বুধবার,২৩ অগাস্ট ২০১৭
হোম / বিজ্ঞান-প্রযুক্তি / সুরক্ষার জন্য চাই সিকিউরিটি সরঞ্জাম
০৮/১৬/২০১৬

সুরক্ষার জন্য চাই সিকিউরিটি সরঞ্জাম

- শাহরিয়ার

ব্লগার হত্যা থেকে শুরু করে গুলশান হামলা-বেশ কিছুদিন ধরে নিয়মিত নারকীয় ধ্বংসযজ্ঞ প্রত্যক্ষ করছে বাংলাদেশ। একের পর এক জঙ্গি আক্রমণের পরিণতিতে ‘নিরাপত্তা’ নামক শব্দটির শেষে যে বেশ বড়সড় প্রশ্নবোধক চিহ্ন বসেছে, তা বলাই বাহুল্য। তবে সমস্যা যত তীব্রই হোক, সচেতনতা ও জরুরি নিরাপত্তা ব্যবস্থা আপনাকে সমূহ বিপদ থেকে রক্ষা করতে পারে। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া লোমহর্ষক ঘটনাগুলো মাথায় রেখে বাসাবাড়ি ও আবাসিক এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করতে করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিন।

ডিভাইস পরিচিতি

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে সম্প্রতি নিরাপত্তার কাজে লাগে এমন সরঞ্জাম কিংবা নিরাপত্তা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান থেকে সেবা নেয়ার হার আগের চেয়ে ২০ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে। তবে বাসাবাড়ি বা আবাসিক এলাকায় নিরাপত্তার কাজে লাগে এমন সরঞ্জাম বা যন্ত্রপাতি সম্পর্কে সম্যক জ্ঞানের অভাবে বেকায়দায় পড়ছেন অনেক গ্রাহক। এক্ষেত্রে নিম্নে বর্ণিত ডিভাইসগুলো বেশ কার্যকর হতে পারে।

ওয়্যারলেস ‘আরলো’হোম সিকিউরিটি ক্যামেরা

গতবছর বাংলাদেশের প্রযুক্তি বাজারে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে নেটগিয়ারের আরলো ব্র্যান্ডের হোম সিকিউরিটি ক্যামেরা। তারহীন এই ক্যামেরাগুলো বাড়ি কিংবা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তার জন্য বেশ কার্যকর। তারহীন বলে এই ক্যামেরাগুলো ঘরের যে-কোনো জায়গায় সহজেই স্থাপন করা যায়। ওয়াটার ও ওয়েদারপ্রুফ এই ডিভাইসটিতে একটি বেজ স্টেশনে সর্বোচ্চ পাঁচটি ক্যামেরা তারহীনভাবে সংযোগ দেয়া সম্ভব। এই ক্যামেরার উন্নত মোশন ডিটেকশন ও নাইটভিশন ফিচারের কারণে নিরাপত্তা আরো জোরদার করা সম্ভব হয়। ক্যামেরাগুলো বাসার বিভিন্ন স্থানে স্থাপন করে গ্রাহক স্মার্টফোন, ট্যাবলেট, ল্যাপটপ কিংবা পিসিতে একসঙ্গে চারটি ক্যামেরা ভিউ দেখতে পারবেন। দু’টি ক্যামেরা ও একটি বেজ স্টেশনসহ আরলো’র মূল্য বর্তমানে ২৭ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

সাব্রে ডোর স্টপ অ্যালার্ম

দরজায় অপরিচিত লোকের আগমন আপনার জন্য বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। এর সমাধান হিসেবে দরজায় বসাতে পারেন সাব্রে ডোর স্টপ ডিভাইস। এই ডিভাইস বসানোর পর অপরিচিত কেউ দরজার লক খুলতে পারবে না। কেউ বারবার লক খোলার চেষ্টা করলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাবে এবং অ্যালার্ম বেজে উঠবে। এর ফলে আপনি এবং আশপাশের প্রতিবেশীরাও হঠাৎ বিপদে আগাম প্রস্তুতি নিতে পারবেন।

ক্যানারি হোম সিকিউরিটি সিস্টেম

এটি মূলত একটি ওয়্যারলেস সিকিউরিটি সিস্টেম। ডিভাইসটি বাড়ির এমন জায়গায় স্থাপন করতে হবে, যাতে সবার উপস্থিতি বা প্রস্থান ধরা পড়ে। এরপর এই ডিভাইসটি ইন্টারনেটের সঙ্গে সংযুক্ত করে ফোনে অ্যাপলিকেশন ডাউনলোড করে নিলে আপনার মোবাইলেই সব দেখতে পাবেন। এই ডিভাইসে জুম ইন,জুম আউট কিংবা ভিডিও রেকর্ড করে রাখার সুবিধা রয়েছে। এছাড়া বিশেষ অ্যালার্ম ফিচারও রয়েছে এই ডিভাইসে।

অন্যান্য সরঞ্জাম

বাসার নিরাপত্তার জন্য উপরোক্ত ডিভাইস ছাড়াও বিভিন্ন রকমের ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরা রয়েছে। এদের মধ্যে নেস্টক্যাম, কুনা ও উইথিংস-এর ডিভাইসগুলো বিশ্বব্যাপী বেশ জনপ্রিয়। তবে কম দামের মধ্যে জোভিশন, দাহুয়া, এক্সএসএল কিংবা ভ্যালুটপের ক্যামেরা কেনা যেতে পারে। এক্ষেত্রে তিন থেকে দশ হাজারের মধ্যে পছন্দসই ডিভাইস কিনতে পারবেন। সিকিউরিটি অ্যালার্মের মধ্যে ইনট্রুসান, কোটেকসহ বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য ব্র্যান্ডের ডিভাইস দেশীয় বাজারে পাওয়া যাবে। এছাড়া নিরাপত্তার জন্য ‘কি লাইট’ ডিভাইসও কিনে নেয়া যেতে পারে, যার মাধ্যমে শুধুমাত্র নির্দিষ্ট আলোর সাহায্যেই দরজা খোলা সম্ভব হবে।

এছাড়া বেসরকারিভাবে নিরাপত্তা প্রদানের জন্য বাংলাদেশে পাঁচশ’রও বেশি নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান রয়েছে বলে সাম্প্রতিক তথ্য-উপাত্তে জানা গিয়েছে। তীব্র নিরাপত্তাহীনতায় ভুগলে নামকরা নিরাপত্তা সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সাহায্য নেয়া যেতে পারে।