শনিবার,২৫ মে ২০১৯
হোম / বিজ্ঞান-প্রযুক্তি / কি শেয়ার করব কি করব না
০৫/০৬/২০১৯

কি শেয়ার করব কি করব না

-

আমরা আমাদের সোশ্যাল একাউন্টগুলোতে প্রায় প্রতিদিনই কিছু না কিছু শেয়ার করি। এই শেয়ার করার প্রবণতায় আমরা বেশ কিছু ভুল করে ফেলি। যার ফলে আমরা ব্যক্তিগত, সামাজিক ও আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারি। অনলাইনে আমরা কি কি শেয়ার করব না এবং শেয়ার করার সময় যেই সকল বিষয় লক্ষ রাখতে হবে, সেগুলো আজ আলোচনা করব।

যেই সব জিনিস শেয়ার করা থেকে বিরত থাকবো-

-আপনার জন্মতারিখটি কোনো অবস্থায় সবার জন্য উন্মুক্ত করে রাখবেন না। সব সময় আপনি ছাড়া আর কেউ দেখবে না এই অপশন ব্যবহার করবেন।

- যেকোনো ভ্যালিড আইডেন্টিটি কার্ড, ন্যাশনাল আইডি, পাসপোর্ট, ভিসার ছবি কোন অবস্থায় আপ্লোড করবেন না।

- আপনার ব্যাংক একাউন্ট বা ক্রেডিট কার্ডের ইনফরমেশন কিংবা কার্ডের ছবি আপ্লোড করবেন না।

- আপনি কখন কোথায় যাচ্ছেন তা পূর্বেই জানাবেন না, অনেক সময় আমরা কোথাও বেড়াতে গেলে আগেই আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে সবাইকে জানিয়ে স্ট্যাটাস দেই সেটি অনুচিত।

- আপনি কখন বাসা থেকে বের হয়ে যান, কখন বাসায় আসেন, বাসা কখন খালি থাকে এই ধরনের ইনফরমেশন কখনোই আপ্লোড করবেন না।

-আপনার কোনো সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্টের পাসোয়ার্ড কি হতে পারে বা আপনার পাসোয়ার্ডের সাথে সামঞ্জশস্যপূর্ণ শব্দ বা ক্লু, যা থেকে কেউ ধারণা করে নিতে পারে এমন কিছু শেয়ার করা থেকে বিরত থাকবেন।

- আপনি কোথায় কাজ করেন, আপনার অফিস আওয়ার, কাজের ব্যাপ্তি, কাজসংক্রান্ত তথ্যা যথাসম্ভব কম শেয়ার করবেন।

- আমরা প্রায়শই কোথাও যেয়েই বা যেতে যেতে চেক ইন দেই। কোনো জায়গায় অবস্থানকালীন সময়ে কখনোই তা শেয়ার করা উচিত নয়। বরং অই স্থান ত্যাগ করে যদি দেওয়া হয় অনেক ক্ষেত্রে অনাকাক্সিক্ষত বিপদ এড়ানো সম্ভব হয়।

- ছাত্র-ছাত্রীরা প্রায়শই তাদের আইডেন্টিটি কার্ডসহ ছবি আপ্লোড করেন বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে এটি যথাসম্ভব কম শেয়ার করা ভালো।

- অসত্য, বানোয়াট, ভিত্তিহীন গুজব শেয়ার করা থেকে বিরত থাকবেন।
আমরা না বুঝে অনেক ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত তথ্যা ছাড়াও নানাসংবাদ, স্ট্যাটাস, ছবি শেয়ার করি। বিভিন্ন জাতীয় দুর্যোগ, জাতীয় ইস্যুতে অনেক কিছু লিখি বা শেয়ার করি। অনলাইনে আপনি চাইলে যা ইচ্ছে তাই লিখতে পারবেন না। যে-কোনো অসত্য বা গুজব, উস্কানিমূলক কিছু শেয়ার ও ভাইরাল করলে যা সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে তার জন্য কোনো কোনো ক্ষেত্রে আপনি জেল জরিমানা পর্যন্ত গুনতে হতে পারে। তাই অনলাইনে কোনো কিছু শেয়ারের ক্ষেত্রে যেই সকল বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে সেগুলো হচ্ছে-

- যে-কোনো সংবাদ, তথ্য বা লেখা অনলাইনে শেয়ারের পূর্বে এটি সত্যি কিনা এই ব্যাপারটি ক্রস চেক করে নিন।

- বিতর্কিত বা সামাজিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে এমন সংবাদ, ছবি এবং লেখা শেয়ার করা থেকে বিরত থাকা উচিত।

- গুজব, অর্ধসত্য তথ্য এবং মিথ্যা সংবাদ, অনলাইন নিউজ শেয়ারের পূর্বে এটি সত্যি কিনা নিশ্চিত হতে গ্রহণযোগ্য মিডিয়াগুলোর প্রকাশিত সংবাদের সাথে ক্রসচেক করে নিতে হবে।

-এক শ্রেণির স্বার্থান্বেষীমহল জনগণের আবেগকে পুজি করে গুজব ছড়াতে সত্যির সাথে মিথ্যা মিশিয়ে, ছবি এডিট করে ভাইরাল করে দেয়। বা ভিন্নদেশের বা অন্য কোনো ঘটনার ছবিকে ব্যবহার করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায়, তাই এই ধরনের কনটেন্ট শেয়ারের পূর্বে সত্য মিথ্যা যাচাই করে নিতে হবে।

-আগাছার মতো অনেক অনলাইন নিউজ গড়ে উঠেছে। যারা লাইক, শেয়ারের জন্য নানারকম অশ্লীল, ভিত্তিহীন, উস্কানমূলক নিউজ প্রকাশ করে, এইগুলো কখনোই শেয়ার করবেন না।

- কাউকে হুমকি প্রদান করে কোনো স্ট্যাটাস শেয়ার করা যাবে না। কারো নাম উল্লেখ করে তাকে নিয়ে এমন কোনো লেখা যা সেই ব্যক্তিকে ব্যক্তিগত ও সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করে তা শেয়ার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

-ধর্মীয় অনুভূতিকে আঘাত করে, অন্য ধর্মের ব্যক্তি বা অনুসারী সকলকে নিয়ে অসম্মান হয় ও ধর্মীয় অনুভূতিকে আঘাত করে এমন মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকতে হবে।



-- জেনিফার আলম
প্রেসিডেন্ট, ক্রাইম রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস ফাউন্ডেশন (ক্রাফ), ট্রেইনার, জাতীয় জরুরি সেবা-৯৯৯