ইসরায়েলের আক্রমণে ফিলিস্তিনি অভিনেত্রী আহত! 

ইসরায়েলের আক্রমণে ফিলিস্তিনি অভিনেত্রী আহত! 
ইসরায়েলের আক্রমণে ফিলিস্তিনি অভিনেত্রী আহত! 
তার পোস্ট থেকে জানা যায়, তিনি  ফুটপাতে একটি নিরাপদ জায়গায় একা  দাঁড়িয়েছিলেন এবং তিনি কারো জন্য হুমকির কারণ ছিলেন না। যখন তিনি তার গাড়ির দিকে যেতে থাকে তখন একটা  আওয়াজ শুনতে পান এবং তিনি বুঝতে পারেন তার পা থেকে প্রচুর পরিমাণে রক্ত বের হচ্ছে,  ত্বক ফেটে গেছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি হাঁটার চেষ্টা করেছি কিন্তু পারিনি। আমি বুঝতে পারলাম, আমার পা থেকে প্রচুর পরিমাণে রক্ত বের হচ্ছে এবং আমার ত্বক ফেটে গেছে।’

ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যকার সাম্প্রতিক সংঘাত দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে।  সেই সঙ্গে বাড়ছে সংঘাতে নিহত ও আহতদের সংখ্যাও। এবার ফিলিস্তিনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাইশা আবদ এলহাদি সম্প্রতি শিকার হয়েছেন এ সংঘাতের।  ইসরায়েলের হাইফা নগরীতে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর গুলিতে আহত হয়েছেন তিনি। 


নিজের ইনস্টাগ্রাম আইডিতে একটি দীর্ঘ পোস্টের মাধ্যমে আহত হওয়ার এ খবর জানান অভিনেত্রী নিজেই। বৃহস্পতিবার একটি দীর্ঘ পোস্টে হামলার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘রোববার আমি হাইফায় শান্তিপূর্ণ এক প্রতিবাদে অংশ নিয়েছিলাম। সেখানে আমরা স্লোগান দিচ্ছিলাম, গান করছিলাম, ক্ষোভ প্রকাশ করছিলাম। ব্যক্তিগতভাবে আমি বিক্ষোভে স্লোগান দিচ্ছিলাম এবং ঘটনার ভিডিও করছিলাম। বিক্ষোভ শুরুর কিছুক্ষণ পর সৈন্যরা স্টেন ও গ্যাস গ্রেনেড চালানো শুরু করে এবং আমি অনুধাবন করলাম, কিছু সময়ের মধ্যে সেগুলোর মাত্রা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।’

 

তার পোস্ট থেকে জানা যায়, তিনি  ফুটপাতে একটি নিরাপদ জায়গায় একা  দাঁড়িয়েছিলেন এবং তিনি কারো জন্য হুমকির কারণ ছিলেন না। যখন তিনি তার গাড়ির দিকে যেতে থাকে তখন একটা  আওয়াজ শুনতে পান এবং তিনি বুঝতে পারেন তার পা থেকে প্রচুর পরিমাণে রক্ত বের হচ্ছে,  ত্বক ফেটে গেছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি হাঁটার চেষ্টা করেছি কিন্তু পারিনি। আমি বুঝতে পারলাম, আমার পা থেকে প্রচুর পরিমাণে রক্ত বের হচ্ছে এবং আমার ত্বক ফেটে গেছে।’

 

অ্যাঞ্জেল’ তারকাখ্যাত এই অভিনেত্রী ইসরায়েলের পুলিশ ও দখলদার বাহিনী যেকোনো ফিলিস্তিনিকে নির্বিশেষে আক্রমণ কিংবা হত্যা করতে দ্বিধা করছে না বলেও জানান।  তার ভাষ্যমতে, 'একজন ফিলিস্তিনি হিসেবে আমার কোনো সন্দেহ নেই যে, আমি প্রতিনিয়ত হুমকির মুখোমুখি হচ্ছি, তবে এবার তা আরও স্পষ্ট হয়ে গেছে। আমরা যুদ্ধের সম্মুখভাগে রয়েছি এবং একমাত্র ভাগ্যই আমাদেরকে মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করতে পারে।’

 

উল্লেখ্য, সম্প্রতি জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদ চত্বরে ইসরায়েলি পুলিশ বাহিনীর  সঙ্গে ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের টানা কয়েক দিনের সংঘর্ষ হয়। এর জের ধরে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল দুই পক্ষের মধ্যে সংঘাত শুরু হয়। এ সংঘাতের তীব্রতা দিনের পর দিন এতোই বেড়ে চলেছে তাতে করে যুদ্ধের আশংকা করছে জাতিসংঘ।