মঙ্গলবার,২২ অক্টোবর ২০১৯
হোম / সম্পাদকীয় / সময় কি সত্যিই এখন আমাদের?
১০/০১/২০১৯

সময় কি সত্যিই এখন আমাদের?

সম্পাদকীয়

- তাসমিমা হোসেন

‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রার বাংলাদেশ : সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের।’ এবারের বাজেটের এই শিরোনামটি আমাদের চমৎকৃত করে। কিন্তু বাজেট কি চমৎকৃত করে? বরাবরের মতো বড়ো অঙ্কের বাজেট এবং আয় বাড়াতে সরকার মধ্যবিত্তকেই বেছে নিয়েছে। এবারের বাজেটে বেশির ভাগ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ওপর ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে। অন্যদিকে, সঞ্চয়পত্রের মুনাফার ওপর উৎসে কর ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। এটি মধ্যবিত্তের আয়ের ওপর প্রভাব ফেলবে সরাসরি। কারণ মধ্যবিত্তের উল্লেখযোগ্য একটি অংশের আয়ের অন্যতম উৎস হলো সঞ্চয়পত্র। বিশেষ করে যেসব শিক্ষিত মধ্যবিত্ত অবসরের পর পেনশনার সঞ্চয়পত্র ক্রয় করে সেই লভ্যাংশ দিয়েই সংসার চালিয়ে থাকেন, তাদের জন্য এটি বড়ো ধরনের ধাক্কা। মনে রাখতে হবে, মধ্যবিত্তই আমাদের চালিকাশক্তি। সুতরাং মধ্যবিত্তের এই মরণদশা রাষ্ট্রের জন্যও ভালো নয়।
বলা হয়ে থাকে, দেশজুড়ে উন্নয়নের নহর বয়ে যাচ্ছে। এটা যেমন সত্যি, তেমনি উন্নয়ন প্রকল্পের ওপর ভর করে লুটপাটও চলছে দেদারসে। কোথাও কোথাও নামমাত্র উন্নয়ন কাজ শেষ করে টাকা তুলে নেওয়া হচ্ছে। আর এসব হচ্ছে অসৎ ঠিকাদার ও কর্মকর্তাদের যোগসাজশে। কিছু কিছু দুর্নীতি হচ্ছে কাজীর গরুর মতোÑ যা কেতাবে আছে কিন্তু গোয়ালে নেই। এ-ধরনের আরেকটি দুর্নীতির উদাহরণকে বলা হয় ‘পুকুর চুরি’। ঘটনাটি এরকম যে, একজন ধুরন্ধর প্রকৌশলী বদলি হয়ে নতুন অফিসের উন্নয়নের কাগজ ঘেঁটে দেখলেন যে, তিন বছর আগে এলাকায় পানির সমস্যা নিরসনে একটি বিরাট পুকুর খনন করার বাজেট দেওয়া হয়েছিল।

রিপোর্টে বলাও আছে যে, সেই পুকুরটি যথাসময়ে খনন করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি সেই পুকুর কোথাও খুঁজে পেলেন না। আসলে কী ঘটেছে সেটা বুঝতে ধুরন্ধর প্রকৌশলীর দেরি হলো না। অফিসের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তিনিও উপরমহলে রিপোর্ট করলেন যে, ‘এই এলাকার মানুষ নিয়মিত পুকুর থেকে পানি পান করায় ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন পানিবাহিত রোগ দেখা দিয়েছে। অচিরেই যেন পুকুরটি ভরাট করে নলকূপ স্থাপনের বাজেট দেওয়া হয়।’ যথাসময়ে বাজেট মিলল এবং না-কাটা পুকুর কাগজে-কলমে ভরাটও হয়ে গেল। ধুরন্ধর প্রকৌশলীসহ তার সহযোগীদের পকেটও ভরল।
কারো কারো মতে, দেশের মাত্র ৫ শতাংশ মানুষ আসলে ভালো আছেন। বাকি ৯৫ শতাংশ মানুষের ভালো থাকার মতো স্বস্তির পরিবেশ নেই। অথচ আমাদের প্রধানমন্ত্রী অহর্নিশ চেষ্টা করে যাচ্ছেন একটি সুন্দর বাংলাদেশ গড়ে তুলতে। প্রধানমন্ত্রীর অনেক চেষ্টার পরও যদি এই অবস্থা হয়, তবে আমাদের ভবিষ্যৎ কী? ডিআইজি পর্যায়ের কর্মকর্তা যদি ঘুষ নিয়ে পালিয়ে যান, তবে সেটা ভীষণ দুঃখজনক ঘটনা।
বাজের শিরোনামে বলা হয়েছে- সময় এখন আমাদের। সত্যিই কি সময় এখন আমাদের? কিংবা প্রশ্ন তোলা যায়Ñএই ‘আমরা’ আসলে কারা? ওই ৫ শতাংশ মানুষ?
গুটিকয়েক মানুষ নয়, সবার জন্যই ‘ভালো সময়’ আসুক-এই প্রত্যাশা রইল।