শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭
হোম / স্বাস্থ্য-ফিটনেস / কালিজিরার গুনাগুণ
১০/১৯/২০১৬

কালিজিরার গুনাগুণ

-

কালিজিরার উপকারিতা অনেক, এটা আমরা সবাই জানি। কিন্তু এর উপকারিতা যে কতখানি বিস্তৃত তা সম্পর্কে আমাদের অনেকেরই ধারণা নেই। রান্নার কাজে কালিজিরা ব্যবহারের পাশাপাশি এর রয়েছে অসংখ্য ওষধি গুন যা শারিরিক অসুবিধা থেকে শুরু করে রূপচর্চা সবক্ষেত্রে বিস্তৃত। চলুন জেনে নেয়া যাক।

* কফ ও হাঁপানি সমস্যায় বুক ও পিঠে কালিজিরা তেল মালিশ করুন। আরাম পাবেন।

* সামান্য কালিজিরা হাতের তালুতে নিয়ে আঙুল দিয়ে ডলে নিন। এরপর পাতলা সুতি কাপড় দিয়ে ছোট্ট পুটলি তৈরি করুন। এক নাক বন্ধ করে অন্য নাকে টানতে থাকুন। ঠাণ্ডায় নাক বন্ধ থাকলে, খুলে যাবে। একই কাজ করুন মাথাব্যথাতেও। সাইনোসাইটিসের ব্যথাও এতে কমে যাবে।

* যেকোনো ধরনের বাতের ব্যথায় কালিজিরা তেল ম্যাসাজ করুন। উপকার পাবেন।

* তিলের তেলের সাথে কালিজিরা বাঁটা বা কালিজিরার তেল মিশিয়ে ফোড়াতে লাগালে ফোড়ার উপশম হয়।

* মাথা ব্যথায় কপালে দিনে ৩/৪ বার কালোজিরা তেল মালিশ করলে উপকার পাওয়া যায়।

* কালিজিরা বহুমুত্র রোগীদের রক্তের শর্করার মাত্রা কমিয়ে দেয়। কালোজিরা চূর্ণ ও ডালিমের খোসাচূর্ণ মিশ্রন, কালোজিরা তেল ডায়াবেটিসে উপকারী।

* চায়ের সাথে নিয়মিত কালোজিরা মিশিয়ে অথবা এর তেল মিশিয়ে পান করুন, মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

* মধুসহ প্রতিদিন সকালে কালোজিরা খান। অসুখ বিসুখ দূরে থাকবে।

* সন্তান প্রসবের পর কালিজিরা ভর্তা খান। শিশু দুধ ঠিকমত পাবে।

* জ্বর, কফ, গায়ের ব্যথা দূর করার জন্য কালিজিরা যথেষ্ট উপকারী বন্ধু। এতে রয়েছে ক্ষুধা বাড়ানোর উপাদান। পেটের যাবতীয় রোগ-জীবাণু ও গ্যাস দূর করে ক্ষুধা বাড়ায়।

* কালিজিরায় রয়েছে অ্যান্টিমাইক্রোরিয়াল এজেন্ট যা শরীরের রোগ- জীবাণু ধ্বংসকারী উপাদান। তাই নিয়মিত খেলে সহজে ঘা, ফোড়া হয় না।

* দাঁতে ব্যথা হলে কুসুম গরম পানিতে কালিজিরা দিয়ে কুলি করলে ব্যথা কমে; মুখের ভেতরের জিবানু ধ্বংস হয়।

* কালিজিরা কৃমি দূর করতে সাহায্য করে।

* কালিজিরার তেল ব্যবহারে সুনিদ্রা হয়।

* নিম্ন রক্তচাপ বৃদ্ধি ও উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।

* মস্তিস্কের রক্ত সঞ্চলন বৃদ্ধির মাধ্যমে স্মরণ শক্তি বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।

* অন্ত্রের জীবাণু নাশ করে পেটের গ্যাস দূর করে দিতে কালিজিরার বিকল্প নেই।এক গ্লাস পানিতে এক চা চামচ কালিজিরা ভালো করে ফুটিয়ে নিন। পানি ছেঁকে নিয়ে কুসুম গরম অবস্থায় পান করুন। আরাম পাবেন।

* শিশুদের ঠান্ডা লাগলে কালিজিরা ও সমপরিমাণ সরিষা মিহি করে বেটে নিয়ে মাথার তালু ও বুকে প্রলেপ দিন। দ্রুত সেরে যাবে।

* চুলপড়া কমাতে কালিজিরা তেল ব্যবহার করুন। প্রথমে চুলের গোড়ায় লেবুর রস ভালো করে লাগান। ২০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে চুল শুকিয়ে নিন। এবার মাথার স্ক্যাল্পে কালিজিরা তেল ম্যাসাজ করুন। চুলপড়া বন্ধ হবে।

-শিল্পী সরকার