কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হবে বাংলাদেশের ছবি 'নোনাজলের কাব্য'

কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হবে বাংলাদেশের ছবি 'নোনাজলের কাব্য'
ছবি: সংগৃহীত
এবছর কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দিচ্ছে দেশ-বিদেশের ৮১টি পূর্ণদৈর্ঘ্য ও ৫০টি স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবি। সেই তালিকায় নাম লিখিয়ে নিয়েছে বাংলাদেশের ছবি ‘নোনাজলের কাব্য’। গতবারের উৎসবে বাংলাদেশ থেকে এ তালিকায় নাম লিখিয়েছিল দুই ছবি ‘আলফা’ ও ‘চন্দ্রাবতী কথা’। 

৮ জানুয়ারি শুরু হতে যাচ্ছে কলকাতার ঐতিহ্যবাহী আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। ৮ জানুয়ারি শুরু হয়ে এ উৎসব চলবে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত। করোনা মহামারীর কারণে এবছর এ উৎসবের পরিসর কমিয়ে আনা হয়েছে।
 

এবছর কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দিচ্ছে দেশ-বিদেশের ৮১টি পূর্ণদৈর্ঘ্য ও ৫০টি স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবি। সেই তালিকায় নাম লিখিয়ে নিয়েছে বাংলাদেশের ছবি ‘নোনাজলের কাব্য’। গতবারের উৎসবে বাংলাদেশ থেকে এ তালিকায় নাম লিখিয়েছিল দুই ছবি ‘আলফা’ ও ‘চন্দ্রাবতী কথা’। 


উৎসবের ছবিগুলো দেখানো হবে কলকাতার আটটি সরকারি প্রেক্ষাগৃহে। উৎসবের উদ্বোধনী প্রদর্শনীতে থাকবে সত্যজিৎ রায় পরিচালিত ও সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় অভিনীত ‘অপুর সংসার’ ছবিটি। এছাড়াও সদ্য প্রয়াত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে উৎসবে থাকবে বিশেষ বিশেষ প্রদর্শনী। 


গত বছর ছিল ইতালির প্রখ্যাত পরিচালক ফেডরিকো ফেলিনি এবং ফরাসি চলচ্চিত্র নির্মাতা এরিক রোমারের জন্মশতবার্ষিকী। এ দুই শিল্পীকে শ্রদ্ধা জানানো হবে এবং পাশাপাশি তাঁদের পরিচালিত ছবিও দেখানো হবে।  আরও তিন প্রখ্যাত শিল্পী পণ্ডিত রবিশঙ্কর, অভিনেতা ভানু বন্দ্যোপাধ্যায় ও সংগীতশিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের জন্ম-শতবর্ষ ছিল গত বছর। সে উপলক্ষে এ উৎসবে তাদেরকেও  শ্রদ্ধা জানানো হবে।

 


এছাড়াও গতবছর প্রয়াত হয়েছেন এমন তারকাদেরও উৎসবে বিশেষ শ্রদ্ধা জানানো হবে।যেমন প্রয়াত চলচ্চিত্র তারকা বাসু চট্টোপাধ্যায়, ঋষি কাপুর, ইরফান খান, তাপস পাল, অমলা শঙ্কর ও সন্তু মুখোপাধ্যায়, ফার্নান্দো সোলানাস ও কিম কি দুককেও শ্রদ্ধা জানানো হবে।  


 পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের সচিবালয় নবান্নের সভাকক্ষ থেকে ভার্চুয়ালি এ উৎসবের উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উৎসবে যোগ দেওয়া যাবে বিনা মূল্যে। কিন্তু কড়াকড়িভাবে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। তবেই প্রকাশ করা যাবে প্রেক্ষাগৃহে। একটি প্রদর্শনীর পর প্রেক্ষাগৃহ স্যানিটাইজ করে পরবর্তী প্রদর্শনী শুরু করা হবে।


উল্লেখ্য, প্রতিবছর নভেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়। করোনার কারণে গত বছরের নভেম্বর মাসের এ উৎসব পিছিয়ে আনা হলো এ বছরের জানুয়ারিতে।