শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭
হোম / স্বাস্থ্য-ফিটনেস / শারীরিক গঠন ঠিক রাখতে
০৮/০১/২০১৬

শারীরিক গঠন ঠিক রাখতে

- ইরা

শরীরের গঠন ঠিক রাখতে এবং সুস্থ থাকতে মেরুদ-, কাঁধ এবং শরীরের অন্যান্য হাড়ের গঠন সঠিক রাখা জরুরি। কিন্তু আমাদের ছোটখাট ভুলের কারণেই নষ্ট হচ্ছে শরীরের পশ্চার Posture)|

দৈনন্দিন কিছু অভ্যাসের কারণে দিন দিন নষ্ট হতে থাকে আমাদের শরীরের স্বাভাবিক গঠন বা পশ্চার। দীর্ঘ সময় বসে থাকা, ভারি ব্যাগ বহন করা, ঝুঁকে কাজ করা, এমনকি উঁচু হিল পরার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয় আমাদের শরীরের গঠন। তবে এই পশ্চার ঠিক রাখা অত্যন্ত জরুরি। আর তাই কিছু সাধারণ বিষয় মনে রাখা এবং দৈনন্দিন অভ্যাসে পরিবর্তন আনা জরুরি।

সঠিকভাবে ব্যাগ বহন করা

ভারি ব্যাগ নিয়মিত বহনের কারণে পিঠ এবং ঘাড়ের অনেক ক্ষতি হয়ে থাকে। অনেকের ক্ষেত্রে ভারি ব্যাগ বহনের ফলে কাঁধের হাড়ে ফাটল ধরা বা বাঁকা হয়ে যাওয়ার সমস্যাও দেখা দিতে পারে। এক্ষেত্রে বেশি ভারি ব্যাগ বহনের সময় অবশ্যই দুই কাঁধে ব্যাগ নেওয়া উচিত। এমন ব্যাগ নিতে হবে, যেটার দু’পাশ থেকে আলাদা বেল্ট দিয়ে কোমরের সঙ্গে আটকে রাখা যায়। এতে শুধু কাঁধে নয়, পুরো শরীরে ভার বণ্টন হবে।

নিয়মিত হিল জুতা পরার ক্ষেত্রে

ফ্যাশন সচেতন নারীদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে থাকে হাই হিল জুতা। কিন্তু নিয়মিত হাই হিল পরার কারণে পিঠে ব্যথা হতে পারে। যারা নিয়মিত হিল পরেন, তাদের উচিত মাঝেমধ্যে হিল খুলে পা টানটান করে রাখা। বিশেষত যখন অফিস বা কোথাও বসে থাকেন, তখন পা থেকে জুতা জোড়া খুলে রাখতে পারেন। ঘরে ফিরে হালকা ব্যয়াম করুন পায়ের।

দীর্ঘ সময় বসে কাজ করা

বর্তমান যুগের কাজ আর ব্যস্ততার দৌড়ে প্রতিদিনই দীর্ঘ সময় বসে কাজ করতে হয়, যা আমাদের মেরুদ-ের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। আর দীর্ঘ সময় চেয়ারে বসে কম্পিউটার বা ডেস্কে কাজ করার ফলে ঘাড়ে এবং পিঠে ব্যথা হওয়া খুব স্বাভাবিক সমস্যা। কম্পিউটারে কাজ করার ক্ষেত্রে সোজা হয়ে পা জোড়া সামনে সমানভাবে রেখে বসা উচিত। তবে একটানা বসে না থেকে কিছুক্ষণ পরপর বিরতি নেওয়া উচিত। খানিকটা নড়াচড়া এবং হাঁটাহাঁটি সমস্যা এড়াতে সাহায্য করবে।

* এই অভ্যাসগুলো না করলে আমাদের শরীরের হাড় ও শারীরিক গঠন নষ্ট হতে থাকে। পিঠ ব্যথা, পা ও পায়ের গোড়ালি ব্যথা হওয়া, ফুলে যাওয়া ইত্যাদি নানা ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে। তাই এসব ক্ষেত্রে নিজের যত্ন নেওয়া উচিত।

হালকা নড়াচড়া করুন

এক জায়গায় ঠায় বসে না থেকে কাজের ফাঁকে কিছুটা নড়াচড়া করুন। যদি ব্যস্ততার কারণে হাঁটাহাঁটির সুযোগ নাও হয়, ঘাড় এবং মাথা হাত দিয়ে মাঝেমধ্যে হালকা ম্যাসাজ করে নিন। এতে শিরাগুলোতে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে। আর নিয়মিত হাঁটার অভ্যাস গড়ে তোলা স্বাস্থ্যের জন্য বিশেষ উপকারী।

মানসিক চাপ এড়িয়ে চলুন

সামাজিক, ব্যক্তিগত এবং কর্মক্ষেত্রেও অতিরিক্ত মানসিক চাপ ও হতাশা শারীরিক গঠনের জন্য ক্ষতিকর। কারণ মানসিক চাপের কারণে বেশিরভাগ মানুষই খানিকটা ঝুঁকে চলেন। যা মোটেও স্বাভাবিক নয়। তাই যতটা সম্ভব মানসিক চাপ কমানোর চেষ্টা করা উচিত।

শারীরিক গঠনের পাশাপাশি মানসিক অবস্থা স্থিতিশীল রাখতে ব্যায়ামের কোনো বিকল্প নেই। ঘাড়ে বা কাঁধে ব্যথার ক্ষেত্রেও পানির বোতল বা বেলুনি ঘুরিয়ে হালকা ম্যাসাজ করে নেওয়া যেতে পারে। তাছাড়া শরীরের হাড় ও গঠন ঠিক রাখতে পুষ্টিকর খাদ্যাভ্যাসও গড়ে তুলতে হবে।