রবিবার,১৯ অগাস্ট ২০১৮
হোম / রূপসৌন্দর্য / পুরুষদের স্কিন কেয়ার
০৭/১৮/২০১৮

পুরুষদের স্কিন কেয়ার

-

পুরুষদের অগোছালো থাকার দিন শেষ। মেয়েরাও সুন্দর ও পরিপাটি ছেলেদের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। কিন্তু এর জন্য খুব বেশি দৌড়-ঝাপের প্রয়োজন নেই। মেয়েদের পাশাপাশি এখন ছেলেদের জন্যেও অনেক বিউটি টিপস রয়েছে। পুরুষদের রুক্ষ-শুষ্ক ত্বককে সুস্থ ও পরিষ্কার রাখার জন্যে শুধু মুখ ধোয়া ও ময়েশ্চারাইজ করাই যথেষ্ট নয়। আর তাই রুক্ষ-শুষ্ক ত্বক থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্যে এই লেখাটিতে উল্লিখিত স্কিন কেয়ার ফর্মুলাগুলো অনুসরণ করতে পারেন।

ত্বক পরিস্কার রাখুন
যেহেতু ছেলেরা প্রতিদিন ধুলো-ময়লা, গাড়ির ধোঁয়া, সিগারেটের ধোঁয়াসহ আরো নানাধরনের দূষণের মুখোমুখি হয়, তাই মেয়েদের মতো ছেলেদেরও নিয়মিত চেহারা পরিষ্কার রাখার সাথে সাথে টোনিং ও ময়েশ্চারাইজ করা গুরুত্বপূর্ণ। ছেলেদের ত্বক মেয়েদের তুলনায় অধিক তৈলাক্ত ও পুরু হয়। তাই এমন ফেস ওয়াশ ব্যবহার করতে হবে যেটি সবধরনের ত্বকের সাথে মানিয়ে যায়। ত্বকের মৃতকোষগুলোকে দূর করতেও মুখ পরিষ্কার রাখতে ফেস ওয়াশের বিকল্প নেই। তবে এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে যেন ত্বক অতিমাত্রায় শুষ্ক না হয়ে যায়।

আমরা অনেকেই ঘুমাতে যাবার আগে মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করতে ভুলে যাই, যা ত্বকের ক্ষতি করে। মুখে ব্রণ ও কালোভাব দূর করতে অবশ্যই ক্লিনজিং করতে হবে। আর টোনিং-এর জন্য গোলাপজল ব্যবহার করতে পারেন।

ত্বকের রুক্ষতা দূর করতে ও ফেটে যাওয়া ঠেকাতে ব্যবহার করুন ময়েশ্চারাইজার। ত্বক জ্বালা করলে ঘন ময়েশ্চারাইজার ব্যবহারে স্বস্তি পেতে পারেন।

সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন
আরেকটি বিষয় যা ছেলেরা এড়িয়ে যায়, তা হচ্ছে সানস্ক্রিন ব্যবহার করা। ন্যূনতম এসপিএফ ৩০ সানস্ক্রিন অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। সূর্য রশ্মির কারণে ত্বকের রং ও গঠন বিন্যাসের ক্ষতি সাধিত হয়। তাই মুখে ও হাতে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। ঘর থেকে বের হবার ন্যূনতম ১৫ মিনিট আগে ব্যবহার করতে হবে, যাতে তা ভালোভাবে ত্বকের সাথে মিশে যেতে পারে।

নিয়মিত স্ক্রাবিং করুন
ত্বকে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমন ঠেকাতে ও মৃত কোষগুলোকে দূর করতে স্ক্রাবিং এর বিকল্প নেই। নিয়মিত স্ক্রাবিং না করলে রোমকূপগুলোতে ময়লা জমে ত্বকের সৌন্দর্য বিনষ্ট হতে পারে। আর তাই ছেলেদের বিউটি টিপসগুলোর মধ্যে স্ক্রাবিং শীর্ষে থাকবে। মৃত কোষগুলোকে দূর করার মাধ্যমে মুখের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। ত্বকের ধরন অনুযায়ী ক্রিম বা জেল-এর স্ক্রাব ব্যবহার করুন।

বলিরেখা দূর করুন
চোখের চারপাশের ত্বকে স্বাভাবিকভাবেই তরলের অভাব থাকে। আর তাই সময়ের সাথে সাথে চোখের নিচে বলিরেখা দৃশ্যমান হয়। প্রতিদিন সকালে ও শোয়ার আগে নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্রিম চোখের চারপাশে মেখে নিলে প্রতিকার পেতে পারেন। বাজারে বলিরেখা দূর করার জন্যে বিভিন্ন ধরনের ক্রিম পাওয়া যায়।

ঠোঁটের যত্ন নিন
ত্বকের সাথে সাথে ঠোঁটের দিকেও খেয়াল করতে হবে। ঠোঁট সময়ের সাথে সাথে খসখসে হয়ে যেতে পারে ও তামাটে রং ধারণ করতে পারে। এক্ষেত্রে একটি ভালোমানের লিপ বাম-ই হতে পারে সব সমস্যার সমাধান। এটি ঠোঁটকে আরো কোমল ও নমনীয় করে তুলবে। আর আপনি জানেন কি যে ঠোঁট বয়সের সাথে সাথে বুড়িয়ে যায়? আয়নায় ভালোভাবে পরখ করুন, ঠোঁটের ফাইন লাইনগুলো সহজেই দেখতে পাবেন। বয়সের সাথে সাথে ঠোঁটের খসখসে ভাব বৃদ্ধি পায়। আর এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে দিনে উচ্চ এসপিএফ সমৃদ্ধ ও রাতে সাধারণ লিপ বাম ব্যবহার করুন।

- হোসেন মাহমুদ আব্দুল্লাহ