শুক্রবার,১৯ Jul ২০১৯
হোম / পার্শ্বরচনা ও অন্যান্য / উদ্বোধনীতে জয়ার চমক
০৭/০৫/২০১৯

উদ্বোধনীতে জয়ার চমক

- অনন্যা ডেস্ক

লন্ডনে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন দেশের জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী। জয়া আহসান। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মঞ্চে জয়া আহসানের এমন উপস্থিতি ছিল বাড়তি চমক।
২২ গজের লড়াই শুরুর আগে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আইসিসি। এখানে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো থেকে দুজন করে প্রতিনিধিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। তবে কোন দেশ থেকে কে প্রতিনিধি হয়ে আসছেন, বিষয়টি আগে থেকে কাউকে টের পেতে দেয়নি আইসিসি। তাই মূল অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগ পর্যন্ত জয়া মুখে কুলুপ এঁটে ছিলেন। বিশ্বকাপ শুরুর আগের দিন লন্ডনের বাকিংহাম প্যালেসের সামনের সড়ক ‘দ্য মলে’ অনুষ্ঠানটি শুরু হয় বাংলাদেশ সময় রাত ১০ টায়। আর সেখানে হঠাৎ জয়া আহসানকে দেখে রীতিমতো নড়েচড়ে বসেন তাঁর ভক্ত-অনুরাগীরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড থেকে জয়া আহসানকে আমন্ত্রণ জানায়। এবার বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশ নেওয়া সব কটি দেশ থেকে একজন স্পোর্টস ব্যক্তিত্ব আর খেলার বাইরের একজনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। দেশের শুভেচ্ছাদূত হয়ে এমন একটি আসরে অংশগ্রহণ করাটা নিঃসন্দেহে গর্বের।

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নাচ-গানের পাশাপাশি বাড়তি আকর্ষণ হিসেবে এবার যোগ হয় ১০ দলের প্রতিনিধি হয়ে আসা অতিথিদের নিয়ে ‘স্ট্রিট ক্রিকেট’।

৬০ সেকেন্ডের ক্রিকেট চ্যালেঞ্জে দেশের জার্সিতে বাংলাদেশের দুই প্রতিনিধি মিলে করেন মাত্র ২২ রান, এই খেলায় জয়া আহসান কোনো রান করতে পারেননি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পরই জয়া আহসান তাঁর ফেসবুকে বিভিন্ন দেশ থেকে আসা তারকা প্রতিনিধিদের সঙ্গে কিছু ছবি আপলোড করেন। এর মধ্যে তাঁকে দেখা যায় স্যার ভিভ রিচার্ডস, ব্রেট লি, বলিউড তারকা ফারহান আখতার আর পাকিস্তানের মালালা ইউসুফজাইর সঙ্গে।



উপস্থাপনায় প্রথম বাংলাদেশী মেয়ে

বাংলাদেশ থেকে এই প্রথম জনপ্রিয় মডেল উপস্থাপিকা জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও জমজমাট আসর আইসিসি ওয়ার্ল্ড কাপে সরাসরি মাঠ থেকে উপস্থাপনা করছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ থেকে আমিই প্রথম, তাই অনেক এক্সাইটেড।
তিনটি মাধ্যমে তার এই উপস্থাপনা দেখা যাচ্ছে। টেলিভিশনে দেখা যাবে ‘জিটিভি’ আর অনলাইনে ‘বিটহোল স্পোর্টস’ ও ‘বায়োস্কোপে’।

প্রথমবার বিশ্বকাপে উপস্থাপনার সুযোগ পেয়ে দেশ ছাড়ার আগে উচ্ছ্বসিত পিয়া বলেছিলেন, ‘বিশ্বকাপে উপস্থাপকের ভূমিকা পালনের সুযোগ পেয়ে আমি অনেক খুশি। আমি সবসময় নতুন কিছুর জন্য চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। সেদিক দিয়ে এটা চ্যালেঞ্জিং আর একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের একটি কাজ। বিশ্বকাপের মাঠ থেকে বাংলাদেশের জন্য গাজী টিভিতে উপস্থাপনা করতে যাচ্ছি। সব মিলিয়ে সুপার এক্সাইটেড।’’ যদিও তার কিছু ভুল উপস্থাপনা নিয়ে আগেও সমালোচনা হয়েছে। এ নিয়ে পিয়া বলেন, ‘আমি আগেই বলেছি আপনারা ট্রল করতে থাকবেন, আর আমি একদিন ক্রিকেটে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উপস্থাপনা করব। সেটাই হয়ে গেল। তবে এত তাড়াতাড়ি হবে ভাবিনি।’

বিশ্বকাপ শুরুর দিন থেকেই দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন এ মাঠ থেকে ও মাঠ, তার সঙ্গে আলোচনায় দেখা যায় বাংলাদেশি সাবেক খেলোয়াড়দের সঙ্গে বিশ্বের তারকা ক্রিকেটারদেরও।