শনিবার,২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
হোম / ফ্যাশন / ফিরে এল চোকার নেকলেস
০৩/১৬/২০১৬

ফিরে এল চোকার নেকলেস

- অদ্বিতী

পৃথিবী গোল, একইভাবে ‘গোল’ ফ্যাশন ট্রেন্ডও। পুরানো স্টাইলগুলো ঘুরেফিরে এসে নবরূপে স্থান করে নেয় নতুন দিনের ফ্যাশন দুনিয়ায়। তেমনি ফিরে এসেছে নব্বই দশকের ফ্যাশন চোকার নেকলেস।

দীর্ঘ বিরতির পর নতুনরূপে হালফ্যাশনে স্থান করে নিয়েছে চোকার। মূলত কপার, লেইস, মেটাল ইত্যাদি দিয়েই তৈরি হচ্ছে এই নেকলেসগুলো। এছাড়াও স্বর্ণের তৈরি হারের কদরও বেশ।

পশ্চিমা ফ্যাশন জগতে বেশ কিছুদিন ধরেই চোকারের আধিপত্য লক্ষ্য করা যাচ্ছে। নামিদামি তারকারা ওয়েস্টার্ন ফরমাল বা পার্টি পোশাকের সঙ্গে অনুষঙ্গ হিসেবে বেছে নিচ্ছেন এ-ধরনের নেকলেসগুলো।

মূলত হালকা ধরনের চোকারই পছন্দ হাল ফ্যাশনে। নরম স্কার্ফ বা লেইস ইত্যাদি দিয়েই মূলত তৈরি হচ্ছে চোকার নেকলেস। এর উপর পুতি, মেটাল, স্টোন, লকেট ইত্যাদি দিয়ে নকশা করা হয়। পুরো গলার সঙ্গে এঁটে থাকে এ-ধরনের নেকলেসগুলো।

এছাড়াও চিকন চেইন অথবা মেটালের চোকারও দেখতে বেশ এলিগেন্ট। আমাদের দেশিয় ধাঁচের সঙ্গে মানিয়ে ফ্যাশন ঘরগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে কাপড় ও সুতার তৈরি চোকার। শাড়ি অথবা কামিজ, সব কিছুর সঙ্গেই বেশ মানানসই এই হালকা গয়না। ওয়েস্টার্ন আউটফিটের সঙ্গে চেইন এবং লেইসের তৈরি পাথর, বিডস, মেটাল ইত্যাদি চোকার ভালো লাগে।

শুধু যে এক লহরের চোকার পরা যাবে তা নয়, একাধিক লহরের পেঁচানো চোকারও বেশ জনপ্রিয়। গলার সঙ্গে এঁটে থাকার পাশাপাশি খানিকটা ঝোলানো অংশও থাকতে পারে এই নেকলেসগুলোতে।

নতুন সময়ে আরও খানিকটা নতুনত্ব যুক্ত হয়েছে চোকারর ধরনে। চিকন একটি মেটালের রিং-এর চোকার এখন বেশ জনপ্রিয়। অনেক ক্ষেত্রে রিং-এর সামনে ঝোলানো থাকছে ছোট একটি লকেট। আবার কোনো কোনোটি ঘাড়ের পিছন থেকে আটকে থাকছে যার সামনের অংশ খানিকটা ফাঁকা।
পুরোটা মেটাল বেল্টের মতো চোকার নেকলেসও পরতে দেখা গেছে বেশ কিছু সেলিব্রিটিকে।

মোটকথা, সাধারণ একটি পোশাকের সঙ্গে একটি চোকার নেকলেস পুরো আউটলুকে যুক্ত করতে পারে ভিন্নমাত্রা। সাজ ও পোশাকের ধরনভেদে সেক্ষেত্রে বেছে নিতে হবে এই অনুষঙ্গ। এর সঙ্গে কানে পরতে পারেন মানানসই ছোট টপ বা সামান্য ঝোলানো দুল।

খোলাচুল বা পনিটেইল, খোপা বা বেণী যেকোনো হেয়ার স্টাইলের সঙ্গে মানিয়ে চোকার পরা যেতে পারে। তবে যেকোনো নতুন কিছুর আগে তা নিজের ও পোশাকের সঙ্গে মানাচ্ছে কিনা তা বুঝে নিতে হবে।

কিছুটা বড় গলার জামার সঙ্গেই চোকার বেশি ভালো লাগে। তবে পোশাকের গলায় যদি বেশি কারুকাজ থাকে সেক্ষেত্রে চোকার এড়িয়ে চলাই শ্রেয়।