বুধবার,১৬ অগাস্ট ২০১৭
হোম / জীবনযাপন / কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি। করণীয় কি
০৩/০৬/২০১৭

কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি। করণীয় কি

-

আজকের সময়ে নারীরা পুরুষদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ঘরে ও বাইরে কাজ করছেন ঠিকই; কিন্তু পুরুষশাসিত এই সমাজে পদে পদে তাদের নানারকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। কর্মক্ষেত্রে নারীদের সবচেয়ে বড় সমস্যা যৌন হয়রানি। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় অফিসের বস নারী হলেও তিনি সরাসরি অন্য কর্মচারীদের পরিচালনা করেন না। পুরুষরাই নির্বাহীর দায়িত্বে থাকেন। যার ফলে নারীরা মুখ বুজেই সব কিছু সহ্য করে যান। এই একটি কারণেই নারীরা কর্মক্ষেত্র বদলাতে বাধ্য হন, অনেকে চাকরি করাই ছেড়ে দেন।

* যে-কোনো ধরনের হয়রানি, তা ছোট হোক কিংবা বড়, কর্তৃপক্ষের উচিত তার বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া। যদি আক্রান্ত নারী কোনো প্রকার নালিশ নাও করে থাকেন, তার মানে এই না যে, এতে তার সম্মতি আছে। এমন মনে করা মোটেও সঙ্গত হবে না; কারণ তিনি চাকরি খোয়ানোর ভয়েও চুপ করে থাকতে পারেন।

* অফিসে যৌন হয়রানি সংক্রান্ত ব্যাপারগুলো তদন্ত করার জন্য একটি কমিটি গঠন করা যেতে পারে। অফিসের যে সকল কর্মচারী এই কমিটির সদস্য হবেন, তাদের নাম অবশ্যই কনফিডেন্সিয়াল রাখতে হবে। এতে কেউ ক্ষমতার অপব্যবহার করতে পারবেন না।

* অফিস কর্তৃপক্ষের কারও প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট হওয়া চলবে না। কোনো কর্মচারী যদি যৌন হয়রানি সংক্রান্ত কোনো নালিশ আনেন, তবে তা ভালো করে পর্যবেক্ষণ করে দেখতে হবে। নালিশটি যার বিরুদ্ধেই আসুক না কেন, এড়িয়ে যাওয়া চলবে না।

* কোনো নারী কর্মচারী যদি অফিসের বাইরে অফিসের কাজ করতে গিয়ে যৌন হয়রানির শিকার হন, তাহলেও কর্তৃপক্ষের উচিত এর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া। এই বলে এড়িয়ে গেলে হবে না যে, ঘটনাগুলো অফিসের ভেতরে হয়নি। কারণ অফিসের ভেতরে না হলেও এগুলো অফিস সংক্রান্ত ব্যাপার।

* যে-কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে নারীদের উচিত চুপ করে না থেকে তার প্রতিবাদ করা। যার আচরণ আপনার কাছে অপ্রীতিকর ঠেকবে, তাকে সাবধান করে দিন, যেন তিনি অমন আচরণ আপনার সঙ্গে না করেন। তাতে যদি কাজ না হয়, তবে আপনি কর্তৃপক্ষের সহায়তা নিতে পারেন।

* যৌন হয়রানির শিকার হলে কর্মক্ষেত্র বদলিয়ে ফেলা কোনো সমাধান নয়। আপনার কলিগদের সঙ্গে কথা বলুন, তাদের পরামর্শ নিন। সম্ভব হলে যারা আপনার সঙ্গে এই ধরনের আচরণ করে তাদের এড়িয়ে চলুন।

* কর্মক্ষেত্রে পুরুষ কলিগদের কাছ থেকে কমপ্লিমেন্ট পাওয়া খুব সাধারণ ব্যাপার। কিন্তু এই কমপ্লিমেন্টগুলো অনেক সময় শুধু কমপ্লিমেন্ট হিসেবে দেওয়া হয় না। বোঝার চেষ্টা করুন আপনার কলিগ কি হিসেবে আপনাকে কমপ্লিমেন্ট দিচ্ছেন।

* আপনার কোনো নারী কলিগ যদি অন্য কোনো কলিগ দ্বারা যৌন হয়রানির শিকার হন এবং তিনি যদি এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ নিতে ভয় পান, তবে আপনি তার হয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে নালিশ করুন। তার পাশে থেকে তাকে সহায়তা করুন।

অন্যায়ের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষের কঠোর অবস্থান এবং অফিসে সঠিক বন্ধুসুলভ পরিবেশ বজায় রাখার মাধ্যমেই যৌন হয়রানির পরিমাণ কমিয়ে আনা সম্ভব। সেইসাথে যারা ইতোমধ্যে এধরনের হয়রানির শিকার হয়েছেন, তাদের জন্য সঠিক কাউন্সেলিং-এর ব্যবস্থাও করা প্রয়োজন। এতে কাজের পরিবেশের উন্নতির সাথে সাথে কর্মীদের কর্মদক্ষতাও বাড়বে।

- রাজিয়া সুলতানা