সোমবার,২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
হোম / জীবনযাপন / বিষণ্ণতা দূরীকরণের মহাঔষধ: 'মা'
০২/১৩/২০১৯

বিষণ্ণতা দূরীকরণের মহাঔষধ: 'মা'

- অনন্যা ডেস্ক:

বিষণ্ণতায় ভোগা রোগটি বর্তমান সময়ের মানুষের কাছে অতি পরিচিত শব্দ। আর যখনই মানুষ
এই বিষণ্ণতার মধ্যে দিয়ে যায়,তখন তাদের পৃথিবী হয়ে উঠে বর্ণহীন।স্বাভাবিক জীবনের আনন্দ-উচ্ছ্বাস, কর্মস্পৃহা এসব অনুভূতিগুলোর কোনো অস্তিত্ব খুঁজে পাওয় যায় না। অন্তরে কেবল ধারণ করে একরাশ শূন্যতা। নিজের এই শূন্যতার সাথে যুদ্ধ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে একদিন হয়তো সকলের অগোচরেই রঙিন পৃথিবীকে বিদায় জানিয়ে দেয় মানুষটা।
দীর্ঘদিন গবেষণা করার পর সমাজ বিজ্ঞানীরা এই বিষণ্ণতা রোগের নিরাময় আবিষ্কার করেছেন। আর তা হচ্ছে, এই রোগে ভুগতে থাকা ব্যক্তির নিজের 'মা' এর সাথে কথা বলা।
'মা' যদি আশেপাশে না থাকেন, তবে তাকে ফোনে কল করে কথা বলা। এর ফলে স্ট্রেস ও বিষণ্ণতায় ভোগা কমে যায় এবং স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার সম্ভাবনা অনেক ক্ষেত্রেই বেড়ে যায়।
ইউনিভার্সিটি অব উইসকনসিনের চাইল্ড ইমোশন ল্যাবে দীর্ঘদিন করা এক গবেষণার ফলাফল থেকে জানা যায়, মায়ের আলিঙ্গন সন্তানের মানসিক স্ট্রেস কমাতে যে প্রভাব ফেলে, ঠিক একই প্রভাব পড়ে ফোনের মাধ্যমে শোনা যাওয়া মায়ের কণ্ঠস্বরে।
গবেষণা থেকে আরও জানা যায়, একজন সন্তান যখন তার মাকে জড়িয়ে ধরে তখন মুহূর্তের মধ্যেই তার মস্তিষ্কে ভালো লাগার অনুভূতিসম্পন্ন হরমোন অক্সিটোসিনের স্রোত বয়ে যায়।যা মানসিক চাপ কমতে সাহায্য করে।
গবেষকরা জানান, মায়ের ভালোবাসার মতো ক্ষমতাশালী বস্তু খুব কমই আছে।এমনকি একজন মায়ের পক্ষে হাজার হাজার মাইল দূরে থেকেও তার কন্ঠস্বর দিয়ে সন্তানের মন ভালো করে দেয়া সম্ভব।ল্যাবের করা গবেষণায় এর সত্যতাপ্রমাণিত হয়েছে।
তাই এখন থেকে মন খারাপ থাকলে কিংবা খুব বেশি বিষণ্ণতায় ভুগলে দেরি না করে এখনই মায়ের কাছে চলে যান। আর তা সম্ভব না হলে ফোনে কল করে কথা বলুন তাঁর সাথে।