেন৷ কিছু ‘স্ট্রেচিং’ রক্ত সঞ্চালন বাড়ানোর মাধ্যমে প্রদাহের আশঙ্কা কমায়। আর একেবারে সম্ভব না হলে রেস্টেই থাকুন।