বুধবার,২২ নভেম্বর ২০১৭
হোম / ফ্যাশন / সাজসজ্জায় সোনালি ছটা
১১/১১/২০১৬

সাজসজ্জায় সোনালি ছটা

-

আভিজাত্য এবং সৌন্দর্যের নিদর্শন হিসেবে সোনালি রং ব্যবহৃত হয়ে আসছে বহু বছর ধরে। মূল্যবান স্বর্ণালঙ্কার বা সোনালি বর্ণ সবই সৌন্দর্য সচেতনদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে।

সোনালি রংয়ের গয়না বা পোশাকে স্বর্ণাভা ফ্যাশন সচেতনদের কাছে বেশ জনপ্রিয়। যে কোনো উৎসবে সোনালি রং সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। বিয়ের উৎসবে কনের গায়ে সোনালি রং এবং স্বর্ণের গয়না এই উপমহাদেশে সবচেয়ে বেশী প্রচলিত।

তবে অনেকেই সোনালি বর্ণের কিছু পরার ক্ষেত্রে কিছুটা সংকোচ বোধ করেন। তবে চাইলেই অন্যান্য রংয়ের সঙ্গে কনট্রাস্ট করে উৎসবের সময় ছাড়াও সোনালি পরা যেতে পারে।

হাল ফ্যাশনে আধুনিকতার সঙ্গে পুরাতন ফ্যাশনের মিশ্রণ বেশ জনপ্রিয়। তাই সেদিক থেকেও সোনালি রং ব্যবহারের স্বাধীনতা রয়েছে।

যে কোনো উৎসবের পোশাকে সোনালি ছটা বেশ মানানসই। গাঢ় নীল, লাল, ছাই বর্ণ বা কালো এমন যে কোনো রংয়ের উপর সোনালি নকশাকরা পোশাক দেবে দারুন ‘গর্জিয়াস’ লুক। এমনকি হালকা রংয়ের সঙ্গেও সোনালি মানিয়ে যায়। চাইলে একরঙা পোশাকের সঙ্গে সোনালি ওড়না পরা যেতে পারে, এতেও দেখতে বেশ গ্ল্যামারাস লাগবে। শাড়ির সঙ্গে সোনালি ব্লাউজও ছিমছাম শাড়িকে আকর্ষণীয় করে তুলবে।

গ্রীষ্ম বিদায়ে এই সময়ে উৎসবের কমতি নেই। আর এই আবহাওয়ায় যেখানে এখনও কিছুটা গরমের ভাব রয়েছে, অনেকেই ভারি ও গাঢ় পোশাক এড়িয়ে চলতে পছন্দ করেন। তাই বলে তো উৎসব বাদ দিলে চলবে না। সেক্ষেত্রে সাদা বা নুড কালারের পোশাকগুলো বেছে নেওয়া যেতে পারে। উৎসবে এই রংগুলোর সঙ্গে সোনার অলঙ্কার দারুন মানিয়ে যায়। শুধু যে খাঁটি সোনার গয়নাই বেছে নিতে হবে তা কিন্তু নয়। ইমিটেশন বা গোল্ড প্লেটিং করা কুন্দন গয়নাও বেশ মানায় উৎসবগুলোতে। তবে কখনোই কোনো কিছু নিয়ে বাড়াবাড়ি করা ঠিক হবে না। অর্থাৎ সোনালি রং ভালো লাগলেও এর আধিক্য দৃষ্টিকটুই লাগবে বরং।

পুরানো ফেলে রাখা পোশাকগুলোকে চাইলে নতুনভাবে সাজিয়ে তুলতে পারেন। অনেক সময় পোশাকে ভারি কাজ লাগানো থাকে, যেগুলো পোশাক পুরানো হয়ে গেলেও থাকে নতুনের মতো। সেক্ষেত্রে ইওক বা নকশাগুলো খুলে নতুন কাপড়ের সঙ্গে জুড়ে আনকোরা পোশাক তৈরি করে নিতে পারেন।

সোনালি রংটা বেশ উজ্জ্বল এবং চকচকে, তাই এটি পরিধানযোগ্য করে তুলে কিছুটা হালকা এবং অনুজ্জ্বল কাপড় এবং রংয়ের সঙ্গে মিলিয়ে নিতে হয়। যেমন সুতি, লিনেন বা জর্জেট।

শুধু যে পোশাকে আর গয়নায় সোনালি রং শোভা পাবে, তা কিন্তু নয়। সাজসজ্জার সব ধাপেই সোনালি রং আভিজাত্য ফুটিয়ে তুলবে। জুতা বা স্যান্ডেলে সোনালি গ্লিটার ছিমছাম লুকেও গর্জিয়াস ভাব ফুটিয়ে তুলতে পারে।

নখ সাজাতেও এই রংয়ের নেইল পলিশ ভালো লাগবে। সোনালি বেশ স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি রং। তাই বিভিন্ন ধরনের রংয়ের পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে যায়। কোনো রংয়ের পোশাকের সঙ্গে নেইল পলিশের রং বাছতে যদি সমস্যায় পড়তে হয়, তাহলে নিশ্চিন্তে সোনালি রং বেছে নেওয়া যাবে।

মেকআপেও এই রংটি দারুনভাবে ফুটিয়ে তোলা যায়। তামাটে বা ব্রোঞ্জ অথবা উজ্জ্বল সোনালি বর্ণের আইশ্যাডো ব্যবহার করে খুব সহজেই গ্ল্যামারাস আই মেকআপ করা সম্ভব। সোনালি শ্যাডো বাদামি, কালো, মেরুন, সবুজ, নীল যে কোনো রংয়ের সঙ্গে মানিয়ে যায়। অন্য রংয়ের সঙ্গে ব্লেন্ড করে খুব সহজেই আইলুক তৈরি করা যাবে সোনালি শ্যাডো ব্যবহার করে।

হালফ্যাশনে হাইলাইটারের ব্যবহার তুঙ্গে। আর আমাদের দেশীয় ত্বকের রংয়ের সঙ্গে, বিশেষত উজ্জ্বল শ্যামলা এবং শ্যামলা রংয়ের ত্বকে সোনালি হাইলাইটার বেশি মানায়।

সবশেষে আসা যাক অনুষঙ্গের ক্ষেত্রে। ব্যাগ বা ঘড়ির ক্ষেত্রেও এই রাজকীয় রংটি বেশ উপযোগী। নেইল পলিশের মতো যদি পোশাকের সঙ্গে কোনো রংয়ের ব্যাগ মানাবে তা নিয়ে দোটানা কাজ করে সেক্ষেত্রে নির্দ্বিধায় সোনালি ব্যাগটি সঙ্গে নিয়ে নেওয়া যাবে। আর ঘড়ির ক্ষেত্রে সোনালির নিয়ে ব্যবহার নতুন করে বলার কিছু নেই।

সোনালির বিভিন্ন শেডও এখন সহজলভ্য। রোজ গোল্ড, ট্রু গোল্ড, ব্রোঞ্জ ইত্যাদি বিভিন্ন শেড বাজারে পাওয়া যায়। সেখান থেকে নিজের পছন্দসই শেডটি বেছে নিলেই হলো।

- সামিরা আহসান