বৃহস্পতিবার,২৩ নভেম্বর ২০১৭
হোম / রূপসৌন্দর্য / এই মৌসুমে চুলের যত্ন
১০/০৯/২০১৬

এই মৌসুমে চুলের যত্ন

- ইরা

রোদের তাপে ত্বক পুড়ে যাওয়া বা ট্যান হওয়ার সমস্যা এই গ্রীষ্মে নতুন কিছু না। তবে ওই রোদের তাপ যে চুলেরও ক্ষতি করছে, তা হয়তো অনেকেরই জানা নেই। ত্বক যেমন পুড়ে যায়, চুলও রোদের তাপে পুড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই ত্বকের পাশাপাশি চুল ভালো রাখতে দরকার সঠিক যত্ন।

সূর্যের ক্ষতিকর ইউভি রশ্মি ত্বকের জন্য যতটা ক্ষতিকর, চুলের জন্যও ঠিক ততটাই। তাই এই মৌসুমে দিনের বেলা চুল খোলা রেখে ঘর থেকে না বের হওয়াই ভালো। বরং স্কার্ফ বা ওড়না দিয়ে চুল ঢেকে রাখুন। এতে ক্ষতির মাত্রা কমে আসবে।

সূর্যের তাপে রং করা চুলের ক্ষতির পরিমাণ বেশি হয়। তাই যাদের চুল রং করা, তারা যতটা সম্ভব রোদ এড়িয়ে চলুন। তাছাড়া দীর্ঘ সময় সুইমিং পুলেও সাঁতার কাটবেন না। কারণ সুইমিং পুলের পানিতে থাকা ক্লোরিনের কারণে চুলের রং নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

এই গরমে চুল পরিষ্কার রাখা খুবই জরুরি। আর এর জন্য শ্যাম্পু ব্যবহার করতেই হয়। তবে শ্যাম্পু করার সময় চুলের এবং মাথার ত্বকের প্রাকৃতিক তেল ধুয়ে চুল শুষ্ক ও দুর্বল হয়ে যায়। তাই প্রতিদিন শ্যাম্পু করার প্রয়োজন নেই। চুল শুষ্ক মনে হলে শুধু আগার চুলে কন্ডিশনার ব্যবহার করতে পারেন। তবে দিনে চুল শুধু পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে পারেন।

তাছাড়া বেকিং সোডাও ব্যবহার করা যেতে পারে চুল পরিষ্কার করতে। এতে যাদের মাথার ত্বক তৈলাক্ত, তাদের চুলের গোড়ায় জমে থাকা বাড়তি তেল শুষে নেবে বেকিং সোডা।

চুল শুকাতে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করা নতুন কিছু নয়। তবে ড্রায়ারের তাপ চুলের জন্য ক্ষতিকর। চুল ব্লো ড্রাই করলেও অল্প তাপে চুল শুকানো উচিত। কারণ ব্লো ড্রাই করার ফলে মাথার ত্বকের আর্দ্রতা ও প্রাকৃতিক তেল শুকিয়ে যায়। আর এই মৌসুমে বাইরের আবহাওয়াও উষ্ণ থাকে। তাই কৃত্রিম তাপ চুলে না দেওয়াই ভালো।

একইভাবে যে কোনো স্টাইলিং টুল এড়িয়ে চলা উচিত। কারণ স্টাইলিং টুলের তাপ চুল দুর্বল ও ভঙ্গুর করে ফেলে। তাছাড়া অতিরিক্ত তাপ ব্যবহার করা হলে চুল পুড়েও যেতে পারে।

এই মৌসুমে চুলের জন্য কিছু বাড়তি যত্ন নেওয়া উচিত।

প্রতিবার শ্যাম্পুর আগে মাথায় ভালোভাবে তেল মালিশ করে নিন। এতে শ্যাম্পু করার পরও চুল শুকনো লাগবে না। আর নারিকেল তেল, বাদাম ও জলপাই তেল একসঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহারে চুলের গোড়া মজবুত হবে ও ঝলমলে থাকবে।

সূর্যের তাপে চুল রুক্ষ হয়ে যায়। তাই চুলের হারানো আর্দ্রতা ফিরিয়ে কোমল করে তুলতে প্রয়োজন ডিপ কন্ডিশনিং। প্রতিবার শ্যাম্পুর পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া সপ্তাহে ডিপ কন্ডিশনিং প্যাকও ব্যবহার করা উচিত। শ্যাম্পু করার আগে চুলে তেল দিয়ে নিলে উপকার পাওয়া যাবে।

চুলে পুষ্টি জোগাতে মেহেদি, ডিম, জলপাই তেল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে চুলে লাগানো যেতে পারে। তাছাড়া টক দই, কলা, লেবু ইত্যাদি উপাদানের মিশ্রণেও উপকারী হেয়ার প্যাক তৈরি করা যেতে পারে।

সূর্যের তাপের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এবং চুল মসৃণ রাখতে অ্যালোভেরা জেলের তুলনা নেই। এটি ডিপ কন্ডিশনার হিসেবেও কাজ করে।

এই মৌসুমে চুলের ক্ষতি এড়িয়ে চুল ঝলমলে রাখতে নিয়মিত যত্নের পাশাপাশি প্রয়োজন বাড়তি সচেতনতা।