মঙ্গলবার,১৬ অক্টোবর ২০১৮
হোম / রূপসৌন্দর্য / এসি-তে ত্বকের ক্ষতি!
১০/০৪/২০১৮

এসি-তে ত্বকের ক্ষতি!

-

ভ্যাপসা গরমে এসি-ই এনে দিতে পারে স্বস্তি। আর সেই কারণে দিনের দীর্ঘ সময়, বিশেষ করে অফিসে থাকলে, কাটানো হয় ঠান্ডা ঘরে। অন্যদিকে এই যুগে চাইলেও এসি এড়িয়ে চলা সম্ভব নয়। কারণ অফিস, বাসা, রেস্তোরাঁ সব জায়গাই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত।

তবে দীর্ঘসময় এয়ার কন্ডিশনার চলা ঘরে কাটানোর কারণে ত্বক নানানভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় তা অনেকেরই অজানা। বিশেষত ঠান্ডা ঘর থেকে বাইরে বের হওয়ার কারণে হঠাৎ তাপমাত্রার পরিবর্তনও ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তার সঙ্গে দূষণ, আবহাওয়ার পরিবর্তন এসব তো আছেই।

এয়ার কন্ডিশনার মূলত ঘরের বাতাসের জ্বলীয় বাষ্প টেনে বের করে নেয়। এ কারণেই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘর অত্যন্ত শুষ্ক হয়। আর এই প্রক্রিয়ায় ঘরে থাকা মানুষগুলোর ত্বকের আর্দ্রতাও হ্রাস পেতে থাকে। এ থেকে ত্বকের নানান সমস্যা হতে পারে, দেখা দিতে পারে চর্ম রোগও।

অন্যদিকে এয়ারকন্ডিশনারের সঠিক যত্ন নেওয়া না হলে এর থেকে ব্যাক্টেরিয়ার সংক্রমণ হওয়ারও ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। তাই যারা দীর্ঘ সময় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে থাকেন তাদের ত্বকের প্রতি বিশেষ যত্নশীল হতে হয়। এখানে বেশ কিছু উপায় তুলে ধরা হলো।

* সারাদিন প্রচুর পানি পান করুন। ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখার জন্যে এটি অত্যন্ত কার্যকর ও সহজ একটি উপায়। দিনে আট গ্লাস পানি পান করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। পাশাপাশি খাবারের তালিকায় রাখুন সবজি এবং ফল। চাইলে ফলের রসও পান করা যেতে পারে, তবে অবশ্যই চিনি ছাড়া। ডাবের পানিও অত্যন্ত উপকারী। ত্বক ও শরীরের যত্নে নিজেই ডিটক্স ওয়াটার তৈরি করে নিন। শসার টুকরা, আদা ও পুদিনা পানিতে ভিজিয়ে রেখে এটি সহজেই তৈরি করা যায়।

* হাতের কাছে হাইড্রেটিং মিস্ট বা হালকা ময়েশ্চারাইজার রাখুন। মিস্ট ত্বকে ছিটিয়ে নিলে বেশ ফ্রেশ লাগবে এবং আর্দ্রতাও বজায় থাকবে। তবে আর্দ্রতা ধরে রাখতে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার রাখা উচিত যেন প্রয়োজনমতো ব্যবহার করা যায়।

* এসি ত্বক শুষ্ক করে ফেলে তাই এই সময় কেমিক্যাল সমৃদ্ধ প্রসাধনী থেকে দূরে থাকুন। কড়া সুগন্ধী বা ক্ষারযুক্ত সাবান বাতিল করে দিন। বরং হালকা মিস্ট, শাওয়ার জেল বা ন্যাচারাল সাবান বেছে নিন।

* সময় করে এসি থেকে বেরিয়ে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় থাকার অভ্যাস করুন। কাজের ফাঁকে বাইরে বের হওয়ার সুযোগ থাকলে তা কাজে লাগান। ত্বক আবহাওয়ার সঙ্গে নিজেকে দ্রুত মানিয়ে নেয়। তাই ত্বকের আর্দ্রতার ভারসাম্যও ফিরে আসে। তাছাড়া সম্ভব হলে ঘরে এসি ছাড়া থাকার চেষ্টা করুন।

* ঘরের আর্দ্রতা বজায় রাখার চেষ্টা করুন। এক্ষেত্রে এসি চলাকালীন সময়ে এসির সামনে একটি পাত্রে পানি রেখে দিন। এতে ঘরের বাতাসে কিছুটা আর্দ্রতা বৃদ্ধি পাবে।

সব শেষে নিয়মিত ত্বকের যত্ন নিন। শুধু মুখের ত্বক নয় পুরো শরীরের ত্বকের প্রতি যত্নশীল হন। এই আবহাওয়ায় তৈলাক্ত ও ভাজাপোড়া খাবার এড়িয়ে চলুন। পানি ও পানি সমৃদ্ধ খাবার শরীর ও ত্বক দুইয়ের জন্যই উপকারী। কোমল পানীয় এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

দৈনন্দিন অভ্যাসে অল্প কিছু পরিবর্তন এবং কিছুটা বাড়তি যত্ন স্বাস্থ্য ও ত্বক সুস্থ রাখতে যথেষ্ট।

- অদ্বিতী