শনিবার,২৫ মে ২০১৯
হোম / সাহিত্য-সংস্কৃতি / কবিতা
০৫/০৪/২০১৯

কবিতা

-

টুকরো পদ্য

-বিমল গুহ


‘মিথ্যা বলা মহাপাপ’Ñ এই মিথ্যা মৃত্যুসমতুল,
সামান্য মোহের কাছে নত-হওয়া সময়ের ভুল!

২.
কিছুই বলবো না আজ,
সত্যের কাছে জানি টেকে না চালাকি
পাছে কেউ কষ্ট পায় আমার মতনÑ
এই ভয়ে চক্ষু মুদে রাখি!

৩.
প্রকৃত মানুষ হও।
ছুঁড়ে ফেলো মিথ্যার বেসাতি আস্তাকুঁড়ে
মিথ্যা হলো কালসাপÑ
সাপের আশ্রয়ে গেলে বাঁচে না সাপুড়ে!

দাগ মেনে নিয়ে

-এলিজা খাতুন

যতই ভাবা যাক জলেই জীবন,
অনেকেরই জলে বারণ

তৃষ্ণা কাঁখে সবার অলখে জল আনতে পথে যে নামে
ছিদ্র চুঁয়ে নামা টুপ টুপ জল চিহ্ন আঁকে পথের গায়ে

জল কাছের হয় যতখানি
চোখের বেড়া টপকে পর হয় ততখানি
কাদায় ডুবে থাকা লোকেরা মুঠো ভরে-
কাদা ছাড়া কী আর দিতে পারে !

তবু নিজস্ব সান্ত¡নাÑ
একদিন বাদেই শুকোয় কাদার ছিটেফোঁটা,
আর নিশ্চিত দাগ বসে থাকে গোঁ ধরে

ওদিকে ঈর্ষা-কাঁকরের নিমন্ত্রণে নিমজ্জিতÑ

ওরা যে আরও পুঁতে যাচ্ছে কাদায় !

তা বলে-
পুনঃপুন কাদা কিংবা দাগের সতর্ক-শাসনে
কেউ কি বদ্ধ থাকে বহতা জলের তীরে যাবার অমল ক্ষণে !


শোক

-আসাদুল ইসলাম

শোকের ছবি দেখি না
দেখছি
সবার মনে তীব্রতর ফাল্গুন যাচ্ছে বয়ে
তার মধুর রসের নদীনালা খালবিল
ময়ূর কোকিল
হরিণটরিণ উপুড় হয়ে
শুয়ে আছে বৈকালিক রোদের হৃদে
কয়েক শতাব্দীর অক্লান্ত মর্মরিত আরামের মায়ায়
মনগুলো মণ মণ বালির নিচে
ঢেউয়ের নিচে
অজগরের দেহের নিচে
কেক বিস্কুট নাশপাতি বা উপপত্নীর নিচে
এমনতর চাপা পড়ে আছে
সেখানে আর গভীরতর শোকটোক
ব্যথাট্যথা
পৌঁঁছাতে গেলে
ব্যক্তিগত মৃত্যুদিন অবধি
অপেক্ষা করা ছাড়া
গত্যন্তর দেখি না

আকাশ নেমে আয়

-রোকেয়া ইসলাম

আমার একখ- আকাশ চাই
না, না, বর্ণের মেঘ থাকুক
আরও থাকুক,
আলো-আঁধারের ছলনায় আমন্ত্রিত চাঁদ
জ্বলেওঠা পরিপাটি নক্ষত্র বিলাস
প্রহসনে ফেরারি হয়ে যায়-অলীক সুখ...

ঋতু আচরণে বারবার বদলে নিক-রূপ
কোনোকিছুর গাণিতিক হিসাব মেলাব না
শুধু তার নিবিড় নীলরঙে নেই কোনো ছাড়
ওটুকুই আমার...

হয়তো প্রেম নয়তো বেদনা গভীরে
না বোঝা ভালোবাসার মতো কিছু
এইটুকুর সার্বভৌম আমার
যখন তখন বেলকনিতে দাঁড়িয়ে দেখবÑ একান্ত আকাশ
জানি, জলে প্রতিবিম্ব আমার নয়
বেলা সময়ের রেলে, প্রতারিত ব্যস্ত সমস্ত মালিকানার...

কবি

-টিপু সুলতান

অদ্ভুত এক মিথ্যার সাথে
হাত ধরাধরি করে কেটে যায়
একজন কবির নিভৃত সময়

কখনও একান্ত স্বপ্নজাল ছড়ানো
ফেলেআসা স্মৃতির মালা
অথবা আশাহত জীবনের সুখদুঃখের
দোলাচলের হিসাব মিলাতে মিলাতে
ফুরিয়ে যায় জীবনের সব খেলা

তবুও দু’চোখে স্বপ্নঘোর
আনতে চায় সে আগামী দিনের রঙিন ভোর


রাতের ভিতরে দিন

-আসাদ আহমেদ

নদীর মতোন পুরাতন চিঠিটি পড়ছি
আকাক্সক্ষায় সমুদ্রের নুনে মিলবার ইচ্ছায়।
দুরন্তপনায় ঝুলছি যেন বাবুই পাখির বাসাÑ

কোন সে প্রেমে যুক্ত আছি সংসারে!

এইসব বিভ্রাটেও ফুটে আছে ফুল
জনপদের ভেতরে ছড়িয়ে নদীÑ
মানুষের সঙ্গী হয়ে মিশছে সাগরে।

অফুরান প্রেমের ভেতর কী আর থাকে!

দিনের সব আলো মিলছে রাতে
সন্ধ্যার মতো ডাকছো হঠাৎ
দিনের সমস্ত প্রস্তুতি রাতের আঁধারে ঘুমায়।

আঁধারে জ্বলে ওঠে জ¦লজ্বলে তারাদল।

রাতের ভিতরে শুয়ে আছে দিন
দিনের ভিতরে রাত
এমন পৃথকতা নিয়ে তোমার সঙ্গে পরম
জ্বলে আছি তারাপুঞ্জে, জ্বলে আছি দিনে।