শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭
হোম / স্বাস্থ্য-ফিটনেস / ১০ মিনিটের ব্যায়াম
১১/০২/২০১৬

১০ মিনিটের ব্যায়াম

-

ফিটনেস ধরে রাখতে সপ্তাহে চারদিন অন্তত আধা ঘন্টা ব্যায়াম করা উচিত। তবে নয়টা-পাঁচটার ব্যস্ত জীবনে আধা ঘন্টা সময় বের করা প্রায়ই সম্ভব হয়ে ওঠে না। তবে কিছু বিশেষ ব্যায়াম করার মাধ্যমে দৈনিক মাত্র ১০-১৫ মিনিট সময় ব্যয় করেই ফিটনেস ধরে রাখা সম্ভব। কাজের ফাঁকে এই ব্যায়ামগুলো করা যায় বলে বাড়তি সময়েরও দরকার হয় না।

স্কিপিং

মাত্র ১০ মিনিট স্কিপিং করলে বিশেষ উপকার পাবেন। স্কিপিং করলে দেহের মাঝের অংশ, হাত এবং পায়ের মুভমেন্ট হয় যার ফলে আপনি কয়েক মিনিটেই দেহ থেকে ১০০ ক্যালরি ঝরিয়ে ফেলতে পারবেন। ব্যায়ামটি করতে পারেন সকালে নাস্তার আগে অথবা দিনের অন্য কোনো সময় খালি পেটে। শুরু করার আগে হাঁটুর মাসল কিছুটা ফ্লেক্স করে নেবেন। তবে হাঁটুর সমস্যা থাকলে এই ব্যায়াম শুরু করার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

লিফট ব্যবহার আর নয়

অফিস কিংবা বাসা, যে কোনো জায়গায় লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহারের অভ্যাস গড়ে তুলুন। এর মাধ্যমে শরীরের ক্ষতিকর কোলেস্টেরল পুড়িয়ে ফেলা সম্ভব। স্ট্যামিনা বাড়বে এবং হৃৎপিণ্ড-ও সুস্থ থাকবে। এছাড়া এই সামান্য ওঠা নামার ফলে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়, এবং শরীরের টক্সিন দূর করে ফেলা যায়।

সাইকেল ব্যবহার করুন

ছোট বেলায় নিশ্চয়ই কারো কাছে সাইকেল চালানো শিখেছেন। সেই দক্ষতাকে কাজে লাগানোর সময় এখনই। সুযোগ পেলে সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে পড়–ন। অথবা অফিস বা ভার্সিটি থেকে এবং বাসার দূরত্ব কম হলে হলে যাতায়াতের মাধ্যম হিসেবে সাইকেল ব্যবহার করুন। সাইকেল চালাতে না পারলে বাসায় কিংবা অফিসে একটি সাইক্লিং মেশিন কিনে রাখতে পারেন। সাইক্লিং হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় এবং পেশি গঠনে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এভাবে প্রতিদিন ১০-২০ মিনিটের সাইক্লিং আপনার শরীরকে ফিট রাখতে বেশ কাজে আসবে।

স্ট্রেচিং

সঠিকভাবে অল্প কয়েক মিনিট ধরে স্ট্রেচিং ব্যায়ামগুলো করলে আলাদা করে পরিশ্রমের প্রয়োজন হবে না। সামান্য একটি ব্যায়ামের ম্যাট সঙ্গে নিয়ে যেতে পারেন অফিসে, অথবা রেখে দিতে পারেন বাসায়। এর মাধ্যমে পায়ের, হাতের, এবং এ্যাবস-এর স্ট্রেচ খুব সহজেই করে নিতে পারেন। তার সঙ্গে বুকডন এবং প্লাঙ্কিং করলে অনেকটাই কভার হয়ে যায় ব্যায়ামের রুটিন। এইসব ব্যায়ামের মাধ্যমে পেটের মেদ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। সঠিক স্ট্রেচিং শিখে নেওয়ার জন্য ইন্টারনেটে নানা ভিডিও দেখে নিতে পারেন।

ডাম্বেলস

হাতের জন্য ব্যায়ামের সবচাইতে উপকারী যন্ত্র হচ্ছে ডাম্বেলস। বাজারে নানা ওজনের এবং সাইজের ডাম্বেল কিনতে পাওয়া যায়, যা বহন করা যায় অতি সহজেই। অফিসে মেইল কিংবা মোবাইলে চোখ বুলানোর সময়ই আপনি ডাম্বেল নিয়ে ব্যায়াম সেরে ফেলতে পারবেন। এক্ষেত্রে প্রতি হাতে ২০ বার করে ডাম্বেল ওঠানামা করালেই হবে। এর ফলে আপনার হাত, কাঁধ এবং পিঠের পেশীর গঠন মজবুত হবে।

ইয়োগা

ইয়োগা বা যোগব্যায়াম করতে খুব বেশি সময় লাগে না। তবে এর জন্য কিছুটা ফ্লেক্সিবল জামা কাপড় পরে থাকতে হয়। অফিস কিংবা বাসায়, স্ট্রেচযোগ্য কাপড় কিংবা ঢোলা প্যান্ট পরে এই ব্যায়াম সেরে ফেলা যায়। ১০ মিনিটে আপনি মাথা, হাত, পা এবং কোমরের যোগব্যায়াম করে ফেলতে পারবেন সহজেই। এইসব ব্যায়ামের নিয়ম কানুন ভালো ভাবে জানার জন্য ইন্টারনেটে নানা ভিডিও দেখে নিতে পারেন।

নিজেকে বারবার মনে করিয়ে দিন যে শরীরের ভালোর জন্য ব্যায়াম জরুরি। নিয়মিতভাবে অল্প কিছু সময়ের জন্য শরীরচর্চা করলেই আপনি হয়ে উঠবেন সুস্থ, সবল এবং ফিট।

- কাজী মাহদী আমিন