মঙ্গলবার,২২ অগাস্ট ২০১৭
হোম / খাবার-দাবার / কোরবানি ঈদ স্পেশাল রেসিপিঃ একতা চৌধুরী
০৯/০১/২০১৬

কোরবানি ঈদ স্পেশাল রেসিপিঃ একতা চৌধুরী

-

কোরবানির ঈদে শুধু মাংসের আইটেমই নয়, মাছের পদও বাড়িয়ে দিতে পারে খাবার টেবিলের আকর্ষণ। স্বাদ বদলানোর জন্যও মাছের আইটেম হতে পারে একটি জুতসই বিকল্প। একতা চৌধুরী তাই পাঠকদের উপহার দিয়েছেন ছয়টি বিভিন্ন ধরনের মাছের রেসিপি।

ব্যাটার ফ্রাইড চিংড়ি

উপকরণ
চিংড়ি- আধা কেজি, খোসা ছাড়ানো
কর্নফ্লাওয়ার- ২ টেবিল চামচ
চালের গুঁড়া- ২ টেবিল চামচ
আদা-রসুনবাটা- ১ চা চামচ
ডিম- ১টি, দুধ- আধা কাপ
তেল ৩০০ গ্রাম, লবণ স্বাদমতো
গোলমরিচের গুঁড়া এবং মরিচের গুঁড়া স্বাদমতো

প্রণালি
প্রথমে চিংড়ি ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার আলাদা পাত্রে কর্নফ্লাওয়ার, চালের গুঁড়া, আদা-রসুন বাটা, ডিম, দুধ, লবণ, গোলমরিচের গুঁড়া এবং মরিচের গুঁড়া দিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করুন। তেল গরম করে চিংড়িগুলো মিশ্রণে ডুবিয়ে একটা একটা করে তেলে ছাড়ুন। সোনালি করে ভেজে তুলুন। সস আর ডিপ-এর সঙ্গে পরিবেশন করুন এই মচমচে চিংড়ি।

টুনা সালাদ

উপকরণ
টুনার ক্যান থেকে নেয়া টুনা মাছ দুই টেবিল চামচ। টুনার ক্যানটি তেল ছাড়া কিনবেন। টুনার পানি ঝরিয়ে নিতে হবে।
শসা- দুই টেবিল চামচ, কুচি করে কাটা
গাজর কুচি- এক টেবিল চামচ
টমেটো কুচি- এক টেবিল চামচ
ক্যাপসিকাম কুচি- এক টেবিল চামচ
বাঁধাকপির সাদা অংশ কুচি- দুই টেবিল চামচ
আপেল কুচি- একটি আপেলের চার ভাগের এক ভাগ
আঙুর কুচি- ৪/৫ টি
গোলমরিচ- এক চিমটি
টক দই- এক টেবিল চামচ, পানি ঝরানো
ডায়েট সুগার- আধা চা চামচ
অলিভ অয়েল- আধা চা চামচ
কারি পাউডার স্বাদমতো
ধনেপাতা কুচি পরিমাণমতো
লবণ প্রয়োজনমতো

প্রণালি
সব উপকরণ একসঙ্গে একটি বাটিতে নিয়ে ভালোমতো মাখিয়ে ধনেপাতাকুচি দিয়ে পরিবেশন করুন, হেলদি, অত্যন্ত সুস্বাদু টুনা সালাদ। এই উপকরণগুলো ছাড়াও আপনার ইচ্ছামতো অন্য উপকরণ, যেমন- আনারস, কমলার কুচি, লেটুস, পেঁয়াজ, কাঁচামরিচ, লেবুর রস ইত্যাদি দিতে পারেন। এছাড়া সিদ্ধ করা/ কাঁচা ছোলা, সিদ্ধ করা আলু, সিদ্ধ করা কাবুলি ছোলাও দিতে পারেন। ইচ্ছা হলে এই সালাদে মেয়োনেজ বা অন্য সালাদ ড্রেসিং দিতে পারেন। তাহলে আর এটা তেমন হেলদি থাকবে না।

