সোমবার,২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
হোম / স্বাস্থ্য-ফিটনেস / ডায়াবেটিস রোগ সম্পর্কে কিছু ভ্রান্ত ধারণা
০২/১৮/২০১৯

ডায়াবেটিস রোগ সম্পর্কে কিছু ভ্রান্ত ধারণা

- অনন্যা ডেস্ক:

ডায়াবেটিস এমন একটি রোগ, যা সম্পূর্ণভাবে নিরাময় না করা গেলেও, নিয়মিত শরীরচর্চা, ঠিক মতো ঔষুধ এবং পরিমিত খাবার গ্রহণ করলে তা নিয়ন্ত্রণে থাকে। সাধারণত রক্তে সুগারের মাত্রা বেড়ে গেলে শরীরে কি ধরণের সমস্যা হতে পারে সে সম্পর্কে আমাদের কমবেশি সকলেরই ধারণা আছে। তবে ডায়াবেটিস সম্পর্কে বেশ কিছু ভ্রান্ত ধারণা এই রোগে আক্রান্ত রোগীর সমস্যা অনেক সময় বাড়িয়ে দেয়। ডায়াবেটিস সম্পর্কে তেমনই কিছু প্রচলিত ভ্রান্ত ধারণা সম্পর্কে আজ জেনে নেয়া যাক।

১) অধিকাংশ মানুষই মনে করেন যে, ডায়াবেটিস ধরা পড়লে শর্করা জাতীয় খাবার একেবারেই খাওয়া নিষেধ।কিন্তু আদতে এমন ধরণা সম্পূর্ণ ভুল। কারণ, ডায়েটের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল স্টার্চ বা শর্করা জাতীয় খাবার। তাই কখনই শর্করা জাতীয় খাবার খাদ্য তালিকা থেকে সম্পূর্ণ বাদ দেওয়া উচিত নয়। তারচেয়ে বরং সেটা কম পরিমাণে খাওয়া উচিত।

২) অনেকেই মনে করেন, ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের মিষ্টি খাওয়া বিষ পানের সমতুল্য। বাস্তবে এ ধরণা একদমই সঠিক নয়! কারণ, নিয়ন্ত্রিত পরিমাণে মিষ্টি যে কেউ খেতে পারেন। বরং চিকিৎসকদের মতে, শুধুমাত্র ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের ক্ষেত্রেই নয়, বেশি মিষ্টি খাওয়া যে কোনও মানুষের জন্যই ক্ষতিকর।

৩) অনেকে এই বিশ্বাস নিয়ে থাকেন যে, কারো যদি ডায়াবেটিস ধরা পড়ে তবে তিনি রক্তদান করতে পারবেন না। কিন্তু এটা এটা ভুল ধারণা। কারণ, শুধুমাত্র যারা নিয়মিত ইনসুলিন ইঞ্জেকশন নেন, শুধুমাত্র তারাই রক্তদান করতে পারেন না। বাকিদের ক্ষেত্রে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকলে, রক্তদানে কোনও সমস্যা নেই।

৪) অধিকাংশ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীরা মনে করেন, খাবার গ্রহণ সবসময় নিয়ন্ত্রণে রেখে যতোটা সম্ভব কম পরিশ্রম করা। তবে এই ধরণাও সম্পূর্ণ সঠিক নয়। কারণ, নিয়ম মেনে চললে আর রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকলে ডায়াবেটিকরাও অন্যান্য সুস্থ মানুষদের মতোই স্বাভাবিক ভাবে জীবনযাপন করতে পারেন।

৫) কোন রোগীকে চিকিৎসক ইনসুলিন নেওয়ার পরামর্শ দিলে অনেকে মনে করেন যে রোগী হয়তো নিয়ম মেনে জীবন যাপন করছে না। তবে বাস্তবে এ ধরণা মোটেও সঠিক নয়। কারণ, টাইপ-২ ডায়াবেটিসে (T2D) আক্রান্ত রোগীর রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা দ্রুত কমে যায়। ফলে নিয়মিত ঔষুধ খাওয়া সত্ত্বেও একটা সময়ের পর ইনসুলিন নেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে তাদের।তারমানে এই নয় যে, শুধুমাত্র অনিয়ন্ত্রিত জীবন যাপন করলেই ইনসুলিনের প্রয়োজন পড়বে।