চাঁদপুরের শুভ যেন বাংলাদেশের নাম!

শুভ
এখন সে কাজ করবে পৃথিবীর বিখ্যাত দুই ক্যান্সার ইনস্টিটিউট, হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির ডানা ফারবার ক্যান্সার ইনস্টিটিউট এবং কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির হার্বার্ট আরভিন কম্প্রিহেন্সিভ ক্যান্সার সেন্টারে। গবেষণার মূল বিষয় হলো "টেন মিনিট ক্যান্সার টেস্ট" শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) এর রসায়ন বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষ করে বার্জার পেইন্টস এ চাকরীতে যোগদান করেন তিনি।

বিশ্বের যে কোন উঁচু দরবারে যখন বাংলাদেশের তরুণ-তরুণীদের সাফল্যগাঁথা চর্চিত হয়, তখন বাংলাদেশের মানচিত্র ঘাড় বাঁকিয়ে যেন একটা গর্বের হাসি হাসে। আর সেই হাসির রেশ আরেকটু প্রসারিত হলো বাংলাদেশের চাঁদপুরের বাবুরহাটের ছেলে আবু আলী ইবনে সিনার হাত ধরে। ডাক নাম শুভ। স্বপ্নের হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি থেকে ভিজিটিং সায়েন্টিস্ট হিসেবে যোগ দেয়ার আমন্ত্রন পেয়েছে এই তরুণ। এখন সে কাজ করবে পৃথিবীর বিখ্যাত দুই ক্যান্সার ইনস্টিটিউট, হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির ডানা ফারবার ক্যান্সার ইনস্টিটিউট এবং কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির হার্বার্ট আরভিন কম্প্রিহেন্সিভ ক্যান্সার সেন্টারে। গবেষণার মূল বিষয় হলো "টেন মিনিট ক্যান্সার টেস্ট" শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) এর রসায়ন বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষ করে বার্জার পেইন্টস এ চাকরীতে যোগদান করেন তিনি।

 

কিন্তু শিক্ষকতা এবং গবেষণার প্রতি ভালোবাসার কারণে তিনি কিছুদিন পর শাবিপ্রবির বায়োকেমিস্ট্রি এ বায়োলজি বিভাগের শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। সেখানে কিছুদিন শিক্ষকতা করে ২০১৩ সালে শিক্ষা ছুটি নিয়ে চলে যান অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করতে। পিএইচডি করার সময় থেকে তিনি ক্যান্সার গবেষণা শুরু করেন। বর্তমানে, একই বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল হেলথ এন্ড মেডিক্যাল রিসার্চ কাউন্সিল এর ইমার্জিং লিডার হিসেবে ক্যান্সার গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

 

ক্যান্সারের মতন একটি জটিল রোগের স্বল্পসময়ের শনাক্তকরণের যুগান্তকারী আবিষ্কারের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে আছে এই সম্ভাবনাময় তরুণটি। শুভর হাত ধরেই পৃথিবীর সব ক্যান্সার রোগীদের জীবনের শুভ বার্তা বয়ে আসুক, এই শুভ কামনা রইলো।