রুই পোলাও

উপকরণ
বাসমতি চাল- ২ কাপ, রুই মাছ- ৩০০ গ্রাম
ঘি- ১২৫ গ্রাম, তেজপাতা- ৪টি
এলাচ, দারুচিনি, লবঙ্গ (আস্ত) ৩টি করে
জায়ফলগুঁড়ো- আধা চা চামচ
চিনি- ১ চা চামচ, আদাবাটা- ১ চা চামচ
মরিচগুঁড়ো- আধা চা চামচ
গোলমরিচ- ৪টি, খুব ছোট
হলুদ- আধা চা চামচ, লবণ পরিমাণমতো

প্রণালি
মাছ ছোট ছোট টুকরো করে লবণ, হলুদ, মরিচগুঁড়ো ও আদাবাটা মাখিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। পরে তেল গরম করে ভেজে তুলে নিন। আলু সিদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে ভেজে তুলুন। চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। ডেকচিতে ঘি ঢেলে গরম মসলা, তেজপাতা ও চাল ছেড়ে একসঙ্গে নেড়েচেড়ে অল্প ভেজে চার কাপ ফুটন্ত পানি, লবণ ও চিনি দিয়ে ঢেকে দিন। ফুটে উঠলে কমিয়ে দিন আঁচ। যখন চাল প্রায় সিদ্ধ হয়ে পানি শুকিয়ে আসবে, তখন ঢাকনা খুলে মাছ, আলু, জায়ফল দিয়ে সাবধানে নাড়–ন। ওপরে কাঁচামরিচ দিয়ে ঢেকে খুব কম আঁচে দশ মিনিট দমে রেখে নামিয়ে নিন।

গ্রিলড তেলাপিয়া

উপকরণ
তেলাপিয়া মাছ- ১০০ গ্রাম(ফিলে বা আস্ত মাছ)
রসুন- ৫ গ্রাম
বেসিল- ৫০ গ্রাম
চিজ- ২০ গ্রাম
বাদাম- ১০ গ্রাম
অলিভ অয়েল পরিমাণমতো
লবণ স্বাদমতো
প্রণালি
প্রথমে তেলাপিয়া মাছ পরিষ্কার করে ধুয়ে রাখুন। এবার রসুন, বেসিল, চিজ, বাদাম মিক্সিতে একসঙ্গে পেস্ট করে নিন। লবণ, তেল মেশান। এই মিশ্রণে তেলাপিয়া মাছ মাখিয়ে ৩০ মিনিট রাখুন। তারপর ৩০ মিনিট গ্রিল করুন। মাঝে ওভেন থেকে বের করে অয়েল ব্রাশ করে উল্টে দিন। সাজানোর সময় সামান্য চিজ দিতে পারেন। এবার পরিবেশন করুন।

কেরালা রূপচাঁদা কারি

উপকরণ
পমফ্রেট মাছ- ৪টি, পেঁয়াজ- ১টি, বড়
আদা- ১ টুকরো, ১ ইঞ্চি মাপের
রসুন- ৩/৪ কোয়া, কাঁচামরিচ- ৩/৪টি
কাশ্মীরি মরিচগুঁড়ো- ১ চা চামচ
হলুদগুঁড়ো- আধ চা চামচ
মেথি- আধা চা চামচ
শুকনো মরিচ- ২/৩টি
টমেটো- ২টি, তেঁতুল- ১ ছড়া
আস্ত সরষে- ১ চা চামচ
কারি পাতা- ৬/৭টি, লেবু- ১টি
নারকেলের দুধ- আধকাপ
সাদা তেল- আধকাপ।
চিনি একচিমটি, লবণ স্বাদমতো

