বুধবার,২১ নভেম্বর ২০১৮
হোম / বিবিধ / বেছে নিন প্রাকৃতিক সাবান
০৭/৩১/২০১৮

বেছে নিন প্রাকৃতিক সাবান

-

বর্ষায় স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ার কারণে ত্বক এবং চুল প্রাণহীন হয়ে যায়। কারণ এই সময় বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ অন্য মৌসুমের তুলনায় বেশি থাকে। ফলে ত্বক ও চুলের নানাধরনের সমস্যা দেখা দেয়।

এই সময় আবহাওয়া কিছুটা ভিন্ন থাকায় ত্বকের যত্নে সাধারণ সাবান বা ফেসওয়াশের বদলে প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি প্রসাধনি বেছে নেওয়া উচিত।

প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি সাবান বা ফেসওয়াশ ত্বকে জমে থামা ধুলাময়লা পরিষ্কার করবে স্বাভাবিক আর্দ্রতা ও পিএইচ-এর ভারসাম্য বজায় রেখে। পাশাপাশি ভেষজ উপাদান ত্বককে সংক্রমণকারী ব্যাক্টেরিয়া থেকে দূরে রাখে। তাই এমন উপাদান সম্পন্ন প্রসাধনী বেছে নিন, যা ত্বককে সুস্থ রাখবে পাশাপাশি কোমলতাও ধরে রাখবে।

কাঠবাদাম, অ্যাভোকাডো ইত্যাদি উপাদান সমৃদ্ধ সাবান ত্বককে কোমল রাখবে। পাশাপাশি নারিকেল তেল, হলুদ, শসার নির্যাস ইত্যাদি উপাদানও ত্বকের জন্য উপকারী।

যাদের ত্বক মলিন তারা গোলাপের নির্যাস সমৃদ্ধ প্রসাধনী, সাবান বা ফেসওয়াশ বেছে নিতে পারেন। এতে ত্বক কোমল হবে এবং উজ্জ্বলতাও বাড়বে। তাছাড়া গোলাপের নির্যাস ক্ষতিগ্রস্ত ত্বককে সুস্থ করে তুলতে সাহায্য করে। গোলাপের সুগন্ধ মনকে শান্ত করতেও কার্যকরী। গোলাপের তেল এবং এর পাপড়ি ত্বকের কালচে ছোপ ও ব্রণের দাগ দূর করতেও উপযোগী।

এই মৌসুমের জন্য ল্যাভেন্ডার নির্যাসের সাবানও দারুণ উপযোগী। এর অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান ত্বকের জ্বালাপোড়া দূর করে এবং সংবেদনশীলতা কমায়। শুষ্ক ও প্রাণহীন ত্বককে এক্সফলিয়েট করে এবং রোদে পোড়াভাব দূর করে। তাছাড়া ল্যাভেন্ডারের গন্ধ মানসিকভাবে স্বস্থি দেয়।

চারকোল বা কয়লা ত্বকের যত্নে বহুল পরিচিত ও ব্যবহৃত। তৈলাক্ত ও মিশ্রত্বকের জন্য চারকোল বিশেষ উপযোগী। অ্যাক্টিভেটেড চারকোল সমৃদ্ধ সাবান বা ফেসওয়াস ত্বকের গভীরে জমে থাকা ময়লা ও তেল দূর করে। পাশাপাশি টক্সিন পরিশোধিত করে ত্বককে সুস্থ রাখে। এতে লোমকূপ গভীর থেকে পরিষ্কার হয়, ব্রণের সমস্যা কমে এবং মৃত কোষও দূর হয়।

পেঁপে ও শসার মিশ্রণ প্রায় সব ধরনের ত্বকের জন্য উপযোগী। ত্বককে পরিষ্কার করে ভিতর থেকে জেল্লা বাড়ায়। লোমকূপ ভিতর থেকে পরিষ্কার করে ত্বকের র‌্যাশ ও ব্রণের সমস্যা কমিয়ে আনে। ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রেখে ত্বককে কোমল করে তোলে। তাই শুষ্ক ত্বকের জন্য বিশেষভাবে উপযোগী।

এই মৌসুমে নিজের কিছুটা বাড়তি যত্ন নেওয়া উচিত। এখানে কিছু বিষয় তুলে ধরা হলো।

মুখের ত্বকের যত্ন
* ত্বক কোমল রাখতে ক্ষারবিহীন সাবান ব্যবহার করতে হবে।
* ত্বক পরিষ্কারের পর নমনীয়তা ধরে রাখতে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে।
* এই মৌসুমে ত্বকে যতটা সম্ভব কম স্ক্রাবার ব্যবহার করা উচিত।
* মেঘলা আবহাওয়াতেও দিনে ঘর থেকে বের হওয়ার আগে সানস্ক্রিন অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে।

পুরো শরীরের ত্বকের যত্ন
> গোসলের জন্য হালকা সাবান ব্যবহার করতে হবে।
> কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করতে হবে।
> গোসলের পর ত্বক বেশি ঘষে মোছা উচিত নয়। কাপড় দিয়ে চেপে চেপে পানি মুছে নেওয়া উচিত।
> ক্যাফেইন এবং কোমল পানীয় এড়িয়ে চলা উচিত। এই পানীয়গুলো ত্বক শুষ্ক করে দেয়।
> পুরো শরীরের ত্বক কোমল রাখতে পানি সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত।

- অদ্বিতী