হ্যালো 'লেডিস এন্ড জেন্টেলম্যান'

হ্যালো 'লেডিস এন্ড জেন্টেলম্যান'
হ্যালো 'লেডিস এন্ড জেন্টেলম্যান'
আট পর্বের এই ওয়েভ সিরিজটি মূলত এই সমাজের নারী পুরুষের সম্পর্কের শ্রেনিবিন্যাস, শোষণ ও স্বাভাবিক জীবনের জটিলতার চিত্র তুলে ধরেছে। 

ধরুন প্রতিদিনের মত আজও সকালে অফিস গেলেন, অফিস শেষে বাড়ী ফিরবেন। কিন্তু ফেরার সময়  সাথে করে একটা অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় অপমান নিয়ে ফিরবেন এটা ভেবেছেন কখনো। অফিসের বসের দ্বারা যৌন হয়রানির স্বীকার হয়ে বিচার চাইতে গেলে উল্টা আপনাকেই চাকরিচ্যুত করে দিলো কিংবা চুরির দায়ে ফাঁসিয়ে দিলো। 

 

এমন ঘটনার ভিকটিম আপনার প্রিয়জন, প্রেমিকা কিংবা স্ত্রী। ইচ্ছে করবে না একছুটে গিয়ে শেষ করে দিই জানোয়ারটাকে? 

 

এমন ঘটনাতো অহরহ আমাদের চারপাশে ঘটেই। এমনই এক গল্পের চিত্রায়ণে মোস্তফা সরয়ার ফারুকী নির্মাণ করেন ওয়েভ সিরিজ 'লেডিস এন্ড জেন্টেলম্যান'। 

 

সিরিজের ট্রেলার প্রকাশের পরই দর্শক মহলে সাড়া ফেলে দেয়। পরিচালক হিসেবে ফারুকীর জনপ্রিয়তা আলাদা করে বলার অপেক্ষা রাখেনা। ফারুকী মানেই দারুণ কিছু দর্শকদের তো তা জানা। তাইতো ট্রেলার প্রকাশের পর ওয়েভ সিরিজটির জন্য দর্শকদের অপেক্ষা বাড়তে থাকে। অবশেষে গত ০৯ জুলাই ওয়েভ সিরিজটি মুক্তি দেওয়া হয়। 

 

 

সিরিজটিতে অনবদ্য অভিনয় দিয়ে সকলে মন জয় করে নেয় এই সময়ের তারকা তাসনিয়া ফারিন। এছাড়াও এক অদ্ভুত চরিত্রে একঝলক দেখা যায় চঞ্চল চৌধুরীকে। আফজাল হোসাইন, পার্থ বড়ুয়া, ইরেশ জাকের, মারিয়া নূর, সাবেরী আলম, মামুনুর রশীদ, পাবেল অরিন, তানভীর হোসাইন, হাসান মাসুদসহ একঝাঁক তারকা। 

 

 

আট পর্বের এই ওয়েভ সিরিজটি মূলত এই সমাজের নারী পুরুষের সম্পর্কের শ্রেনিবিন্যাস, শোষণ ও স্বাভাবিক জীবনের জটিলতার চিত্র তুলে ধরেছে। 

 

 

একজন সাধারণ কর্মজীবী নারী সাবিলা অফিসের চেয়ারম্যান  খায়রুল সাহেবের দ্বারা যৌন হয়রানির স্বীকার হলে অভিযোগ জানায়। কিন্তু এই বিচারে তার অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট বলে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়। আর তখন সাবিলা সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে গণমাধ্যমকে জানালে বিষয়টি নিয়ে সবার জল্পনা কল্পনা  শুরু হয়ে যায়। এরমধ্যেই একদিন খায়রুল সাহেবকে নিজের কেবিনে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।  

 

 

ঘটনা মোড় নেয় অন্যদিকে। সন্দেহের তালিকায় সবার আগে নাম থাকে সাবিলার। তাহলে এই খুন কে করে? সত্যিই সাবিলা খুন করে নাকি বিরোধী দলের কোন ষড়যন্ত্র, নাকি অন্য কেউ?