শনিবার,১৮ অগাস্ট ২০১৮
হোম / জীবনযাপন / এই রমজান হয়ে উঠুক সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির
০৬/০২/২০১৮

এই রমজান হয়ে উঠুক সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির

-

পরিবার ও সমাজের সকলের সাথে সম্প্রীতি স্থাপনের সঠিক সময় হচ্ছে রমজান। একই সাথে নামাজ আদায়, সেহেরি এবং ইফতার করা ইত্যাদির মাধ্যমে একে অপরের কাছাকাছি আসা যায় এই সময়টায়। শুধু নিজ ধর্মেরই নয়, বরং সকল শ্রেণির মানুষের সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তোলার মোক্ষম সময় এটি।

পরিবারের সবাই একসাথে প্রার্থনা করুন
পরিবারের সকলকে একত্রে করার মোক্ষম সময় মাহে রমজান। সারাবছর হয়তো ব্যস্ততার কারণে তেমন একটা সময় হয় না একসাথে সময় কাটানোর। হয়তো সারাদিনের নামাজ একসাথে পড়া হয়ে উঠবে না কিন্তু একসাথে ইফতার করে মাগরিবের নামাজটা পরিবারের সবাই একসাথে আদায় করা যেতে পারে।

অসহায় এবং পথিকদের জন্য ইফতারের ব্যবস্থা করুন
ব্যস্তনগর জীবনে অনেক সময় ইফতারের সময়টা বাসায় পৌঁছানো সম্ভব হয় না অনেকের ক্ষেত্রে। সেই সকল মানুষ এবং অসহায়দের জন্য ইফতারের ব্যবস্থা করুন। আপনার পরিবার, প্রতিবেশি সকলে মিলে সাহায্য করতে পারেন। পরিবারের ছোটদের সাথে নিন, তাদের মানুষকে সাহায্য করতে উৎসাহিত করুন। এতে করে যেমন সামাজিক বন্ধন অটুট থাকবে তেমনি আল্লাহ্‌র সন্তুষ্টি লাভ করা যাবে।

অন্যকে ক্ষমা করতে শিখুন
ক্ষমা পরম ধর্ম। তাই ক্ষমা করতে শিখুন। কিন্তু এটা শুধু নিজে নিজে করে বসে থাকলে চলবে না, তার কাছে যান তাকে বলুন। সকল বিবাদ ভুলে যান। একসাথে নামাজ আদায় করুন, ইফতার করুন এতে করে ব্যাপারটা অনেক সহজ হয়ে যাবে। আপনার সন্তানকে ক্ষমা করার শিক্ষা দিন।

সেহেরি ও ইফতার তৈরিতে সাহায্য করুন
আপনার মা-বাবাকে সেহেরি ও ইফতার তৈরিতে সাহায্য করুন। আপনি হয়তো সারাদিন রোজা রাখেন কাজ করেন বা পড়াশোনা করেন কিন্তু একটু ভাবুনতো তারাও কিন্তু করছেন। তাই তাদের একটু সাহায্য করুন এতে পারিবারিক বন্ধন অটুট থাকবে। তাদের সাথে আপনার সম্পর্কেরও উন্নতি হবে।

পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের ইফতারের দাওয়াত দিন
পরিবার, বন্ধু, আত্মীয়-স্বজনদের কাছে আনার সময় এই মাস। আত্মীয় ও বন্ধুদের ইফতারের দাওয়াত দিন। যাদের সাথে হয়তো অনেকদিন দেখা নেয়, রমজানের সময় ইফতারের মাধ্যমে তাদের কাছে আনুন। নিজেও দাওয়াত গ্রহণ করুন। এতে করে আত্মীয়ের হক যেমন আদায় হবে তেমনি আনন্দও হবে অনেক।

একটি পরিবারের ইফতারের দায়িত্ব নিন
ইফতারে প্রতিদিন অনেক বেশি বেশি খেয়ে বা নষ্ট না করে একটি পরিবারের ইফতারের দায়িত্ব নিন। আমাদের দেশে অনেক পরিবার আছে যাদের ঠিকমতো প্রতিদিন ইফতার করার সামর্থ্য নেয়। তাদের সাহায্য করুন, এমন একটি পরিবারের ইফতারের দায়িত্ব নিন। বিশেষ করে, প্রতিবেশির দিকে আগে দেখুন এতে করে প্রতিবেশির হকও আদায় হয়ে যাবে।

দান করুন
শুধু টাকা দান করাই দান না, চাইলে বিশুদ্ধ পানিও দান করা যায়। যার যা প্রয়োজন তাকে আপনার সামর্থ্য থেকে দান করুন। আপনার একটু দান কার মুখে হাসি ফুটাতে পারে। কোনো বান্দাকে দান করলে আল্লাহ্ সন্তুষ্ট হন। আর মাহে রমজানে দান করলে এর দশগুণ সোয়াব পাওয়া যায়।

রমজানে একঘেয়মি যেন না আসে
অনেকেই হয়তো মনে করেন রমজান মানেই সারাদিন রোজা রাখা আর ইফাতার করে বিশ্রাম নেয়া। রমজান কিন্তু তা না। রমজানে পরিবারকে সময় দিন, গরিব-দুঃখীদের সহায় হোন, বন্ধুদের সাথে ভালো কাজে যোগ দিন, একসাথে ইফতার করুন, বিভিন্ন মসজিদে তারাবির সালাত আদায় করুন। রমজান মানে না খেয়ে বসে থাকা নয়, বরং রোজা রেখে সকল কাজ করার নাম মাহে রমজান।

স্বেচ্ছাসেবা মূলক কাজে সময় ব্যয় করুন
এই রমজানে স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজে সময় দিতে পারেন। এতে অনেকের উপকার হবে, আর এই মাসের ধর্মীয় গুরুত্বও অনুধাবন করা হবে। এ ধরনের পরিবারের সাথে নিন যাতে তারা ভবিষ্যতে এমনটা করার উৎসাহ পায়।

- মুশফিকুর রাহমান