প্রথম বারেই 'স্ট্যান্ডিং ওভেশন' পেল বাংলাদেশ

প্রথম বারেই 'স্ট্যান্ডিং ওভেশন' পেল বাংলাদেশ
প্রথম বারেই 'স্ট্যান্ডিং ওভেশন' পেল বাংলাদেশ
কানের পালে দো ফেস্টিভ্যাল ভবন থেকে বাঁধন  জানান, তারা লাল গালিচায় ফটোশুটে অংশ নিয়েছেন। এত সম্মান এত ভালোবাসা পাওয়ার পর পৃথিবীতে আর কিছু পাওয়ার থাকেনা। 

কান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব চলচ্চিত্রের সবথেকে মর্যাদাপূর্ণ আসর। ইতোমধ্যেই এই উৎসবে বাংলাদেশের সিনেমা 'রেহানা মরিয়ম নূর' এর অফিসিয়াল সিলেকশন সম্পর্কে আমরা জেনেছি৷ গতকাল ০৭ জুলাই বিকাল সোয়া তিনটায় সিনেমাটির প্রিমিয়ার শুরু হয়। 

 

 

বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসে এই সিনেমা এবং সিনেমার বয়ে সম্মান এক অন্য মাত্রা যোগ করে দিয়েছে। আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের পরিচালনায় সিনেমাটিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন আজমেরী হক বাঁধন।  

 

বাংলাদেশ থেকে সিনেমার আট জনের একটি টিম সিনেমার প্রিমিয়ারের অংশ নেয়। দর্শক সারিতে বসেই সিনেমাটি উপভোগ করেন সবাই। এ সময় স্ট্যান্ডিং ওভেশন পেয়ে আবেগে কেঁদে ফেলেন বাঁধন।  পরবর্তীতে নিজের ফেইসবুক পেইজ থেকে লাইভে এসে ভক্তদের সাথে নিজের অনুভূতি শেয়ার করেন। তিনি বলেন, " এত সম্মান পাওয়ার যোগ্য আমি না, এ কৃতিত্ব হচ্ছে আমার পরিচালকের আর আমার টিমের। এটি আসলে আমাদের একার কারো না। এটি সবার জন্য ছিল। সবার কষ্টের ফল আজকে এখানে এসে পৌঁছেছে।" 

 

 

নিজেকে আজকের এই সম্মানের জায়গায় দেখতে পাওয়ার জন্য সব কৃতিত্বই তুলে দেন মেয়ে সায়রার নামে। তিনি বলেন, " যে মানুষটার জন্য আজকে আমি এতকিছু করতে পারছি সে মানুষটা তুমি মা।" আজকে এত এত মানুষের ভালোবাসার ভিড়ে সবথেকে বেশি সায়রার কথাই মনে পড়ছে বলেও জানান বাঁধন। 

 

 

কানের পালে দো ফেস্টিভ্যাল ভবন থেকে বাঁধন  জানান, তারা লাল গালিচায় ফটোশুটে অংশ নিয়েছেন। এত সম্মান এত ভালোবাসা পাওয়ার পর পৃথিবীতে আর কিছু পাওয়ার থাকেনা, এমনটাই অভিমত বাঁধনের। 

 

সকলের কাছে দোয়া চেয়ে তিনি জানান, আগামী ১৬ জুলাই পুরস্কার বিতরণের পর্ব সেরে দেশে ফিরবেন পুরো টিম।