বুধবার,১৬ অগাস্ট ২০১৭
হোম / জীবনযাপন / শারীরিক সম্পর্ক ও যত ভুল ধারণা
১২/১৯/২০১৬

শারীরিক সম্পর্ক ও যত ভুল ধারণা

-

সম্পর্কে বোঝাপড়ার পাশাপাশি সুস্থ ও স্বাভাবিক শারীরিক সম্পর্ক থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তবে কিছু ভুল ধারণার কারণে সঙ্গীর সঙ্গে স্বাভাবিক শারীরিক সম্পর্কে বাধা সৃষ্টি হয়। ফলে অনেক সময়ই সম্পর্কে অশান্তি দেখা দেয়। এ-ধরনের কিছু ভুল ধারণা নিয়ে বিস্তারিত থাকছে লেখার পরবর্তী অংশে।

- সঙ্গীর সঙ্গে যৌনমিলনের ক্ষেত্রে নিজের শারীরিক গড়ন সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে বলে ধারণা করে থাকেন অনেকেই। বিশেষ করে ব্যক্তি শারীরিকভাবে মোটা কিংবা বেশ শুকনো হয়ে থাকলে এ ধরনের চিন্তাভাবনা মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় এটা স্রেফ ভুল ধারণা ছাড়া কিছুই নয়। যদি একে অপরের প্রতি যথেষ্ট শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা থাকে, তবে শারীরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলো আসলে কোনো সমস্যাই নয়। বিজ্ঞাপন, সিনেমা ও অন্যান্য বিনোদন মাধ্যমে নিখুঁত সৌন্দর্যের মাপকাঠি হিসেবে ফিগার, গায়ের রং, চেহারাকে গুরুত্ব দেয়া হলেও বাস্তব জীবনে সুস্থ-স্বাভাবিক যৌনজীবনে এসব নিছক দুশ্চিন্তা ছাড়া আর কিছুই নয়।

- শারীরিক সম্পর্কে সঙ্গীকে খুশি করতে পারবেন কিনা এ-নিয়ে অনেককেই দুশ্চিন্তা করতে দেখা যায়। অনেকে আবার অ্যাডাল্ট ফিল্ম বা পর্নোগ্রাফিতে আসক্তির কারণে যৌনসম্পর্কের বিষয়টাকে এসব ফিল্মের সঙ্গে তুলনা করে নিজের যৌনজীবন নিয়ে হতাশ হয়ে পড়েন। এসব খুবই ভুল ধারার চিন্তা। এক্ষেত্রে মাথায় রাখতে হবে পর্নোগ্রাফিতে যা দেখানো হচ্ছে, তা অন্য আট-দশটা মুভির মতোই অভিনয়, যেখানে প্রতিটি দৃশ্যের মাঝখানে বিরতি দেয়া হয় এবং সমগ্র ব্যাপারটিকে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য নানা কৌশল অবলম্বন করা হয়। তাই সিনেমা বা পর্নোগ্রাফি দেখে বাস্তব জীবনে সঙ্গীর কাছ থেকে একই জিনিস আশা করাটা বোকামি ছাড়া আর কিছু না।

- সঙ্গীর শারীরিক সামর্থ্য নিয়েও অনেকের মধ্যেই প্রশ্ন দেখা যায়। একটি সুন্দর সম্পর্ক শেষ করতে এ-ধরনের এক-দু’টি সন্দেহই যথেষ্ট। এক্ষেত্রে শারীরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে কোনো স্ট্যান্ডার্ড ঠিক না করে ব্যাপারটা উপভোগ করাটাই শ্রেয়। সঙ্গীর কাছে বাড়াবাড়ি রকমের কিছু আশা করার চিন্তা বাদ দিয়ে বরং মানিয়ে নিতে হবে। এক্ষেত্রে জেনে রাখা ভালো অন্যান্য কিছুর মতো শারীরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রেও সঙ্গীকে সময় দিতে হবে, যাতে একটা সময় সব কিছু আপনার মনের মতো হয়।

- একইভাবে নিজের শারীরিক সামর্থ্য নিয়ে আত্মবিশ্বাসের অভাবও আপনার সুন্দর সম্পর্কের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়াতে পারে। এক্ষেত্রে সঙ্গীকে সন্তুষ্ট করতে পারবেন কিনা, এ নিয়ে দুশ্চিন্তা না করে আত্মবিশ্বাসী হোন।

- শারীরিক সম্পর্কের স্থায়িত্ব নিয়েও অনেকের মধ্যে নানা প্রশ্ন ও সংকোচ দেখা যায়। ঠিক কতক্ষণ ধরে সঙ্গীর সঙ্গে যৌন মিলনে থাকতে হবে, তার কোনো কোনো ধরাবাঁধা নিয়ম নেই। তাই এ-নিয়ে নেতিবাচক চিন্তা করা কিংবা সঙ্গীর সামর্থ্য নিয়ে সন্দেহ করাটা একেবারেই ঠিক নয়।

একে অপরের প্রতি বিশ্বাস-ভালোবাসা প্রত্যেকটা সম্পর্কেরই মূল ভিত্তি এবং তা শারীরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। তাই অহেতুক চিন্তাভাবনা না করে প্রিয়জনের সঙ্গে একান্তে সময়টা উপভোগ করাই শ্রেয়।

- আতিফ হাসান