বৃহস্পতিবার,২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮
হোম / জীবনযাপন / শারীরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে সঙ্গী কি স্বার্থপর?
০২/২২/২০১৮

শারীরিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে সঙ্গী কি স্বার্থপর?

-

ভালোবাসার বন্ধনে আবদ্ধ যুগলদের জন্য শারীরিক সম্পর্ক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। সঙ্গীর সঙ্গে সুন্দর ও স্বাভাবিক যৌন সম্পর্ক প্রতিটি মানুষের সাধারণ চাহিদার মধ্যেই পড়ে। তবে এই সম্পর্ক শারীরিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলেই চলবে না। কারণ এর সঙ্গে দুজন মানুষের চাওয়া-না চাওয়া কিংবা মানসিক নানা বিষয়াদি জড়িত। আর এসব বিষয় উপেক্ষা করে স্বার্থপরের মতো আচরণ করলে সম্পর্কের বীজ যে অঙ্কুরেই বিনষ্ট হবে তা বলতে গেলে নিশ্চিত।

যৌন সম্পর্ক প্রতিটি মানুষেরই জৈবিক চাহিদা এবং একই সাথে ভালোবাসা প্রকাশের শক্তিশালী মাধ্যমও বটে। তবে তার মানে কিন্তু এই নয় যে যৌন সম্পর্কের ব্যাপারটা একপেশে হবে, সঙ্গীর পছন্দ বা ইচ্ছেই হবে এই সম্পর্কের ভিত। বরং সঙ্গী যদি এই ব্যাপারে স্বার্থপর হয় এবং একগুয়ে আচরণ করে তবে বলতেই হয় যে সময় এসেছে সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নিয়ে আরেকবার ভেবে দেখার। যৌন সম্পর্কের ব্যাপারে সঙ্গী আপনার সাথে স্বার্থপর আচরণ করছেন কিনা তা বোঝার জন্য নিম্নোক্ত টিপসগুলো কাজে আসতে পারে।

সেক্স-এর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দুদিক থেকে সম্মতির ভিত্তিতে হওয়া উচিত। এই যেমন অনেক সময় সঙ্গীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে আপনার ইচ্ছা না করতেই পারে। কিন্তু আপনার প্রিয় মানুষটি যদি তা না বুঝে উলটো এই ব্যাপারটি নিয়ে জেদ ধরে বসে থাকে তবে বুঝতে হবে তিনি স্বার্থপর আচরণ করছেন।

সেক্সের ক্ষেত্রে সবারই ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ থাকতে পারে। তবে তা কখনোই আরেকজনের উপর চাপিয়ে দেয়া উচিত নয়। সঙ্গী যদি যৌন সম্পর্কের ক্ষেত্রে সব সময় তার পছন্দের কাজ করতে আপনাকে জোর করতে থাকেন তবে তা চূড়ান্ত স্বার্থপরতা ছাড়া আর কিছুই নয়।

শারীরিক সম্পর্ক পুরোটাই একেবারে দ্বিপাক্ষিক বিষয়। তাই এতে দুজনের সমান অংশগ্রহণ আবশ্যক। কিন্তু ব্যাপারটা যদি এমন হয় যে আবহ সৃষ্টি থেকে শুরু করে ইন্টারকোর্সের পুরোটা সময় আপনাকেই সঙ্গীর চাহিদা মেটানোর জন্য কাজ করতে হচ্ছে তবে বুঝতে হবে এই সম্পর্কে অনেক কিন্তু রয়েছে এবং এখনই তা নিয়ে ভেবে দেখা দরকার।

যৌন সম্পর্কের আগে পরে সঙ্গীর আচরণের পরিবর্তন খেয়াল করুন। শুধু যৌন সম্পর্কের সময়টাতেই যদি আপনি সঙ্গীর কাছে গুরুত্বপূর্ণ হন তবে বলা যায় এ সম্পর্কের ভিত্তি দুর্বল। আপনার প্রিয় মানুষটি নেহাতই একজন স্বার্থপর মানুষ এবং তার থেকে দূরে সরে যাওয়ার সময় এখনই।

যৌন উত্তেজনা সবাই একই সময়ে একই পরিমাণে অনুভব করবেন তা কিন্তু নয়। সঙ্গী যদি আপনার অনুভূতি নিয়ে সংবেদনশীল না হয়ে বরং অভিযোগ করতে থাকেন তবে তাও স্বার্থপরতার মধ্যে পরে।

আপনার শারীরিক গড়ন নিয়ে প্রিয়জনের কোনোরূপ কটূক্তি একেবারেই প্রশ্রয় দিবেন না। সঙ্গী যদি আপনার ফিগার নিয়ে অতিরিক্ত সচেতন থাকেন বা অভিযোগ করেন তবে তাকে গুডবাই বলাটাই মোক্ষম জবাব।

- আতিফ হাসান