প্রণালি
পমফ্রেটের গায়ে ছুরি দিয়ে লম্বালম্বি চিরে নিন। লেবুর রস ও সামান্য রসুনবাটা দিয়ে মাছ আধ ঘণ্টা ম্যারিনেট করে রাখুন। গরম পানিতে তেঁতুল ভিজিয়ে ক্বাথ বের করে নিন। সামান্য লবণ ও হলুদ মাখিয়ে পমফ্রেট মাছ একদম হালকা করে ভেজে তুলে রাখুন। কড়াইয়ে তেল গরম করে মেথি ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজকুচি, আদাবাটা ও রসুনবাটা দিন। পেঁয়াজে হালকা সোনালি রং ধরলে তাতে টমেটো কুচি দিন। টমেটো সিদ্ধ হয়ে এলে চেরা কাঁচামরিচ, কাশ্মীরি মরিচগুঁড়ো ও তেঁতুলের ক্বাথ দিয়ে দিন। এবার তাতে নারকেলের দুধ দিয়ে নাড়ুন। ভেজে তুলে রাখা মাছের টুকরোগুলো দিয়ে একবার নেড়ে চেড়ে চাপা দিতে হবে। স্বাদমতো লবণ ও চিনি দিন। কিছুক্ষণের মধ্যেই গ্রেভি ফুটে উঠে তেল ছেড়ে দেবে। অন্য একটি বাটিতে সামান্য তেল গরম করে তাতে শুকনো মরিচ, সরষে ও কারিপাতা ফোড়ন দিয়ে নামিয়ে নিন। ফোড়নের মসলা মাছের উপরে ছড়িয়ে দিয়ে ঢেকে দিন। মিনিট পাঁচেক পরে নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন কেরালা রূপচাঁদা কারি।

ম্যাকারেল থাই কারি

উপকরণ
মসলা তৈরির জন্য
পেঁয়াজ- ১টি, বড় মাপের
ধনেপাতা কুচি- ২ চা চামচ
কাঁচামরিচ- ২টি
আদার পেস্ট- ১ চা চামচ
রসুনের পেস্ট- ২ চা চামচ
ধনেগুঁড়ো- ২ চা চামচ
জিরেগুঁড়ো- ১ চা চামচ
হলুদগুঁড়ো- ১ চা চামচ
কারি বানানোর জন্য
ম্যাকারেল মাছ- ৪-৫টি
কাঁচামরিচ- ২টি
নারকেলের দুধ- ১ কাপ
চিনি ও লবণ পরিমাণমতো

প্রণালি
মাছ ভালো করে ধুয়ে পিস পিস করে কেটে নিন। এবার তাতে হলুদ ও লবণ মাখিয়ে ১৫ মিনিটের জন্য রেখে দিন। এবার একটি কড়াইয়ে তেল গরম করতে দিন। তাতে পাতলা করে কাটা পেঁয়াজের কুচি হালকা ভেজে নিতে হবে। এবার তার উপর সব মসলার পেস্ট যোগ করুন। মিশিয়ে নিন মরিচ, ধনেপাতার কুচি ও গুঁড়ো হলুদও। ভাজতে থাকুন।
মসলা বাদামি বর্ণের হলে তার উপর অল্প পানি দিন। এবার কাঁচামরিচ দিয়ে একবার ফুটিয়ে নিন। তার উপর মাছের পিসগুলো ছেড়ে দিন। ঘাঁটবেন না যেন। ওই অবস্থাতেই রেখে মাঝারি আঁচে ২ মিনিটের জন্য রেখে দিন। পরের ধাপে মাছের উপর অল্প পরিমাণে নারকেলের দুধ ঢেলে দিন। এবার একটু নাড়াচাড়া করে নিন। একটু পরে বাকি দুধও মিশিয়ে নিন। মাছ সিদ্ধ হতে দিন। প্রয়োজনে অল্প মরিচ মেশান। মিশিয়ে নিন স্বাদমতো লবণ ও চিনি। বেশি ফোটানোর প্রয়োজন নেই। গ্রেভি অবস্থায় নামিয়ে রাখুন।