ফেসবুক ব্লু-ব্যাজ আসবে এমনিতেই!

ব্লু ব্যাচ
এটি ফেসবুক শুধু মাত্র সেলিব্রেটিদের'কে ফ্রিতে দিয়ে থাকে! এখানে টাকার কোন দরকার হয় না! কেউ যদি এমন কররে থাকে তাহলে সেটা সম্পুর্ন বে-আইনি কাজ! ফেসবুক যদি এটা বুঝতে পারে তাহলে সাথে ব্যাজ রিমুভ করে দেবে এবং আইডি পার্মানেন্টলি ডিজেবল করে দেবে! উপরোক্ত এই জিনিস গুলো না থাকে তাহলে জীবনেই আপনি এটি পাবেন না! সেজন্য সময় নষ্ট করাটা বোকামি!

একবার চিন্তা করুন'তো স্যোশাল নেটওয়ার্কে আপনার নামের পাশে নীল চিহ্ন আরো বুঝিয়ে বললে ব্লু-ব্যাজ। যেটা'কে আমরা ভেরিফাইড চিহ্ন বলে থাকি! সোস্যাল মিডিয়াতে এমন খুবই কম লোক আছে যারা চায় না যে তাদের একাউন্ট'টি ভেরিফাইড হোক! এটা কে না চায়? নামেই'তো একটা বিরাট ব্যাপার-স্যাপার। কিন্তু এখন প্রশ্ন হলো এটা কি সবাই পায়? বা পাওয়া যায়? এটার উত্তর এখনো 90% লোক জানে না! কিন্তু তাদের যাই হোক নামের পাশে চিহ্নটাই দরকার!

 

এখন কথা হলো ব্লু ব্যাজ কে পায়? কিভাবে পাওয়া যায়? ফ্রি'তে না টাকায়? ব্লু-ব্যাজ একমাত্র সেলিব্রেটিরাই পাবে! একজন মানুষ যখন পরিচিতি লাভ করে যাকে আমরা সেলিব্রেটি বলি সেটা হয়, তখন তাদের অসং্খ্য ফ্যান ফলোয়ার হয়! তখন তাদের নামে বিভিন্ন ফেক একাউন্ট কিংবা পেজ খুলা হয়! সেইসব থেকে সঠিক মানুষকে যাতে মানুষ ইজিলি বের করতে পারে সে চিন্তা থেকেই ফেসবুক এই ফিচার এনেছে! এটার অন্য কোন কাজ আমি দেখি না! (অভিজ্ঞতা থেকে বললাম! ব্লু-ব্যাজ পেতে হলে অবশ্যই আপনাকে ভেরিফিকেশনের কিছু নিয়ম আছে সেগুলো মানতে হবে! তার মধ্যে প্রথম দাপ হচ্ছে আপনি অথেনটিক ও ইউনিক হতে হবে! তারপর কমপ্লিট করতে হবে আপনাকে মানে আপনার সব সত্যিকারের পরিচিয় দিতে হবে! আপনি সত্যিকারের সেলি রেটি কিনা কিংবা ভালো পরিচিতি কিনা, ফেসবুকে আপনাকে কেউ খুজে নাকি? এইসব জিনিস থাকতেই হবে! ব্লু ব্যাজের জন্য আপনাকে ফেসবুককে দিতে হবে ইন্টারন্যাশনাল যে কোন ডকুমেন্ট ! তাতেই তারা সেটা খুজ করবে! ব্লু-ব্যাজ টাকা দিয়ে বেচাঁ-কেনা করা যায় না!

 

এটি ফেসবুক শুধু মাত্র সেলিব্রেটিদের'কে ফ্রিতে দিয়ে থাকে! এখানে টাকার কোন দরকার হয় না! কেউ যদি এমন কররে থাকে তাহলে সেটা সম্পুর্ন বে-আইনি কাজ! ফেসবুক যদি এটা বুঝতে পারে তাহলে সাথে ব্যাজ রিমুভ করে দেবে এবং আইডি পার্মানেন্টলি ডিজেবল করে দেবে! উপরোক্ত এই জিনিস গুলো না থাকে তাহলে জীবনেই আপনি এটি পাবেন না! সেজন্য সময় নষ্ট করাটা বোকামি!

 

লিখেছেন-

কাজী মাহমুদ হাসান,

অনলাইন এক্টিভিস্ট৷

লেখক - এ ডার্ক উইন্টার নাইট (২০২০)।