শনিবার,২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
হোম / সাহিত্য-সংস্কৃতি / সৈয়দ তারিক
০৪/১৬/২০১৬

সৈয়দ তারিক

-


ছায়াপথচারী বাতুল যুবক
গনগনে তার প্রতিভা পুড়িয়ে
মহাশূন্যের অদিকপ্রান্তে
গেরুয়া বাতাস দিলেন উড়িয়ে।
তারপরে তার হৃদয়চক্রে
ব্ল্যাকহোল মেলে নিভৃতে হাসেন;
বিদ্বেষে কেউ সরে যান দ্রুত,
কেউ দেন ঝাঁপ থ যে ভালোবাসেন।


ওঠে নি তখনও আকাশে চন্দ্র,
শমিত হয় নি তখনও প্রাণ :
নম্র আঙুলে নেকাব সরিয়ে
কানে কানে তুমি দিলে আজান।
হয় নি তো ওজু আমার এখনও
মেলবো কি তবু জায়নামাজ?
তসবিতে রাখি কম্প্র আঙুল
জিকিরে কাটুক রাত্রি আজ।


হয় না তো ভাব, যায় না অভাব
স্বভাব নিয়ত স্বৈরাচারী,
ভেবেছি প্রণয়ে গড়বো বাগানথ
আপনার সাথে বৈরাচারী।
হয় না তো ভাব, যায় না অভাব
ব্রহ্মচারিণী মর্ষকামী;
নিস্পৃহতার গভীর আড়ালে
পরমেশ্বর ধর্ষকামী।


মাথা উঁচু করে জাগে মাশরুম
ব্যাঙেরা খেলায় মেতেছে পাশে,
জটায় গঙ্গা বেঁধেছেন শিব
ধীর লয় তাঁর প্রতিটি শ্বাসে।
উঁচিয়ে খড়গ্ মেলে দিয়ে জিভ
মু-ধারিণী বাড়ালেন পা,
ডাকিনী-যোগিনী হাসে খলখল
যোগনিদ্রায় লয় কাটে না।


বষ্টিতে ওজু সেরেছে সদ্য
শুচিতানম্র দোলনচাঁপা,
পাপড়িতে তার নামাজে দাঁড়ালো
প্রজাপতি : প্রেমে পাখনা-কাঁপা।
ঘাণে বিহ্বল হৃদয় আমার
মোনাজাতে তোলে আকুল হাত,
সেজদা আমার মঞ্জুর হোক-
শবেবরাতের আজকে রাত।